চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

ডিজিটাল কার পার্কিং ব্যবস্থা পুলিশের জন্য ‘ইনোভেটিভ আইডিয়া’: আইজিপি

আটতলা ডিজিটাল কার পার্কিংয়ের উদ্বোধন করলেন আইজিপি ড. জাবেদ পাটোয়ারী

ডিজিটাল কার পার্কিং ব্যবস্থা পুলিশের জন্য একটি ‘ইনোভেটিভ আইডিয়া’ বলে মন্তব্য করেছেন বাংলাদেশ পুলিশের মহা-পরিদর্শক (আইজিপি) ড. মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী।

মঙ্গলবার রাজধানীর সেগুনবাগিচার আব্দুল গণি রোডস্থ ডিএমপি’র সেন্ট্রাল কমান্ড এন্ড কন্ট্রোল সেন্টারে আটতলা ডিজিটাল কার পার্কিং কার্যক্রম উদ্বোধন করে তিনি এসব কথা বলেন।

আইজিপি বলেন, আমাদের অপ্রতুল জায়গার তুলনায় অধিক গাড়ি হওয়ায় পার্কিং একটি বড় সমস্যা। স্বল্প জায়গায় অধিক কার পার্কিংয়ের লক্ষ্যে ডিজিটাল কার পার্কিং একটি সময়োপযোগী ব্যবস্থা। বিশ্বের অনেক দেশে এমন কার পার্কিং ব্যবস্থা রয়েছে। এখানে পার্কিং করা যাবে ৩৪টি গাড়ি। এটা একটি পরীক্ষামূলক পার্কিং ব্যবস্থা।

তিনি বলেন, এই কার পার্কিং ব্যবস্থা পুলিশের জন্য একটি ইনোভেটিভ আইডিয়া। পরীক্ষামূলক সময়ের মধ্যে কার পার্কিংয়ের সুবিধা-অসুবিধা যাচাই করে মতামতের ভিত্তিতে ভবিষ্যতে আরো ডিজিটাল কার পার্কিং তৈরি করা হবে।

বিজ্ঞাপন

পুলিশ প্রধান বলেন, বাংলাদেশ পুলিশের সক্ষমতা বাড়ার সাথে সাথে গাড়ির সংখ্যাও বাড়ছে। এসব গাড়ি রাখার জন্য ডিজিটাল পার্কিং স্থাপন করা প্রয়োজন। পর্যায়ক্রমে বড় বড় শহরে এ ধরনের পার্কিং স্থাপন করা হবে।

আইজিপি বলেন, ডিজিটাল কার পার্কিং পরিচালনায় অপারেটরদের যথাযথ প্রশিক্ষণ দিতে হবে। যাতে কোন দুর্ঘটনা না ঘটে।

পুলিশ হেডকোয়ার্টার্স জানায়, ৮ তলা বিশিষ্ট এই ডিজিটাল কার পার্কিংয়ে এ ও বি দুইটি ইউনিটে ১৭টি করে মোট ৩৪টি গাড়ি পার্কিং করা যাবে। যেই জায়গায় স্বাভাবিকভাবে ৬টি গাড়ি পার্কিং করা যেত, সেই একই জায়গা ব্যবহার এই ডিজিটাল মাল্টিলেভেল কার পার্কিং তৈরি করে ৩৪টি গাড়ি পার্কিং করা যাবে।

আজিজ এন্ড কোম্পানি লিমিটেডের কারিগরি সহায়তায় এই ডিজিটাল কার পার্কিং প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করেছে পুলিশ হেডকোয়ার্টাসের্র উন্নয়ন শাখা-১। অনুষ্ঠানে ডিএমপি কমিশনার মোঃ আছাদুজ্জামান মিয়া, অতিরিক্ত আইজিপি ড. মো: মইনুর রহমান চৌধুরী, অতিরিক্ত আইজিপি মোহাম্মদ শফিকুল ইসলাম, অতিরিক্তি আইজিপি শাহাব উদ্দীন কোরশেীসহ ঊর্ধ্বতন পুলিশ কর্মকর্তারা এবং নির্মাণকারী প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

বিজ্ঞাপন