চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

‘দুই বন্ধুর এমন করুণ মৃত্যু মানা যায় না’

হুমায়ুন কবীর ও মুজিবুর রহমান। সেই বাল্যকাল থেকে একে অন্যের প্রাণের বন্ধু। যেন দুই শরীরের এক আত্মা। ছোটবেলা থেকে তাদের এক সাথে বেড়ে উঠা। পড়াশুনাও তাই, এমনকি চাকরিও করতেন একই অফিসে। কিন্তু করুণ আর মর্মান্তিক মৃত্যুর কাছে হেরে গেলেন তারা।

শনিবার কুমিল্লায় এক সড়ক দুর্ঘটনায় একসঙ্গেই মৃত্যুকে আলিঙ্গন করেছেন হুমায়ুন ও মুজিবুর।

বিজ্ঞাপন

লেখাপড়া শেষ করে এক সঙ্গেই বেসরকারী উন্নয়ন সংস্থা সোসাইটি ফর সোস্যাল সার্ভিস (এসএসএস) এ কর্মজীবন শুরু করেছিলেন তারা।

সেই অফিসের কাজেই শনিবার সকালে নোয়াখালী রওনা হন উপ-পরিচালক (অডিট) মুজিবুর রহমান (৫৩) ও সিনিয়র প্রোগ্রাম ম্যানেজার হুমায়ুন কবীর (৫৩)। দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে কুমিল্লার নিমসারে মর্মান্তিক দুর্ঘটনায় নিহত হন দুজনই।

মুজিবুর রহমানের বাড়ি টাঙ্গাইল সদরের পশ্চিম আকুর টাকুর পাড়া ও হুমায়ুন কবীরের বাড়ি আশেকপুর। মুজিবুরের দুই মেয়ের মধ্যে একজন এ বছর এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নেবে। আরেকজন ষষ্ঠ শ্রেণীতে অধ্যায়নরত।

হুমায়ুনের ছেলে হাসিব মতিয়ার একটি বেসরকারী বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অনার্স শেষ করেছে।

রোববার সরেজমিনে টাঙ্গাইলের আশেকপুরে হুমায়ুন কবীরের বাড়িতে দেখা যায় স্বজনদের আর্তনাদ। পুরো এলাকা জুড়েই শোকের মাতম।

স্থানীয়রা জানান, ব্যক্তি জীবনে খুবই হাসি-খুশী আর সজ্জ্বন মানুষ হিসেবে পরিচিত ছিলেন হুমায়ুন। এলাকাবাসী সুখে-দুখে তাকে পাশে পেতেন।

বিজ্ঞাপন

                          এই পাজেরো জিপেই নোয়াখালী অফিসের কাজে যাচ্ছিলেন হুমায়ুন ও মুজিবুর

মুজিবুর ও হুমায়ুনের বন্ধুরা জানান, একসঙ্গে দুই বন্ধুকে হারানো খুবই বেদনাদায়ক। দুজনের হাসিমাখা মুখ চোখে ভাসছে। এমন করুণ মৃত্যু মেনে নেওয়া যায় না।

দুর্ঘটনার বিষয়ে জানতে চাইতে কুমিল্লা জোনের ময়নামতি হাইওয়ে পুলিশ স্টেশনের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহবুব হোসেন চ্যানেল আই অনলাইনকে বলেন, কুমিল্লার ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের বুড়িচং উপজেলার নিমসারে চট্টগ্রামমুখী প্রাইভেট কার নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে রাস্তার পাশে উল্টে পড়ে যায়। ঘটনাস্থলেই তারা দুজন মারা যান।

দুর্ঘটনার পর আশপাশের মানুষ স্থানীয় হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসকরা দুজনকেই মৃত ঘোষণা করে। তারা জানান, মতিষ্কে রক্তক্ষরণেই দুজনের মৃত্যু হয়েছে।

দুই বন্ধু মুজিবুর ও হুমায়ুনের মৃত্যু শোকের ছায়া নেমে এসেছে তাদের কর্মস্থল সোসাইটি ফর সোস্যাল সার্ভিসে (এসএসএস)।

                                                  দুই বন্ধু পাশাপাশি কবরে শায়িত

বেসরকারী সংস্থাটির নির্বাহী পরিচালক হামিদ ভূইয়া চ্যানেল আই অনলাইনকে বলেন, আমি আমার অফিসের শুধুমাত্র দুজন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা হারাইনি, আমি আমার দুই সন্তানকে হারিয়েছি। তাদের কাছে আমি কৃতজ্ঞ। তাদের দুই পরিবারের জন্য যাবতীয় কাজ আমরা সম্পন্ন করব।

রোববার সকাল আটটায় হাউজিং মাঠে মুজিবুর রহমানের জানাজা এবং সকাল ৯টায় আশেকপুরের জোবায়দা উচ্চ বিদ্যালয়ের মাঠে হুমায়ুন কবীরের জানাজা হয়। পরে টাঙ্গাইলের কেন্দ্রীয় কবরস্থানে পাশাপাশি দুই বন্ধুকে চির নিদ্রায় শায়িত করা হয়।