চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

এমন কিছু হবে যা আগে কেউ ভাবেনি

নতুন ওয়েব ফিল্ম ‘খাঁচার ভেতর অচিন পাখি’ নিয়ে রায়হান রাফী

যেটা বলতে চাই বা প্রতিবাদ জানাতে চাই সেটা কাজের মাধ্যমে বলি: রায়হান রাফী

দেশীয় ভিডিও স্ট্রিমিং প্লাটফর্ম চরকি-তে বৃহস্পতিবার রাতে মুক্তি পাচ্ছে জনপ্রিয় নির্মাতা রায়হান রাফীর ওয়েব ফিল্ম ‘খাঁচার ভেতর অচিন পাখি’।

এতে অভিনয় করেন ফজলুর রহমান বাবু, সুমন আনোয়ার, তমা মির্জা, নাসির উদ্দিন প্রমুখ। ‘পোড়ামন ২’, ‘দহন’, ‘জানোয়ার’ নির্মাণ করে আগেই নির্মাতা হিসেবে রাফী নিজেকে প্রমাণ করেছেন। এবার তিনি নতুন মোড়কের গল্পে ‘খাঁচার ভেতর অচিন পাখি’র বানালেন। সিনেমা ও অন্যান্য প্রসঙ্গ নিয়ে রায়হান রাফী কথা বললেন চ্যানেল আই অনলাইনের সাথে…

‘খাঁচার ভেতর অচিন পাখি’ কেমন ফিল্ম? এটি নিয়ে একটু বলুন…
একজন রাজনৈতিক ব্যক্তি আরেকজন সাধারণ মানুষ; গল্পটা মূলত এই দুজনের। ঘটনাক্রমে তারা দুজন এক জায়গায় আসে। তাদের দুজনের গল্প থেকে অনেকগুলো গল্প বের হবে। ট্রেলার এবং পোস্টারে বেশী কিছু প্রকাশ করিনি। এরপরেও প্রচুর মানুষ পর্যালোচনা করছেন গল্প নিয়ে। কিন্তু আমার বিশ্বাস পুরোটা দেখার পর সবার ধারণা পাল্টে যাবে। এতটুকু ইঙ্গিত দিতে পারি, এমন কিছু হবে যা আগে কেউ ভাবেনি।

আপনার সিনেমার গল্পে চারপাশের ট্রু ইনসিডেন্টগুলো উঠে আসে। ‘খাঁচার ভেতর অচিন পাখি’তে এমন থাকছে?
অবশ্যই কিছু থাকবে। কঠিন কিছু আছে। এটা আমি অনেকদিন ধরে বলতে চাচ্ছিলাম। দুই ঘণ্টার পরিপূর্ণ ফিল্ম এটি। একটি গান আছে। রংপুরে ১৫দিন এবং এফডিসিতে ২দিন শুটিং করেছি। গল্পটি নিয়ে আমি প্রথম প্রযোজনা করতে চেয়েছিলাম। পরে চরকি’র সঙ্গে আলাপ হলে কর্তৃপক্ষ আমাকে বাজেট এবং ফ্রিডম দেয়। আমার কাজগুলোতে নিজস্ব দর্শন থাকে। যেটা বলতে চাই বা প্রতিবাদ জানাতে চাই সেটা কাজের মাধ্যমে বলি।

যেহেতু পরিপূর্ণ সিনেমা, তাহলে ‘খাঁচার ভেতর অচিন পাখি’ সিনেমা হলে মুক্তির পরিকল্পনা আছে?পরিকল্পনায় রেখেছি। চরকিতে মুক্তির দেড় দুমাস পরে সিনেমা হলে মুক্তি পেতে পারে। তার আগে চরকি থেকে দর্শকদের ফিডব্যাক দেখতে চাই। সিনেমা হলে মুক্তির আগে দেশের পরিস্থিতি বিবেচনা করা হবে। ঢাকার সিনেপ্লক্সগুলো ছাড়া বাইরে সেভাবে হলে মানুষ যাচ্ছে কিনা জানা নেই। সিনেমা হলে মুক্তি দিলে একসঙ্গে সাড়া দেশে দেখাতে চাই।

