চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

টেক্সাসে অ্যাপার্টমেন্ট থেকে ৬ বাংলাদেশির লাশ উদ্ধার

যুক্তরাষ্ট্রের টেক্সাস অঙ্গরাজ্যের ডালাস শহরের একটি অ্যাপার্টমেন্ট থেকে পুলিশ বাংলাদেশি একটি পরিবারের ছয় সদস্যের লাশ উদ্ধার করেছে। স্থানীয় সময় সোমবার সকালে তাদের মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়। পুলিশ ঘটনাটিকে আত্মহত্যা এবং হত্যাকাণ্ড বলে বর্ণনা করছে।

পুলিশ বলছে, নিহতরা অভিবাসী হয়ে বাংলাদেশ থেকে যুক্তরাষ্ট্রে এসেছিলেন। প্রাথমিকভাবে মনে হচ্ছে পরিবারের ছয় সদস্যের মধ্যে দুই জমজ ভাই ফারহান তৌহিদ ও ফারবিন তোহিদ (১৯) তার ভাই তানভির তৌহিদ (২১) সহ অন্য তিন সদস্যকে হত্যা করে এবং তারপর নিজেরা আত্মহত্যা করে।

বিজ্ঞাপন

নিহত সদস্যরা হলেন- আলতাফুন নেসা(৭৭), আইরিন ইসলাম (৫৬), তৌহিদুল ইসলাম (৫৪),তানভির তৌহিদ (২১)। ফারবিন তৌহিদ এবং ফারহান তৌহিদ (১৯)।

অ্যালেন পুলিশ বিভাগ সূত্রে যুক্তরাষ্ট্রের এনবিসি মিডিয়া গ্রুপের টেলিভিশন কেক্সান জানিয়েছে, সোমবার ভোরে অ্যালেনের পিন বাফ ড্রাইভের ১৫০০ ব্লক থেকে লাশগুলো উদ্ধার করা হয়।

ফারহান তৌহিদ
ফারহান তৌহিদ

তবে আত্নহত্যা করার আগে সোশ্যাল মিডিয়ায় ফারহান তৌহিদ সুইসাইড নোট লিখে শেয়ার করেন। পুলিশ ধারণা করছে, হত্যাকাণ্ডটি রোববার ঘটতে পারে। কারণ ফারবিন তৌহিদ কিছুদিন আগেই একটা অস্ত্র কিনেছিল।

নর্থ টেক্সাসের বাংলাদেশ এসোসিয়েশনের সদস্য শাওন আহসান জানান, আমি তৌহিদুল ইসলামের পরিবারকে ১১ বছর ধরে চিনি। সোমবার আমি তার বাসায় অনেকবার ফোন করে পায়নি। পরে এই হত্যার কথা শুনতে পারি। তবে তৌহিদুল ইসলাম তার তিন সন্তান নিয়ে খুব গর্ববোধ করতেন।

এদিকে টেক্সাস অঙ্গরাজ্যের অ্যালান শহরের পুলিশ জানিয়েছে, ওই পরিবারের কোনো এক সদস্য আত্মহত্যা করেছেন বলে তাদের পারিবারিক এক বন্ধু পুলিশকে জানানোর পর তারা ওই বাড়িতে যান।

স্থানীয় সংবাদমাধ্যম দ্য ডালাস মর্নিং নিউজকে পুলিশ সার্জেন্ট জন ফেলতি জানান, ‘ধারণা করা হচ্ছে- ওই পরিবারের দুই ভাই আত্মহত্যা করার ব্যাপারে একমত হন এবং এর আগে তাদের পুরো পরিবারকে মেরে ফেলার সিদ্ধান্ত নেন।’

নিহতদের পরিচয় প্রকাশ করেনি পুলিশ। তবে জানিয়েছে, নিহতদের মধ্যে দু’জন টিনএজ বয়সী ভাই, তাদের এক বোন, তাদের বাবা-মা এবং দাদী রয়েছেন। পুলিশ বলছে, সবচেয়ে কমবয়সী নিহতের বয়স ১৯ বছর।

বিজ্ঞাপন