চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

গুগলে বড় পরিবর্তনে ক্ষতির আশঙ্কায় লাখো ওয়েবসাইট

২১এপ্রিল ২০১৫। তারিখটায় কোন বিশেষত্ব না থাকলেও তারিখটি বিশেষ ইন্টারনেটের সার্চ জায়ান্ট গুগল আর বিশ্বের লাখো গুরুত্বপূর্ণ ওয়েবসাইটের জন্য। কারণ এ দিন থেকে মোবাইলে গুগল সার্চের ফল কেমন দেখা যাবে, তাতে বড় পরিবর্তন আসতে যাচ্ছে।

গুগলের নতুন সিদ্ধান্ত মতে, যেসব ওয়েবসাইট মোবাইলে ঠিক মতো দেখা যায় না, সেগুলো সার্চ রেজাল্টে পিছিয়ে দেয়া হবে। অর্থাৎ, একজন মোবাইল ব্যবহারকারী কোনো কিছু লিখে গুগলে সার্চ করলে মোবাইল উপযোগী সাইটগুলোর ফল শুরুর দিকে দেখতে পাবেন। লেখা ছোট, জুম করে দেখতে হয় অথবা লিংক এতোটাই ছোট দেখায় যে টাচ স্ক্রিনে আঙ্গুল দিয়ে সহজে স্পর্শকরা যায় না – এমন ওয়েবসাইটকেই মোবাইল সহায়ক ওয়েবসাইটের তালিকা থেকে বাদ দেবে গুগল।

Advertisement

গুগলের এমন সিদ্ধান্তে রীতিমতো আতঙ্কে বিশ্বের অনেক বড় প্রতিষ্ঠান এবং তাদের ওয়েবসাইট। কেননা গুগলের বেঁধে দেয়া শর্ত মেনে এখনো শীর্ষ ওয়েবসাইটগুলোর ৪০শতাংশই মোবাইল সংস্করণ চালু করেনি। সার্চ রেজাল্ট পেইজে পিছিয়ে যাওয়ার আশঙ্কায় অনেক প্রতিষ্ঠানই তড়িঘড়ি করে তাদের ওয়েবসাইট পরিবর্তন করছে। এমন প্রতিষ্ঠানগুলো গুগলের সিদ্ধান্তকে অনেকটা ‘শাস্তি’ হিসেবেই দেখছে। তবে গুগলও যে সম্পূর্ণ নিজের ইচ্ছেতে এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছে তা নয়।

 

সম্প্রতি ইউরোপীয় ইউনিয়ন অভিযোগ আনে, অনলাইনে পণ্যের দাম তুলনা করার সার্ভিস ‘গুগল শপিং’-কে ব্যবসায়িক সুবিধা দিতে সার্চ রেজাল্টের ওপর রাখছে গুগল। ইইউ এর অভিযোগের এক সপ্তাহেরও কমসময়ের মধ্যে সার্চে এই পরিবর্তন আনলো গুগল। অনলাইন বিশ্লেষকরা বলছেন, গুগল পণ্যের দাম তুলনা করার সার্ভিসগুলোর জন্য সমান ক্ষেত্র তৈরি করছে আপাতদৃষ্টিতে এমনটা মনে হলেও, প্রকৃতপক্ষে এতে গুগলের কোনো ক্ষতি হবে না। কেননা গুগলের প্রতিটি সেবাই গুগলের নতুন শর্ত পূরণ করে। ক্ষতি হবে তাদের, যারা এখনো গুগলের পরিবর্তনে নিজেদের মানিয়ে নেয়নি। গুগলের মত, সার্চ রেজাল্টে পরিবর্তনে শেষ পর্যন্ত লাভবান হবেন অনলাইন ক্রেতা ও মোবাইল ব্যবহারকারীরা। এতে করে বড় প্রতিষ্ঠানও অনলাইন সেবাগুলো তাদের ওয়েবসাইট মোবাইল উপযোগী করে গড়ে তুলবেন, আশা গুগলের।

অনেক ওয়েবসাইট প্রভাবিত হয় বলে গুগল সার্চে পরিবর্তন কোনো নিয়মিত ঘটনা নয়। শেষ ২০১২-তে গুগল তার সার্চ সেবায় পরিবর্তন এনেছিলো। সেইবার আন্তর্জাতিক চাপের মুখের বিভ্রান্তিকর ওয়েবসাইটগুলোকে (অন্য ওয়েবসাইট মনে করে ব্যবহারকারী ভুলে ক্লিক করতে পারেন এমন) সার্চ রেজাল্ট থেকে বাদ দেয়া হয়। তবে এবারের পরিবর্তনকে বড় করে দেখার কারণ এটি মোবাইল ব্যবহারকারীদের উদ্দেশ্য করে আনা পরিবর্তন। ইন্টারনেট ব্যবহারকারীদের ৬০ শতাংশই বর্তমানে মোবাইল থেকে ইন্টারনেট ব্রাউজকরেন। অনলাইনে কোনো কিছু কেনার আগেও ব্যবহারকারীর মোবাইল থেকে দামও পণ্যের খুঁটিনাটি যাচাই করে নেন। অতীতের দিনগুলোর মতো ভবিষ্যতেও গুগলের সার্চ রেজাল্ট অনলাইন ক্রেতাদের প্রভাবিত করবে- তাতে সন্দেহ নেই।