বিজ্ঞাপন

এই সিনেমাটি কেন স্পেশাল? তিনটি কারণ বলুন…
যে স্টাইলে গল্প বলেছি এভাবে আগে গল্প বলা হয়নি। যে কনসেপ্ট নিয়ে গল্প, সেই কনসেপ্টে বাংলাদেশে কেউ কাজ করেনি। যারা অভিনয় করেছেন তারা সবাই বেস্ট পারফর্মার। ক্যামেরায় রাজিবুল ইসলাম এর আগে ফারুকী ভাইয়ের সিনেমায় কাজ করেছেন। ক্রিয়েটিভ প্রযোজক আদনান আল রাজীব, প্রযোজক হয়েছেন রেদওয়ান রনি। কাজটির সঙ্গে জড়িত প্রত্যেকটি মানুষ স্পেশাল। তাই আমার বিশ্বাস এ কাজটি অন্যরকম কিছু সৃষ্টি করবে।

ওটিটি’র জন্য ‘সেলিব্রেটি কাস্টিং’-এর অনুভব করেন না?
ওটিটি-তে তাদের নিয়ে কাজ হয় যারা সত্যিকারের শিল্পী। আমার এই কাজটিতে যারা অভিনয় করেছেন তারা নিঃসন্দেহে ভালো অভিনয় করেন। আগের কাজগুলোতে ফজলুর রহমান বাবুকে একটি অংশে দেখেছি। কিন্তু নতুন কাজটিতে পুরোটা জুড়ে তিনি থাকবেন। নতুন করে ফজলুর রহমান বাবুর আরেকটা রূপ দর্শক দেখতে পাবেন।

সিনেমা হল বিবেচনা করলে বর্তমানে আমাদের দেশে কতো টাকার মার্কেট আছে বলে মনে হয় আপনার?
শেষ কয়েক বছর আমাদের হিট হওয়া সিনেমার সংখ্যা কম। তবে সিনেমা ভালো হলে চলবেই। যখন ‘পোড়ামন ২’ বানাই মার্কেট ছোট ছিল। ঈদে মুক্তি দিয়ে ২০টি হল পেয়েছিলাম। এরমধ্যে পাঁচটি ভালো হল পেলেও বাকি ১৫ হল ভালো ছিল না। সেখান থেকে সিনেমাটি হিট হয়েছে। কারণ একটাই ভালো সিনেমা। সিনেমাটি হিট করেছিল বলেই সিয়াম-পূজা দুজনেই ফিল্মে দাঁড়িয়ে গেছে। আজকে পূজা ঢাকাই সিনেমার সুপারস্টারের সঙ্গে কাজ করতে পারছেন। তাই মনে করি মার্কেট কতো টাকার বা বাজার কেমন এর চেয়ে আগে ভালো সিনেমা নির্মাণ করা উচিত। তবে এটা সত্যি যতদিন পর্যন্ত জেলায় জেলায় সিনেপ্লেক্স না হবে সিনেমার রমরমা ব্যবসা হবে না। সিনেপ্লেক্স বাড়লে আমরা ১০ কোটি বাজেটের সিনেমা বানাতে পারবো। এখন ঢাকার বাইরে যেসব হল আছে সেখান থেকে টাকা আসে না। কেমন ব্যবসা করে বোঝার উপায় নেই। তাছাড়া ওইসব গুদামঘরে দর্শক ঢুকতে চায় না।

‘নূর’, ‘দামাল’ সিনেমাগুলো কোন অবস্থায় আছে?
নবাবগঞ্জে ‘নূর’-এর শুটিং করছি। আর তিনদিন কাজ আছে। এরপরে ‘দামাল’র পোস্ট প্রডাকশনে যাবো ইন্ডিয়াতে। তারপর জাজের ‘রাস্তা’ নামে আরেকটা সিনেমা করবো। আরেক সিনেমা ‘পরাণ’ মুক্তির অপেক্ষায় আছে। সবগুলো বড় বড় বাজেটের সিনেমা। এজন্য মুক্তির আগে সার্বিক পরিস্থিতি বিবেচনায় রাখতে হচ্ছে। এ বছরের মধ্যে আমার যেকোনো একটি সিনেমা প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি দেয়ার ইচ্ছে রয়েছে।

বিজ্ঞাপন