চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

আধুনিক বাংলা গানের এক নক্ষত্র নেমে গেলো: ফকির আলমগীর

একুশে পদকপ্রাপ্ত কিংবদন্তি সংগীতশিল্পী সুবীর নন্দীর মৃত্যুকে আধুনিক বাংলা গানের জন্য অপূরণীয় ক্ষতি বলে মন্তব্য করেছেন দেশের গণসংগীতশিল্পী ফকির আলমগীর।

সর্বস্তরের মানুষের শ্রদ্ধা নিবেদনের উদ্দেশ্যে বুধবার সকাল ১১টা থেকে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে রাখা হয়েছে সুবীর নন্দীর মরদেহ। শেষবারের মতো তাঁকে দেখতে এসে এমন মন্তব্য করেন ফকির আলমগীর।

বিজ্ঞাপন

তাঁকে উদ্দেশ্য করে ফকির আলমগীর বলেন: সুবীর নন্দীর মৃত্যুর মধ্য দিয়ে আধুনিক বাংলা গানের একটি নক্ষত্র নেমে গেল। এটি বহু দিনে পূরণ হবার নয় এবং এটি একটি সামগ্রিক শূন্যতা, সংগীত অঙ্গনের শূন্যতা। কারণ সুবীর নন্দী ছিলেন একজন টোটাল আর্টিস্ট। সে যেমন কীর্তন গাইতো, ভজন, নজরুল গীতিসহ সমস্ত গানগুলো তাকে অন্য উচ্চতায় নিয়ে গিয়েছিলো। সেজন্য সুবীর নন্দীর কোনো মৃত্যু নেই, সুবীর নন্দী থাকবেন শিল্পীদের হৃদয়ে, শ্রোতাদের হৃদয়ে। তাঁর অসাধারণ সংগীত চর্চার মধ্য দিয়েই তিনি যুগ যুগ বেঁচে থাকবেন।

সুবীর নন্দীকে আধুনিক বাংলা গানের ব্র‌্যান্ড অ্যাম্বাসেডর হিসেবে উল্লেখ করে গণসংগীতের এই দাপুটে শিল্পী বলেন, সুবীর নন্দী বাংলা গানের ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর। শাহানাজ রহমতউল্লাহ, রুনা লায়লা, সাবিনা ইয়াসমিনরা যেমন বাংলা গানের ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর, তেমনি একজন সুবীর নন্দী। তিনি ছিলেন আধুনিক গানের এক নক্ষত্র। তার মৃত্যুর মধ্য দিয়ে আধুনিক গানের এক নক্ষত্রের পতন হলো। বহুকাল সঙ্গীত অঙ্গন এই নক্ষত্রের অভাব অনুভব করবে।

আজীবন সংগীতকে ভালোবেসে গেছেন সুবীর নন্দী। এমনটা মন্তব্য করে ফকির আলমগীর আরো বলেন, সুবীর নন্দী ছিলেন সবার ভালোবাসার শিল্পী। তার আচার-আচরণ তার ব্যবহার তার মৃদু ভাষ্য, তার সমস্ত কিছুই ছিলো ভালোবাসায় মোড়ানো। বাংলাদেশের সংগীতে নিবেদিত ছিলেন জীবনের শেষ দিন পর্যন্ত, তিনি সংগীতকে ভালোবেসে ছিলেন।

গেল ১৪ এপ্রিল ৩০ এপ্রিল পর্যন্ত সংকটাপন্ন অবস্থায় সিএমএইচে চিকিৎসাধীন ছিলেন সুবীর নন্দী। উন্নত চিকিৎসার জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার তত্ত্বাবধানে সুবীর নন্দীর চিকিৎসার জন্য ৩০ এপ্রিল সকালে এয়ার অ্যাম্বুলেন্সে সিঙ্গাপুর নেয়া হয়।

Bellow Post-Green View