চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

‘আমি মনোনয়নপত্র কিনবো, এমনটা কোথাও কখনো বলিনি’

‘আমি রাজনীতির মানুষ নই, দেড়যুগ ধরে নাটক নির্মাণ করি সেটাই করে যেতে চাই’

একাদশতম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিজয় অর্জন করে ক্ষমতায় আসা আওয়ামী লীগ এবার ৪৩ জন মহিলাকে সংরক্ষিত আসনে এমপি করবে। এরইমধ্যে মনোনয়ন ফরম ক্রয় করছেন অনেকে। সংরক্ষিত মহিলা আসনে লড়তে আগ্রহী শোবিজ অঙ্গনের অনেক নারী তারকা। তাদের অনেকেই ইতোমধ্যে আলোচনায়।

এই বিষয়ে একটি সংবাদপত্রে প্রকাশিত খবরে কবরী, সুজাতা, অঞ্জনা, আনোয়ারা, মুক্তা, তারিন, দিলারা এবং সুবর্ণা মুস্তাফার সঙ্গে প্রকাশিত হয়েছিল নাট্য নির্মাতা চয়নিকা চৌধুরীর ছবিও। ফলে অনেকেই মনে করেছেন এমপি হতে মনোনয়ন পত্র কিনবেন তিনিও। কিন্তু চ্যানেল আই অনলাইনকে তিনি শোনালেন ভিন্ন কথা।

বিজ্ঞাপন

সংরক্ষিত নারী আসনে মনোনয়ন ফরম কিনছেন কিনা? জানতে চাইলে শনিবার দুপুরে চয়নিকা চৌধুরী জানান, প্রশ্নই আসে না। আমি নাটকের মানুষ। রাজনীতিবীদদের আমি শ্রদ্ধা করি, তারা দেশ পরিচালনা করেন। কিন্তু আমি নিজে রাজনীতির সঙ্গে সম্পৃক্ত নই। সংরক্ষিত নারী আসনে মনোনয়ন ফরম তুলেবো এমন কথা আমি কোথাও কোনোদিন কারো সাথে শেয়ারও করিনি।

মনোয়ন ফরম চাইলেই কেনা যায় না। কারণ আমি রাজনীতিতে সক্রিয় না। আওয়ামী লীগ থেকে মনোনয়ন ফরম চাইতে গেলে কিছু ক্যাটাগরি লাগে। যেমন ১৯৭৫ সালে আমি কী করেছিলাম, আমার অবস্থান কী ছিলো। তারপর যখন ক্যু হয়েছিলো, সে সময় আমার রাজনৈতিক অবস্থা কী ছিলো? এরপর নেত্রী যখন ২১ বছর দেশে ছিলেন না, তখন আমার রাজনৈতিক সক্রিয়তা বা তৎপরতা ছিলো কিনা, সেসময় দলের পক্ষে আমি কোনো কাজ করেছি কিনা, এসব বিষয়তো দেখে দল প্রার্থীতা নিশ্চিত করবে। আমি চাইলেইতো আর হবে না, আমার সেই যোগ্যতাতো লাগবে মনোনয়ন ফরম তুলার।

সংবাদ মাধ্যমসহ সোশাল মিডিয়াতে ইতোমধ্যে রটে গেছে আমি নাকি সংরক্ষিত আসনে মনোনয়ন ফরম তুলেছি, অনেকে ফেসবুকে আমাকে ট্যাগ করছেন। ফোনে অনেকেই আমার কাছে জানতে চাইছেন, এটা সত্য নয়। আমি বারবার বলছি, রাজনীতি আমার কর্ম নয়। আমি একজন নির্মাতা। নাটক বানাই। গত দেড় যুগ ধরে এই কাজটি একাগ্রতার সাথে করে যাচ্ছি। এটাই করে যেতে চাই।

তবে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে আওয়ামী লীগের পক্ষে প্রচারণায় কেন অংশ নিয়েছিলেন, কথা কথায় সে ব্যাখ্যাও দেন চয়নিকা। এ বিষয়টি নিয়ে তিনি ফেসবুকেও স্ট্যাটাস দেন। সেখানে চয়নিকা বলেন, অভিনেত্রী শমী কায়সার আমার প্রিয়বন্ধু। তার নেতৃত্বে আমি ‘বাংলাদেশের পক্ষে আমরা’ এই প্রচারণার নির্মাণে যুক্ত হয়েছিলাম এবং আমি অনেক আনন্দ পেয়েছি। কারণ, পুরোটাই ছিল বিশ্বাস আর ভালোবাসা থেকে। আমার মন বড় হয়েছিল কাজটায় যুক্ত হতে পেরে। অনেক কৃতজ্ঞতা শমীর প্রতি। ধন্যবাদ টিমের প্রতিটা মানুষের প্রতি। স্পেশালি তারিক সুজাত, রিয়াজ ভাই, পরাগ ভাইর প্রতি।

দেশের সাধারণ দর্শকই তার প্রাণ এমনটা জানিয়ে চয়নিকা আরো লিখেন, আমার প্রিয় দর্শক আর আমার যত শুভাকাঙ্ক্ষী, সবাইকে অনুরোধ করছি কখনই আমাকে ভুল বুঝবেন না প্লিজ। আজীবন ভালো কাজের সাথে ছিলাম, ভালো কাজের সাথে আছি এবং থাকবো এবং তা আমি করি মন থেকে কোন স্বার্থ ছাড়াই। মনে রাখবেন, আমি কখনোই লোক দেখানো কাজ করিনি, করবোও না।

কথায় কথায় চ্যানেল আই অনলাইনকে সাম্প্রতিক কাজের কথাও বলেন চয়নিকা। জানান, রবিবার থেকে একটি বেসরকারি টেলিভিশনে তার পরিচালনায় একটি ধারাবাহিক নাটক শুরু হতে যাচ্ছে। ফারিয়া হোসেনের লেখা ও প্রযোজনায় নাটকের নাম ‘নীলরঙা মন’। এছাড়াও নারী দিবসে একটি বিশেষ নাটক নিয়ে হাজির হতে যাচ্ছেন তিনি।

এছাড়া আসছে জুনে নিজের প্রথম সিনেমার ঘোষণা দিবেন বলেও জানান চয়নিকা চৌধুরী।