চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

চট্টগ্রামের মেগাপ্রকল্প এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ের গার্ডার স্থাপন শুরু

চট্টগ্রাম মহানগরীর যানজট নিরসন এবং যাতায়াত ব্যবস্থায় বৈপ্লবিক পরিবর্তন আনতে বহুল প্রত্যাশিত এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ের গার্ডার স্থাপনের কাজ শুরু হয়েছে।

বৃহস্পতিবার রাত ২টায় এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ের পতেঙ্গা অংশ থেকে স্থাপিত পিলারের উপর প্রথম গার্ডার স্থাপনের মধ্য দিয়ে শুরু হয় সাড়ে ৩ হাজার গার্ডার স্থাপনের কাজ।

বিজ্ঞাপন

আনুষ্ঠানিকভাবে গার্ডার স্থাপনের কার্জক্রমের উদ্বোধন করেন প্রকল্প বাস্তবায়নকারী সংস্থা চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (সিডিএ) এর চেয়ারম্যান এম জহিরুল আলম দোভাষ।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

এসময় তিনি বলেন, স্বপ্নের এ এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে প্রকল্প বাস্তবায়িত হলে চট্টগ্রাম মহানগরীতে যানজট নিরসনে এবং যান চলাচলের ক্ষেত্রে অভাবনীয় পরিবর্তন আসবে। এ ফ্লাইওভারের মাধ্যমে বিমানবন্দর থেকে শহরমুখি এবং শহর থেকে বিমানবন্দরমুখি মানুষ মাত্র ১৫-২০মিনিটে আসা যাওয়া করতে পারবে।

এ মেগাপ্রকল্পের আওতায় সমুদ্র সৈকত সল্টগোলা ক্রসিং পর্যন্ত আট কিলোমিটার সড়কে সর্বমোট ২শটি পিলার স্থাপিত হচ্ছে। ইতোমধ্যে ১শ ২৫টি পিলারের কাজ শেষ হয়েছে। এ পিলারগুলোর উপর প্রতিদিন ৬থেকে ৮টি গার্ডার স্থাপন করা হবে। বর্তমানে সিমেন্ট ক্রসিং থেকে সল্টগোলা ক্রসিং পর্যন্ত দ্বিতীয় পর্যায়ের কাজ চলছে। এ দুটি অংশে এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে আট কিলোমিটার নির্মিত হবে। তৃতীয় অংশে সল্টগোলা ক্রসিং থেকে বারিক বিল্ডিং মোড় এবং চতুর্থ অংশে বারিক বিল্ডিং মোড় থেকে লালখান বাজার পর্যন্ত নির্মাণ করা হবে।

চট্টগ্রাম মহানগরীর লালখান বাজার থেকে শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমান বন্দরের নিকটস্থ বঙ্গবন্ধু টানেল রোড পর্যন্ত ১৬ কিলোমিটার দীর্ঘ এ এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে ২০১৭ সালের ১১ জুলাই একনেকে অনুমোদন দেয়া হয়। ২০২১সালে এ প্রকল্পের মেয়াদ শেষ হওয়ার কথা রয়েছে।