চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

এক বছরে ব্যবহৃত ৭৮ হাজার টন পলিব্যাগ বর্জ্য

বাংলাদেশে এক বছরের মহামারীতে প্রায় ৭৮ হাজার টনেরও বেশি পলিথিন ব্যাগ বর্জ্য উৎপাদিত হয়েছে এবং পলি ব্যাগের অবৈধ উৎপাদন দিনে অর্ধ মিলিয়ন বেড়ে গেছে। 

আজ শনিবার এনভায়রনমেন্ট অ্যান্ড সোশ্যাল ডেভেলপমেন্ট অর্গানাইজেশন-এসডো পলিসি ব্রিফিংয়ের মাধ্যমে একটি সমীক্ষা উন্মোচন করে। সেখানে এসব তথ্য জানানো হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

এসডো বেসলাইন সমীক্ষার মাধ্যমে এপ্রিল -২০২০ থেকে মার্চ -২০২১ পর্যন্ত পলিথিন ব্যাগ ব্যবহারে দেশের পরিস্থিতি মূল্যায়ন করেছে। এতে দেখা যায়, ঢাকায় ব্যবহৃত পলিথিন ব্যাগ থেকে উৎপাদিত মোট বর্জ্য প্রায় পাঁচ হাজার ৯৯৬ টন এবং সারা দেশে এটি প্রায় ৭৮ হাজার ৪৩৩ টন।

বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের প্রতিনিধিগণ এনজিও ও অর্গানাইজেশনের সদস্যগণ এবং বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষকগণ আলোচ্য অধিবেশনে অংশগ্রহণ করেন এবং পলিথিন ব্যাগ নিষেধাজ্ঞায় শিকড় থেকে শীর্ষ পর্যন্ত কঠোর আইন প্রয়োগের প্রয়োজনীয়তা প্রকাশ করেন।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, অবৈধ পলিথিন ব্যাগ ব্যবহারের ক্ষতিকর পরিস্থিতি মোকাবেলায়, আমাদের অবিলম্বে ইতিবাচক উদ্যোগ নেওয়া উচিত।

বিজ্ঞাপন

অধিবেশনটি সভাপতিত্ব করেন সাবেক সচিব ও এসডো চেয়ারপারসন সৈয়দ মারঘুব মোর্শেদ। এই ক্ষতিকর পরিস্থিতি মোকাবেলায় তিনি পলি ব্যাগের সকল অবৈধ উৎপাদন ও বিপণন বন্ধে সরকারকে অবিলম্বে আইনী পদক্ষেপ গ্রহণের আহ্বান জানান। সৈয়দ মারঘুব মোর্শেদ এসএমইগুলিকে পলি ব্যাগের আরও বিকল্প উৎপাদন করতে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান।

অধিবেশনে অংশ নেন পরিবেশ,বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়ের যুগ্মসচিব কেয়া খান। তিনি বৈঠকে পলি ব্যাগ নিষেধাজ্ঞায় উপজেলা এবং বিশেষত সমস্ত সিটি কর্পোরেশন অঞ্চলে পলি ব্যাগ নিষিদ্ধকরণ আইন কার্যকর করার পরামর্শ দেন।

প্রতিবছর ৫ জুন বিশ্ব পরিবেশ দিবস পালিত হয়। বিশ্বব্যাপী পরিবেশ সচেতনতা প্রচারের জন্য এটি জাতিসংঘের পতাকা দিবসও বলা হয়।

বছরের পর বছর ধরে, এটি পরিবেশগত জনসাধারণের প্রচারের জন্য বৃহত্তম বৈশ্বিক প্ল্যাটফর্ম হিসাবে পরিচিত হয়েছে এবং বিশ্বব্যাপী লক্ষ লক্ষ মানুষ এই দিনটি উদযাপন করছে ।

এ বছর এসডো বাংলাদেশে পলিথিন ব্যাগ নিষিদ্ধকরণ আইন প্রয়োগের জন্য এই দিনটি উদযাপন করেছে। ১৯৯০ পলিথিন ব্যাগ নিষিদ্ধ করার ক্ষেত্রে এটি একটি অগ্রণী সংস্থা হিসেবে ভূমিকা পালন করেছে এবং এখনও বাস্তুসংস্থান পুনরুদ্ধার জন্য লড়াই করে যাচ্ছে ।