চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

করোনায় বিখ্যাত নির্মাতা কিম কি দুকের মৃত্যু

করোনায় মারা গেলেন পৃথিবী খ্যাত চলচ্চিত্র নির্মাতা কিম কি দুক। উত্তর-পূর্ব ইউরোপে বাল্টিক সাগরের পূর্ব তীরে লিথুয়ানিয়া ও এস্তোনিয়ার মধ্যস্থলে অবস্থিত লাতভিয়ার একটি হাসপাতালে  শুক্রবার (১১ ডিসেম্বর) মৃত্যু হয় তার।

এমন খবরই প্রকাশ করেছে লাতভিয়ার ডেলফি নিউজ পোর্টাল। সংবাদে বলা হয়, গত ২০ নভেম্বর নিজ দেশ দক্ষিণ কোরিয়া থেকে লাতভিয়ায় আসেন কিম কি দুক। উদ্দেশ্য ছিলো দেশটির রাজধানী রিগার সাগর তীরবর্তী এলাকায় একটি বাড়ি কেনা।

বিজ্ঞাপন

কিন্তু বাড়ি কেনার নির্ধারিত মিটিংয়ের দিনে কিমের অনুপস্থিতি দেখে সহকর্মীরা চিন্তিত হয়ে পড়েন। তখন তারা কিম এর খোঁজ করতে শুরু করেন হাসপাতালগুলোতে।

পরে জানা যায়, করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি আছেন কিম। সেখানেই শুক্রবার তার মৃত্যু হয়। তবে লাতভিয়ায় অবস্থিত দক্ষিণ কোরিয়ার অ্যাম্বাসি থেকে কিমের মৃত্যু নিয়ে এখনও কিছু জানায়নি।

সমকালীন পৃথিবীতে যে ক’জন নির্মাতা দাপটের সঙ্গে চলচ্চিত্র নির্মাণ করে আসছেন, তাদের মধ্যে সবার আগে যে নামটি চলে আসে তিনি দক্ষিণ কোরিয়ান নির্মাতা কিম কি দুক।

১৯৬০ সালের ২০ ডিসেম্বর জন্ম নেয়া বিখ্যাত এই নির্মাতার প্রথম কাজ ‘ক্রোকোডাইল’। স্বল্প বাজেটের চলচ্চিত্র দিয়েই তার হাতেখড়ি। এরপর একে একে নির্মাণ করেন রিয়েল ফিকশন, বেড গাই, দ্য কোস্ট গার্ড, স্প্রিং সামার ফল উইন্টার… এন্ড স্প্রিং, থ্রি আইরন, সামারিটান গার্ল, দ্য বো, ড্রিম, আরিরাং, পিয়েতা এবং আমেন এর মতো পৃথিবী বিখ্যাত সব সিনেমা।

তার নির্মিত সিনেমাগুলো মস্কো, বার্লিন, ভেনিস ও কান চলচ্চিত্র উৎসবের মতো সবচেয়ে দাপটে উৎসবগুলোতে নিয়মিত প্রতিযোগিতা করে এবং সম্মান বয়ে আনে। ষাট বছর বয়সী এই নির্মাতার হাত ধরেই কোরিয়ান সিনেমা বিশ্ব দরবারে পরিচিতি পায়।