চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

আরিফিন শুভকে বেছে নিলেন অবন্তী সিঁথি

ডাক নাম অবন্তী। পুরো নাম অবন্তী দেব সিঁথি। বেড়ে ওঠা জামালপুরে। মফস্বল শহরের আলো-ছায়ায় বেড়ে ওঠা অবন্তী কখনো ভাবেননি কণ্ঠশিল্পী হবেন। সেই অবন্তী এখন প্রতিষ্ঠিত কণ্ঠশিল্পী হিসেবে সবার কাছে পরিচিত। 

বিজ্ঞাপন

ছোটবেলায় বড়বোনের পাশে বসে গান শুনতেন। সেখান থেকেই গানের প্রতি আগ্রহ বাড়ে। এভাবেই একসময় নিজেই বাদ্যযন্ত্র নিয়ে গেয়ে ওঠেন মিতালী মুখার্জি, সাবিনা, রুনার গান।

জামালপুর সরকারি বালিকা উচ্চবিদ্যালয় থেকে মাধ্যমিক আর দিগপাইত শামসুল হক ডিগ্রি কলেজে উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষার্থী থাকার সময় গান গেয়ে পরিচিতি পান তিনি।

গিটার আর হারমোনিয়াম বাজানো শিখেছেন সেই ছোটবেলাতেই। কলেজে পড়ার সময় বিভিন্ন অনুষ্ঠানেও গান করতেন অবন্তী।

২০০৬ সালে ক্লোজআপ ওয়ান প্রতিযোগিতায় নিজের নাম লেখান, কিন্তু শুরুতেই থেমে যায় তার স্বপ্ন। প্রথম ৫৫ জনের ঘরে এসেই ছিঁটকে পড়েন অবন্তী।

হাল ছাড়েননি অবন্তী। ২০১১ সালের কথা। অবন্তী তখন ঢাকায় বাস করেন। নিজেই গান শেখানো শুরু করেন। ছাত্রদের গান শেখানোর পাশাপাশি নিজের চর্চাটাও শুরু করেন পুরোদমে। ২০১২ সালে আবারও নাম লেখান ক্লোজআপ ওয়ান প্রতিযোগিতায়। এবার আর পিছিয়ে পড়া নয়, আস্তে আস্তে জায়গা করে নেন সেরা দশে।

এরপরে অবন্তী সিঁথি সবার সামনে উপস্থিত হন অন্য এক আলো নিয়ে। ভাইরাল হওয়া একটি ভিডিওতে নজড় কেড়েছিলেন তিনি। খালি গলায় গান গাইছিলেন। বাদ্যযন্ত্র বলতে তেমন কিছুই ছিল না। ফয়েল পেপার, ধাতব মুদ্রা আর প্লাস্টিকের দুটি কাপ। সুরের মায়াজাল তৈরি করে গেয়ে চলছিলেন ‘যেখানে সীমান্ত তোমার …’।

সেই প্রথম তাকে দেশের মানুষ চিনেছে ফেসবুকে। তারপর জয় করে এলেন ওপার বাংলার জনপ্রিয় রিয়েলিটি শো ‘সারেগামাপা’। তারপর থেকে থেমে নেই অবন্তী। একের পর এক গান গেয়ে নিজেকেই ছাড়িয়ে যাচ্ছেন প্রতিনিয়ত।

সম্প্রতি ‘চ্যানেল আই তারকা কথন’ -এ অতিথি হয়ে আসেন তিনি। কথা বলেন তার গানের ক্যারিয়ার নিয়ে। সেখানে তিনি তার নতুন প্রকাশিত গান ‘রাগ কমলে ফোন করিস’ গেয়ে শোনান।

এরপর তিনি একটি বিশেষ ‘র‍্যাপিড ফায়ার’ ইন্টার্ভিউতে অংশ নেন। সেখানে তাকে প্রশ্ন করা হয়, ‘নতুন নায়কদের মধ্যে কাকে বেশি পছন্দ করেন, আরিফিন শুভ নাকি সিয়াম আহমেদ?’ উত্তরে অবন্তী আরেফিন শুভকে বেছে নেন।

বিজ্ঞাপন