চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

‘কটরেল স্যালুটে’ মজেছে ইংল্যান্ড

ওয়েস্ট ইন্ডিজ বিশ্বকাপ থেকে ছিটকে যাওয়ার মুখে, কিন্তু তিনি নন। বরং এই বিশ্বকাপে ক্যারিবীয়ান ক্রিকেট ঐতিহ্যের প্রতিনিধি হিসেবে উঠে এসেছেন জামাইকার বাঁহাতি পেসার শেলডন কটরেল। উইকেট পাওয়ার পর তার স্যালুট সেলিব্রেশন এবং তারপর দুই হাত দু’দিকে ছড়িয়ে দেয়া বিশ্বকাপে সুপারহিট। শুধু কটরেল বা উইন্ডিজ নয়, তার বিখ্যাত স্যালুটে মজে আছে বিশ্বকাপের স্বাগতিক দেশ ইংল্যান্ডও।

উইকেট নিয়েই তিনি দর্শকদের দিকে ঘুরে একেবারে মিলিটারি কায়দায় স্যালুট করেন তিনি। মূলত সেনাবাহিনীকে সম্মান জানিয়েই এই সেলিব্রেশন কটরেলের। যিনি বিশ্বকাপের প্রায় প্রতি ম্যাচে ওয়েস্ট ইন্ডিয়ান ক্রিকেট ঘরানাকে তুলে ধরেছেন। এর পেছনে কাহিনী অবশ্য আগেই কটরেল জানিয়েছেন।

বিজ্ঞাপন

তিনি পেশায় সেনাকর্মী। জামাইকান প্রতিরক্ষা বাহিনীর একজন সদস্য। বাহিনীর প্রতি শ্রদ্ধা প্রদর্শনেই তিনি উইকেট নেয়ার পর ওই মিলিটারি স্টাইলে স্যালুট করে থাকেন। উইকেট নিয়ে স্যালুট করতে তার কখনো ভুল হয় না বলে জানান। সেনাবাহিনীতে ট্রেনিং চলার সময় ছয়মাস তিনি অভ্যাস করেছিলেন ওই স্যালুট করা।

আইসিসি বিশ্বকাপ চলাকালীন মূল প্রতিযোগিতার পাশাপাশি আরও নানান আনুষঙ্গিক ইভেন্ট চালাচ্ছে আইসিসি। বাচ্চাদের জন্য কোচিং ক্যাম্প করা হচ্ছে, নাম দেয়া হয়েছে ‘ক্রিকেট ফর গুড’। নটিংহামে সম্প্রতি ক্যারিবীয়ান ক্রিকেটাররা এরকমই এক ক্যাম্পে গিয়েছিলেন, সেখানে গিয়েও বাচ্চাদের অভিনব ওই সেলিব্রেশন শেখান কটরেল।

দুদিন আগে ম্যানচেস্টারের রাস্তায় দুটি বাচ্চা ছেলে-মেয়ের একইভাবে কটরেলকে নকল করে স্যালুটের ভিডিও ইংল্যান্ডে ভাইরাল এবং সেদেশের ট্যাবলয়েডগুলো সবাই তা নিয়ে প্রতিবেদন বের করেছে। এখন এই সেলিব্রেশনের নাম হয়ে গেছে, ‘কটরেল স্যালুট।’

এই ঘটনার পর কটরেলের দিকে প্রশ্ন আসে, ‘আপনি কি ওই দু’জন বাচ্চাকে পেছনে কটরেল লেখা ওয়েস্ট ইন্ডিজের জার্সি উপহার দিতে চান?’ সঙ্গে সঙ্গে কটরেল জানান, জার্সি তো দেবেনই, সঙ্গে ওই খুদেদেরকে ভারতের সঙ্গে ম্যাচে মাঠেও আমন্ত্রণ জানাবেন।

নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে আগের ম্যাচে ৫৬ রান দিয়ে ৪ উইকেট, সঙ্গে দুটি ক্যাচ নেন। তবে দল জেতেনি। এই বিশ্বকাপে ৯ উইকেট কটরেলের। নয়বারই দেখা গেছে ওই বিখ্যাত স্যালুট।

বিজ্ঞাপন

এই বিশ্বকাপের আগে টুইটারে তার ফলোয়ারের সংখ্যা ছিল মাত্র ৯০৪। যা দেখে একজন প্রশ্ন করেছিলেন, ‘আপনার ভক্তসংখ্যা টুইটারে এত কম কেন?’

কটরেলের উত্তরটাও তার স্যালুটের মতো সুপারহিট। তিনি পাল্টা লেখেন, ‘বিকজ মাই স্কিলস আর বেটার অন দ্য ফিল্ড দ্যান ইন টু এইট্টি ক্যারেকটার্স।’ অর্থাৎ মাঠে আমার স্কিল টুইটারের ২৮০ শব্দের চেয়ে অনেক ভালো। এই টুইটের পরে তার ভক্তসংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৬৪২৬।

এই বিশ্বকাপে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে ওয়েস্ট ইন্ডিজের প্রথম ম্যাচে নটিংহ্যামে তার বাঁহাতি পেস চমকে দিয়েছিল। সাউথ আফ্রিকার বিরুদ্ধে ওয়েস্ট ইন্ডিজের যে ম্যাচ বৃষ্টিতে ভেস্তে যায়, সেখানেও শুরুতে হাশিম আমলা সহ পরপর দুটি উইকেট নিয়ে প্রোটিয়াদের চাপে ফেলে দিয়েছিলেন কটরেল।

ওয়েস্ট ইন্ডিজের পরের ম্যাচ বৃহস্পতিবার। ম্যানচেস্টারের ওল্ড ট্রাফোর্ডে ক্যারিবীয়দের প্রতিপক্ষ বিশ্বকাপের এখন পর্যন্ত অপরাজিত ভারত। ওই ম্যাচে ‘কটরেল স্যালুট’ দেখার অপেক্ষায় ভক্তরা।

দুই খুদে ভক্তের ‘কটরেল স্যালুট’-