চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

কাঠমান্ডুতে খোলা আকাশের নীচে হাজারো মানুষ

পর পর ২ দিন শক্তিশালী মাত্রায় ভূমিকম্পের পর রাতে আবারো দফায় দফায় কেঁপে উঠেছে নেপাল। কাঠমান্ডু শহরের বেশিরভাগ এলাকাই লণ্ডভণ্ড। খাবার আর পানির অভাবে দেখা দিয়েছে মানবিক বিপর্যয়। স্থানীয়রা বলছেন, পরিস্থিতি সামাল দিতে অনেক সময় লাগবে।

Advertisement

কাঠমান্ডুর পুলচক এলাকার ললিতপুর মাঠে তাঁবু গেড়ে বসবাস করছেন হাজারো গৃহহীণ মানুষ। এদের মধ্যে সব চেয়ে বেশি অসহায় নারী ও শিশুরা। নেপালের একটি কলেজের ব্যবস্থাপনা বিভাগের একজন ছাত্রী বলেন, সবকিছু শেষ হয়ে গেছে তাদের।

শিশুসন্তান আর পরিবারের অন্য সদস্যদের নিয়ে গত কয়েক দিন ধরে খুব সামান্য খেয়েই বেঁচে আছেন অসংখ্য মানুষ। তারা বলছেন, এমন পরিস্থিতি স্থানীয় প্রশাসনও নেই তাদের সঙ্গে। সরকারের প্রতি তাদের অনেক ক্ষোভ।

তাদের একজন বলেন, এখানে খাবার, ওষুধ, পানি নেই। কখন কী হয়ে যায় সেই ভয়ে আমাদের সবাই ভীত। আমাদের মধ্যে কিছু করার শক্তি অবশিষ্ট নেই।

ক্ষতিগ্রস্তরা আরো বলেন, কয়েকদিন ধরে কোথাও বিদ্যুৎ নেই। বেশিরভাগ স্থানীয়রা বলেন, সরকার এখন পর্যন্ত তাদের দেখতে আসেনি।

ধ্বংসের ভয়াবহতায় অনেকেই অসুস্থ্য হয়ে পড়েছে। যাদের তাঁবুতে থাকার জায়গা হচ্ছে না তারা থাকছেন রাস্তা বা ফুটপাতে।

নেপালে ৮১ বছরের মধ্যে অন্যতম শক্তিশালী ভূমিকম্পে মৃতের সংখ্যা প্রায় ৪ হাজার ছাড়িয়েছে। ধ্বংসস্তূপের নিচে এখনো চাপা পড়ে থাকা মানুষের সন্ধানে অভিযান চালাচ্ছেন নেপালের সেনাবাহিনীসহ বিভিন্ন অান্তর্জাতিক সংস্থা।

নেপালে জরুরি ত্রাণ সহায়তা দেওয়ার জন্য বিশ্ববাসীর প্রতি আহ্বান জানিয়েছে জাতিসংঘ ।