চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

দ্বিতীয় সপ্তাহে আরো ২৭টি প্রেক্ষাগৃহে ‘হাসিনা’

৪টি প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পেয়েছিলো ‘হাসিনা’, দ্বিতীয় সপ্তাহে যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৩১

গেল সপ্তাহে মাত্র চারটি প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পায় বহুল আলোচিত ডকু-ড্রামা ‘হাসিনা: অ্যা ডটারস টেল’। দর্শক চাহিদায় দ্বিতীয় সপ্তাহ থেকে এবার ছবিটি মুক্তি পেল আরো ২৭টি নতুন প্রেক্ষাগৃহে। শুক্রবার সকালে চ্যানেল আই অনলাইনকে এমনটাই জানালেন ছবির পরিবেশক গাউসুল আলম শাওন।

গেল শুক্রবার ঢাকা ও চট্টগ্রামের চারটি প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পায় বঙ্গবন্ধু কন্যা ও বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জীবনী নিয়ে নির্মিত বহুল প্রতীক্ষিত ডকু-ড্রামা ‘হাসিনা: অ্যা ডটারস টেল’। মুক্তির পর পরই সাড়া ফেলে ছবিটি। সিনেমা অঙ্গনেতো বটেই এই ডকু-ড্রামায় মজেন এমপি, মন্ত্রী ও রাজনীতিবীদ থেকে শুরু করে গণমাধ্যম ব্যক্তিত্ব, সিনেমা নির্মাতাসহ ছোট ও বড় পর্দার অভিনেতা অভিনেত্রীরাও। যার কারণে ছবিটি সাধারণ দর্শকদের মধ্যেও তুমুল আগ্রহের জন্ম দেয়। আর সে কারণেই দ্বিতীয় সপ্তাহ থেকে নতুন ২৭টি প্রেক্ষাগৃহ সহ মোট ৩১টি প্রেক্ষাগৃহে চলছে ‘হাসিনা’।

বিজ্ঞাপন

প্রথম সপ্তাহে ছবিটি মুক্তি পায় রাজধানীর বসুন্ধরা সিনেপ্লেক্স, যমুনা ব্লকবাস্টার ও মধুমিতা সিনেমা হলে। ঢাকার বাইরে একমাত্র চট্টগ্রামের মিনিপ্লেক্সে চলছে ছবিটি। তবে এবার রাজধানীর বলাকা সিনেমা হল, শাহীন হলসহ দেশের বিভিন্ন জেলা শহরেও মুক্তি পেল ‘হাসিনা’। সামনের সপ্তাহে দর্শক চাহিদা বুঝে আরো হল বাড়ানোর কথাও জানালেন শাওন।

এরআগে ‘হাসিনা’র চাহিদার কথা জানিয়ে গাউসুল আলম শাওন বলেছিলেন, আমরা ভেবেছিলাম যেহেতু ‘হাসিনা’ একটি ডকু-ড্রামা, এবং সিনেমা হলে এমন ধারার ছবি সাধারণত রিলিজই করা হয় না। তাই ছোট পরিসরে চারটি প্রেক্ষাগৃহে আমরা মুক্তি দিয়েছিলাম। কিন্তু চারটি প্রেক্ষাগৃহে ছবি মুক্তি দিয়ে দারুণ সমস্যায় পড়লাম। মানুষ ছবিটি দেখতে হুমড়ি খেয়ে পড়ছে চারটি প্রেক্ষাগৃহেই। আমরা মানুষকে টিকেট দিতে পারছি না। এদিকে ঢাকার বাইরে বিভিন্ন জেলা থেকেও চাপ তৈরি হচ্ছে। সাধারণ দর্শকের মধ্যে প্রবল আগ্রহ দেখতে পাচ্ছি। বিশেষ করে এমপি, মন্ত্রীরা চাইছেন যে ছবিটি তাদের স্থানীয় শহরে কীভাবে নিয়ে যাওয়া যায়।

এদিকে মুক্তির প্রথম সপ্তাহে রাজধানীতে ব্যাপক সাড়া ফেলেছে ‘হাসিনা’। ছবিটি দেখতে রাজধানীর তিনটি প্রেক্ষাগৃহের প্রতিটি শো-ই ছিলো হাউজফুল।

সেপ্টেম্বরের শেষের দিকে সোশ্যাল মিডিয়ায় রীতিমত ভাইরাল হয় ‘হাসিনা: অ্যা ডটারস টেল’-এর ট্রেলার! দুই মিনিট ৪৮ সেকেন্ড ব্যাপ্তির ট্রেলারটি চলচ্চিত্র সংশ্লিষ্ট মানুষ থেকে শুরু করে সংসদ সদস্য, মন্ত্রী ও রাজনীতিকরাও তাদের টুইটার, ফেসবুক আর ইনস্টাগ্রামে শেয়ার করেন! সেদিন থেকেই চলচ্চিত্রটির জন্য দিন গুণছিলেন সবাই।

পিপলু খানের পরিচালনায় ‘হাসিনা’ ডকু-ফিকশনের কাহিনী গড়ে উঠেছে বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জীবনের দুঃখ-বিষাদ, ব্যক্তিগত আখ্যান, আর নৈকট্যের গল্পগুলো নিয়ে। যদিও নির্মাতা বলছেন, এটা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বায়োপিক নয়, বরং এটা বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার গল্প এবং তার বোন শেখ রেহানার গল্প।

দেশব্যাপী যেসব প্রেক্ষাগৃহে চলছে হাসিনা:

Bellow Post-Green View