চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

এক ওয়ার্নারের রানই করতে পারল না শ্রীলঙ্কা

ওয়ার্নার ১০০, শ্রীলঙ্কা ৯৯!

সাতটি টি-টুয়েন্টি সেঞ্চুরি ছিল ঝুলিতে। সব ক’টিই ঘরোয়া লিগে। অবশেষে আন্তর্জাতিক টি-টুয়েন্টিতে প্রথম সেঞ্চুরির দেখা পেলেন ডেভিড ওয়ার্নার। তার তাণ্ডবেই অ্যাডিলেডে সিরিজের প্রথম ম্যাচে শ্রীলঙ্কাকে উড়িয়ে দিয়েছে অস্ট্রেলিয়া। লাসিথ মালিঙ্গার দলকে ১৩৪ রানে হারিয়েছে স্বাগতিকরা।

ঘরের মাঠে আগামী বছরের টি-টুয়েন্টি বিশ্বকাপের কথা মাথায় রেখে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে সিরিজে অস্ট্রেলিয়া দলে ফেরানো হয়েছে স্টিভেন স্মিথ ও ডেভিড ওয়ার্নারকে। নিবার্সন ওঠার পর প্রথমবার জাতীয় দলের হয়ে টি-টুয়েন্টি খেললেন স্মিথ-ওয়ার্নার।

বিজ্ঞাপন

ওয়ার্নার অজি জার্সিতে শেষবার টি-টুয়েন্টি খেলেছিলেন ২০১৮ সালের ফেব্রুয়ারিতে, নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে। স্মিথ দেশের হয়ে শেষ টি-টুয়েন্টিটি খেলেন ২০১৬ সালের বিশ্বকাপে, মোহালিতে ভারতের বিপক্ষে।

সোমবার অবশ্য ব্যাট হাতে নামা হয়নি স্টিভেন স্মিথের। তবে ১৯ মাস পর শর্টার ফরম্যাটে নেমেই বাজিমাত করেন ওয়ার্নার। তুলে নেন ক্যারিয়ারের প্রথম টি-টুয়েন্টি সেঞ্চুরি। ৫৬ বলে ১০টি চার ও ৪টি ছক্কায় ঠিক ১০০ রানে অপরাজিত থাকেন।

আগে আন্তর্জাতিক টি-টুয়েন্টিতে তার সর্বোচ্চ ইনিংস ছিল অপরাজিত ৯০ রানের। এই শ্রীলঙ্কার বিপক্ষেই, অর্ধযুগ আগে।

ওভালে টস জিতে অস্ট্রেলিয়াকে প্রথমে ব্যাট করার আমন্ত্রণ জানায় শ্রীলঙ্কা। অজিরা নির্ধারিত ২০ ওভারে মাত্র ২ উইকেট হারিয়ে ২৩৩ রানের বিশাল ইনিংস গড়ে।

বিজ্ঞাপন

ওয়ার্নারের সেঞ্চুরি ছাড়াও ঝোড়ো হাফসেঞ্চুরি করেন অ্যারন ফিঞ্চ ও গ্লেন ম্যাক্সওয়েল। ৩৬ বলে ৮ চার ও ৩ ছক্কায় ফিঞ্চ করেন ৬৪ রান। ম্যাক্সওয়েল ঝড়ের বেগটা ছিল একটু বেশি গতির। মাত্র ২৮ বলে ৭ চার ও ৩ ছক্কায় ৬২ রান করেন ম্যাক্সি।

চার ওভারে ৭৫ রান দিয়ে আন্তর্জাতিক টি-টুয়েন্টিতে সবচেয়ে খরুচে বোলারের তকমা পেয়েছেন কাসুন রাজিথা।

পাল্টা ব্যাট করতে নেমে শুরু থেকেই ধারাবাহিকভাবে উইকেট হারাতে থাকা শ্রীলঙ্কা ২০ ওভারে ৯ উইকেটের বিনিময়ে ৯৯ রানের বেশি তুলতে পারেনি। অর্থাৎ, এক ওয়ার্নার যা করেছেন, পুরো শ্রীলঙ্কা দল মিলে তারচেয়েও এক রান কম করেছে!

বলার মতো রান করতে পারেননি শ্রীলঙ্কার কোনো ব্যাটসম্যানই। তাদের পাঁচজন ব্যাটসম্যান দুইঅঙ্ক স্পর্শ করলেও কুড়ির ঘর ধরতে পারেননি।

অজিদের হয়ে পাল্লা দিয়ে উইকেট তোলেন অ্যাডাম জাম্পা, মিচেল স্টার্ক, প্যাট কামিন্সরা। জাম্পা তিনটি, স্টার্ক ও কামিন্স নেন দুটি করে উইকেট।

১৩৪ রানের বড় জয় তুলে নিয়ে অস্ট্রেলিয়া ৩ ম্যাচের সিরিজে ১-০ ব্যবধানে এগিয়ে গেল। দুদলের পরের ম্যাচ ৩০ অক্টোবর, ব্রিসবেনে।

Bellow Post-Green View