চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

করোনাভাইরাস: আক্রান্তদের ৭৩ শতাংশই ঢাকা বিভাগের

আক্রান্ত ৫৫টি জেলা, সংক্রমিত হয়নি ৯টি জেলা

গত ২৪ ঘণ্টায় শনাক্ত ৩৯০ জনসহ দেশে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত তিন হাজার ৭৭২ জন, তাদের মধ্যে ৭৩ শতাংশই ঢাকা বিভাগের বলে জানিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদফতর।

বুধবার দুপুরে স্বাস্থ্য অধিদফতরের করোনা ভাইরাস সংক্রান্ত নিয়মিত হেলথ বুলেটিনে এ তথ্য জানান স্বাস্থ্য অধিদফতরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

ডা. নাসিমা বলেন, ‘৬৪ জেলার মধ্যে ৫৫টি জেলায় করোনা আক্রান্ত রোগী পাওয়া গেছে। তবে ঢাকা মহানগরী ও বিভাগে অনেক বেশি করোনা আক্রান্ত রোগী রয়েছেন। আক্রান্তদের মধ্যে ৭৩ শতাংশই ঢাকা বিভাগের। এর অর্ধেক প্রায় ঢাকা মহানগরীতে এবং বাকি অর্ধেক ঢাকার অন্যান্য জেলায়।’

নাসিমা সুলতানা আরও বলেন, ‘নারায়ণগঞ্জে এখন পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছেন মোট ৪৯২ জন। যার মধ্যে সিটি করপোরেশনের আছে ৩৬৪ জন। নারায়ণগঞ্জে এ পর্যন্ত মারা গেছেন ৩৫ জন। সুস্থ হয়েছেন ১৬ জন। নারায়ণগঞ্জে মোট কোয়ারেন্টাইনে আছেন ৬৮১ জন। এরমধ্যে ৫৯৮ জন কোয়ারেন্টাইন মুক্ত হয়েছেন। নারায়ণগঞ্জের পর রয়েছে গাজীপুর। এরপরে কিশোরগঞ্জ ও নরসিংদী জেলা।’

বিজ্ঞাপন

তিনি বলেন, গত ২৪ ঘণ্টায় আইসোলেশনে নেয়া হয়েছে ১৫০ জনকে। বর্তমানে মোট আইসোলেশনে আছেন ৯০০ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় আইসোলেশন থেকে ছাড় পেয়েছেন ১৫ জন। এ পর্যন্ত ছাড় পেয়েছেন ৫৯৪ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় হোম কোয়ারেন্টাইনে নেয়া হয়েছে তিন হাজার ২৪০ জনকে। এ পর্যন্ত হোম কোয়ারেন্টাইনে নেয়া হয়েছে এক লাখ ৫৭ হাজার ৩৪ জনকে। গত ২৪ ঘণ্টায় প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইনে নেয়া হয়েছে ৩২৭ জনকে। এ পর্যন্ত প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইনে নেয়া হয়েছে সাত হাজার ৩৩৯ জনকে। গত ২৪ ঘণ্টায় মোট কোয়ারেন্টাইনে নেয়া হয়েছে তিন হাজার ৫৬৭ জনকে এবং এ পর্যন্ত নেয়া হয়েছে এক লাখ ৬৪ হাজার ৩৭৩ জনকে। গত ২৪ ঘণ্টায় হোম কোয়ারেন্টাইন থেকে ছাড়পত্র পেয়েছেন তিন হাজার ১৭২ জন এবং এ পর্যন্ত মোট ছাড়পত্র পেয়েছেন ৮০ হাজার ১৭৬ জন।

চীনের উহান থেকে ছড়িয়ে পড়া করোনাভাইরাসে বিশ্বের ২১০টি দেশ ও অঞ্চলে এখন পর্যন্ত প্রায় ২৫ লাখের বেশি মানুষ আক্রান্ত হয়েছেন। এদের মধ্যে মারা গেছেন এক লাখ ৭৭ হাজার ৭৭৫ জন। তবে সুস্থ হয়ে ঘরে ফিরেছেন প্রায় সাত লাখ মানুষ।

করোনাভাইরাসের বিস্তার ঠেকাতে সাধারণ ছুটি ঘোষণা করে সরকার। দেশবাসীকে নিজ বাড়িতে থাকার আহ্বান জানানো হয়।

ছুটির সময়ে অফিস-আদালত থেকে গণপরিবহন, সব বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। তবে কাঁচাবাজার, খাবার, ওষুধের দোকান, হাসপাতাল, জরুরি সেবা এই বন্ধের বাইরে থাকছে। জনগণকে ঘরে রাখার জন্য মোতায়েন রয়েছে সশস্ত্র বাহিনীও।