চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

উত্তরবঙ্গের বিভিন্ন জেলায় বন্যা পরিস্থিতির অবনতি

উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলে সিরাজগঞ্জ, কুড়িগ্রাম, গাইবান্ধা ও বগুড়াসহ উত্তরাঞ্চলে বন্যা পরিস্থিতির অবনতি হয়েছে। বিপৎসীমার উপর দিয়ে বইছে যমুনা, ব্রহ্মপুত্র, ধরলা, দুধকুমর, ঘাগট ও তিস্তা নদীর পানি। বিস্তীর্ণ জমির ফসল ডুবে গেছে। বন্যার পাশাপাশি নদী ভাঙনেও ঘরবাড়ি হারিয়েছেন অনেকে।

কুড়িগ্রামে নদ-নদীর পানি বেড়ে ২শ’র বেশি চর-দ্বীপচর ও নিচু এলাকা প্লাবিত হয়েছে। পানিবন্দি হয়ে পড়েছে ৫০ হাজারের বেশি পরিবার। বাড়িঘর ছেড়ে উঁচু এলাকায় আশ্রয় নিয়েছেন পানিবন্দি মানুষ। বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে চর ও দ্বীপচরের অভ্যন্তরীণ যোগাযোগ।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

সিরাজগঞ্জে বসতবাড়ি ও রাস্তা-ঘাট ডুবে যাওয়ায় এরই মধ্যে নদী তীরের পাঁচ উপজেলার কমপক্ষে ৫০ হাজার মানুষ বন্যাকবলিত হয়ে পড়েছেন। তাঁত কারখানায় পানি ওঠায় বেকার হয়ে পড়েছেন শ্রমিকরা। অনেক মালিকের তাঁতকল নষ্ট হয়ে গেছে।

গাইবান্ধায় ব্রহ্মপুত্র ও যমুনার পানি বেড়ে যাওয়ার সাথে সাথে ভাঙন দেখা দেওয়ায় হুমকির মুখে পড়েছে ফুলছড়ি নীলকুঠি আশ্রয়ন প্রকল্প। যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছেন আশ্রয়নের দু’শ’রও বেশি বাসিন্দা। সুন্দরগঞ্জ, গাইবান্ধা সদর, সাঘাটা ও ফুলছড়ির চরাঞ্চলের বেশ কয়েকটি বাড়িতেও পানি উঠেছে।

বন্যাকবলিত সব জেলাতেই আমন ও বিভিন্ন ধরনের সবজি ক্ষেত পানির নিচে চলে গেছে। ভেসে গেছে পুকুর ও ঘেরের মাছ। বন্যাকবলিতদের ত্রাণ সহায়তা দিচ্ছে স্থানীয় প্রশাসন।

বিজ্ঞাপন