চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

করোনাভাইরাসের দ্বিতীয় ধাক্কা ঠেকাতে কঠোর অবস্থানে সরকার

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে বিদেশ ফেরতদের বিষয়ে কঠোর অবস্থানে সরকার। কোভিডের দ্বিতীয় ধাক্কা সামলানোর লক্ষ্যে পররাষ্ট্র সচিবের নেতৃত্বে ৫ সদস্যের কমিটি গঠনের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম।

রোববার আন্ত:মন্ত্রণালয় বৈঠক শেষে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী এ তথ্য জানান।

বিজ্ঞাপন

পররাষ্ট্র সচিবের নেতৃত্বে ৫ সদস্যের ওই কমিটি বিশ্ব করোনা পরিস্থিতি নজরদারির পাশাপাশি বিদেশ ফেরতদের স্বাস্থ্যবিধি পর্যবেক্ষণ করবে।  করোনার প্রস্তুতিমূলক ওই ভার্চুয়াল সভার সভাপতিত্ব করেন পররাষ্ট্র মন্ত্রী ডক্টর এ কে আব্দুল মোমেন।

অন্যদিকে রোববার স্বাস্থ্যমন্ত্রণালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেন, করোনার দ্বিতীয় ঢেউ মোকাবেলায় সারাদেশে চিকিৎসক-নার্সদের প্রস্তুত থাকার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। যেসব হাসপাতালে কারোনা চিকিৎসা হতো তা অব্যাহত থাকবে বলেও জানান তিনি।

বিজ্ঞাপন

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, বিশ্বের বিভিন্ন দেশে করোনার দ্বিতীয় ওয়েভ দেখা দেয়ায় সরকারের পক্ষ থেকেও প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে। সারাদেশে প্রশিক্ষিত চিকিৎমক ও নার্সদের সংখ্যা বাড়ানো হবে।  মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। ভ্যাকসিন যাতে আগে পাওয়া যায় সেজন্য শিগগিরিই এমওইউ সই করবে সরকার।

দেশে এখন পর্যন্ত (১ নভেম্বর) মোট করোনা আক্রান্ত ৪ লাখ ৯ হাজার ২৫২ জন। পুরুষ ৪ হাজার ৫৬৮ জন মারা গেছেন এবং ১ হাজার ৩৭৩ জন নারী মৃত্যুবরণ করেছেন।

চীন থেকে ছড়িয়ে পড়া করোনাভাইরাসে বিশ্বের ২১৫টি দেশ ও অঞ্চলে এখন পর্যন্ত ৪ কোটি ৬৪ লাখেরও বেশি মানুষ আক্রান্ত হয়েছেন। এদের মধ্যে মারা গেছেন ১২ লাখের বেশি মানুষ। তবে সুস্থ হয়ে ঘরে ফিরেছেন ৩ কোটি ৩৫ লাখের বেশি।

করোনাভাইরাসের বিস্তার ঠেকাতে প্রথমে ২৬ মার্চ থেকে ৪ এপ্রিল পর্যন্ত সাধারণ ছুটি ঘোষণা করে সরকার। পরে বিভিন্ন মেয়াদে ছুটি বাড়িয়ে সর্বশেষ ৩০ মে পর্যন্ত সাধারণ ছুটি ছিল। দেশের ইতিহাসে দীর্ঘ এ ছুটির পর স্বাস্থ্যবিধি মেনে ৩১ মে থেকে অফিস-আদালত খোলা হয়েছে। এছাড়াও স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলছে গণপরিবহনও।