চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

টুঙ্গিপাড়া ও খুলনায় দুঃস্থদের মাঝে সেনাপ্রধানের শীতবস্ত্র বিতরণ

গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়া এবং খুলনায় অসহায় ও দুঃস্থদের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ করেছেন সেনাপ্রধান জেনারেল এস এম শফিউদ্দিন আহমেদ।

বুধবার ৫ জানুয়ারি সন্ধ্যায় প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের আন্তঃবাহিনী জনসংযোগ পরিদপ্তরের (আইএসপিআর) সহকারী পরিচালক রাশেদুল আলম খানের সই করা এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

এতে আরও বলা হয়, সেনাপ্রধানের নির্দেশে প্রতিবছরের ন্যায় এবছরও শীত মৌসুমে অসহায় ও দরিদ্র শীর্তাত মানুষের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণসহ নানাবিধ জনসেবামূলক কার্যক্রম পরিচালনা করছে সেনাবাহিনী। এরই ধারাবাহিকতায় ৫৫ পদাতিক ডিভিশনের শীতকালীন প্রশিক্ষণ পরিদর্শন শেষে টুঙ্গিপাড়া উপজেলা কমপ্লেক্স সংলগ্ন মাঠে সেনাপ্রধান স্থানীয় হতদরিদ্র এক হাজার ৫০০ মানুষের মাঝে কম্বল বিতরণ করেন।

এর আগে সকাল ১০ টায় খুলনার শেখ আবু নাসের স্টেডিয়ামে প্রায় ছয় হাজার অসহায় ও দুঃস্থ মানুষের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ করেন।

সেখানে সেনাবাহিনী প্রধান বলেন, শীতবস্ত্র বিতরণ ছাড়াও সেনাবাহিনীর মেডিকেল টিম বিনামূল্যে মানুষের স্বাস্থ্যসেবা প্রদান করছে। বাংলাদেশ সেনাবাহিনী দেশমাতৃকার সেবায় সর্বদা নিয়োজিত রয়েছে। যেকোন দুর্যোগ পরিস্থিতি মোকাবেলায় এবং দেশের সকল প্রয়োজনে বাংলাদেশ সেনাবাহিনী সাধারণ মানুষের পাশে থেকে দেশ গঠনে তাদের নিরলস প্রচেষ্টা অব্যাহত রাখবে।

তিনি আরও বলেন, ভবিষ্যতেও বাংলাদেশ সেনাবাহিনী এ ধরণের জনসেবামূলক কর্মকাণ্ড অব্যাহত রাখবে ।

বিজ্ঞাপন

এর আগে সকালে সেনাবাহিনী প্রধান খুলনার জাহানাবাদ সেনানিবাসে অন্যান্য পদবীর সৈনিকদের পারিবারিক বাসস্থানের জন্য ১১২টি ফ্ল্যাট সম্পন্ন ১৫ তলা ভবন ‘সেনানীড়’এর ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন। ৬৭ কাঠার উপরে নির্মিত এই ভবনে প্রতিটি ফ্লোরে ০৮টি ইউনিটসহ ৮৩৫ বর্গফুট এর সর্বমোট ১১২টি ফ্ল্যাট রয়েছে।

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে ‘‘মুজিব বর্ষ” উদযাপন এবং স্বাধীনতা ও সেনাবাহিনীর সুবর্ণ জয়ন্তীর এই মাহেন্দ্রক্ষণে জাহানাবাদ সেনানিবাসে অন্যান্য পদবীর সৈনিকদের জন্য সেনানীড় বাসস্থান নির্মাণের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়।

আর্মি ওয়েল ফেয়ার ট্রাষ্টের প্রায় সকল সেনানিবাসে ‘সেনানীড়’ প্রকল্পের কাজ হাতে নেয়া হয়েছে। পর্যায়ক্রমে বিভিন্ন সেনানিবাসে সর্বমোট ১৫টি সেনানীড় আবাসন এর নির্মাণ কার্যক্রম শুরু করা হয় যার মধ্যে ০৭টির নির্মাণ কাজ সম্পন্ন হয়েছে এবং বাকি ০৮টির নির্মাণ কাজ চলমান রয়েছে। এই আবাসন গুলোতে বর্তমানে ৯৫৮টি পরিবার বসবাস করে সুফল ভোগ করছেন।

সেনাপ্রধান এস এম শফিউদ্দিন আহমেদ গতকাল মঙ্গলবার ৪ জানুয়ারি ৫৫ পদাতিক ডিভিশনের শীতকালীন প্রশিক্ষণ পরিদর্শন করেন এবং একই সাথে নড়াইল জেলার লোহাগড়ায় হতদরিদ্র মানুষের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ করেন।

এছাড়া গতকাল তিনি বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর সুপারভিশনে মধুমতি নদীর উপর নির্মিতব্য রেল সেতু প্রজেক্ট পরিদর্শন করেন।

বিজ্ঞাপন