চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

ঘৃণা ছড়ানোর দায়ে টুইটারে নিষিদ্ধ কঙ্গনা

পশ্চিমবঙ্গে বিধানসভার ভোট নিয়ে একের পর এক উস্কানিমূলক মন্তব্যের জেরে আজীবনের মতো কঙ্গনার টুইটার নিষিদ্ধ করলো টুইটার কর্তৃপক্ষ। তবে তাতেও কাজ হচ্ছে না, অন্য প্লাটফর্ম থেকে চলছে কঙ্গনার উস্কানি।

টুইটার নিষিদ্ধ হওয়ার পর ইনস্টাগ্রাম থেকে এক ভিডিও বার্তায় কান্নাভেজা কণ্ঠে বলেন, ‘বন্ধুরা আমরা দেখছি, বাংলা থেকে লাগাতার ভিডিও, ছবি উঠে আসছে। যেখানে দেখা যাচ্ছে হিংসার নিদর্শন। মানুষর ঘরবাড়ি জ্বালানো হচ্ছে, গণধর্ষণ-খুন হচ্ছে। অথচ কোনও মুক্তমনা মুখ খুলছে না’।

বিজ্ঞাপন

এরপর একাধিক দেশীয় ও আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমকে নিয়ে তোপ দাগেন কঙ্গনা। বলেন, ‘আমি বুঝতে পারছি না আমাদের দেশ নিয়ে কী ষড়যন্ত্র এরা করছেন। হিন্দুদের রক্তের কী কোনও মূল্য নেই!’

টুইটারের এক মুখপাত্র কঙ্গনার অ্যাকাউন্ট নিষিদ্ধ হওয়া নিয়ে ভারতীয় সংবাদ মাধ্যমকে জানিয়েছেন, ‘আমরা বারবার জানিয়েছি কোনও অ্যাকাউন্টের মাধ্যমে অনলাইনে অশান্তির বাতাবরণ সৃষ্টি করা হলে আমরা কঠোর পদক্ষেপ নেব। এই অ্যাকাউন্টটি একেবারে বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে আমাদের হেটফুল কনডাক্ট (ঘৃণা ছড়ানো) পলিসি ও অ্যাবিউসিভ বিহেবিয়ার (খারাপ ব্যবহার) পলিসি না মানার জন্য। আমরা নিশ্চিত করতে চাই টুইটারের সব ব্য়বহারকারীদের জন্যই এক নিয়ম মেনে চলি আমরা।’

মূলত রবিবার থেকেই টুইটারে মমতা ও পশ্চিমবঙ্গ নিয়ে একের পর এক বাজে মন্তব্য করে যাচ্ছিলেন কঙ্গনা।

বিজ্ঞাপন