চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

আগামীকাল থেকে ২৬ মার্চ প্রতিটি ভেন্যু নিরাপত্তা চাদরে ঢাকা থাকবে

বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী ও স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীর নিরাপত্তা ব্রিফিংয়ে আইজিপি

আগামীকাল ১৭ থেকে ২৬ মার্চ পাঁচ জন রাষ্ট্র ও সরকার প্রধানের বাংলাদেশ সফরকালে সর্বোচ্চ পেশাদারিত্বের সাথে দায়িত্ব পালনের জন্য ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) অফিসার ও ফোর্সদের নির্দেশ দিয়েছেন পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) ড. বেনজীর আহমেদ।

আজ মঙ্গলবার বিকালে রাজধানীর রাজারবাগে বাংলাদেশ পুলিশ অডিটোরিয়ামে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী ও স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানের নিরাপত্তা সংক্রান্ত ব্রিফিংয়ে আইজিপি প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এ নির্দেশ দেন।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

ডিএমপি কমিশনার মোহা. শফিকুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অতিরিক্ত আইজিপি (প্রশাসন ও অপারেশন্স) ড. মোঃ মইনুর রহমান চৌধুরী বক্তব্য রাখেন। সভায় ডিএমপির সকল পর্যায়ের অফিসার ও ফোর্সের প্রতিনিধিগণ উপস্থিত ছিলেন।

আইজিপি বলেন, বঙ্গন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী ও স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী উপলক্ষে আগামীকাল থেকে ২৬ মার্চ পর্যন্ত বিভিন্ন দেশের রাষ্ট্র ও সরকার প্রধানগণ ঢাকায় আসবেন। তাঁরা আমাদের সম্মানিত অতিথি। এত গুরুত্বপূর্ণ মেহমান ইতোপূর্বে একসাথে ঢাকায় আসতে  আমরা দেখিনি‌। দেশ ও জাতির জন্য এ ধরনের সফর অত্যন্ত সম্মান ও গর্বের। বিদেশি অতি গুরুত্বপূর্ণ মেহমানদের নিরাপত্তায় পর্যাপ্ত নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। প্রতিটি ভেন্যু নিরাপত্তা চাদরে ঢেকে দেয়া হবে।

আগামী দশ দিন জরুরি প্রয়োজন ছাড়া জনগণের চলাচল সীমিত রাখার জন্য তিনি নগরবাসীর প্রতি আবারও অনুরোধ জানান। এ সময় রাজধানীতে কোন ধরনের সভা, সমাবেশ মিছিল, মিটিং ইত্যাদি আয়োজন না করার জন্যও সকলের প্রতি অনুরোধ জানান তিনি। তিনি দ্ব্যর্থহীন কণ্ঠে ঘোষণা করেন, বিদেশি মেহমানদের নিরাপত্তায় বিঘ্ন ঘটে এ ধরনের কোন কার্যক্রম পুলিশ বরদাশত করবে না।

বাংলাদেশের মানুষের অনন্য সাধারণ এ উদযাপনকে ব্যাহত করতে যে কোনো প্রকার অপচেষ্টাকে কঠোর হাতে দমনের নির্দেশ দেন আইজিপি। এ সকল ক্ষেত্রে জিরো টলারেন্স প্রদর্শন করতে বলেন তিনি। দেশ ও মানুষের সম্মান ও স্বার্থে সর্বোচ্চ পেশাদারিত্বের সাথে দৃঢ়চিত্তে দায়িত্ব পালনের নির্দেশ দেন তিনি।

বিজ্ঞাপন

অনুষ্ঠানে নিরাপত্তা সংক্রান্ত বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ ও কৌশলগত বিষয়ে দিক নির্দেশনা দেয়া হয়। এছাড়া, দায়িত্বে নিয়োজিত হওয়ার পূর্বে প্রত্যেক কর্মকর্তা ও সদস্যকে তাদের করণীয় সম্পর্কে পুঙ্খনাপুঙ্খ ব্রিফ করতে সকল অপারেশনাল কমান্ডারগণকে নির্দেশ দেন আইজিপি।

তিনি দায়িত্ব পালনকালে পুলিশ সদস্যগণকে পোশাকে, উপস্থাপনায়, সেবায় এবং দৃঢ়তায় নিজেদের উচ্চতাকে তুলে ধরার আহবান জানান। কোনো প্রকার অপেশাদার আচরণ ও দায়িত্বপালনে শিথিলতার বিন্দুমাত্র কোনো সুযোগ নেই বলেও উল্লেখ করেন আইজিপি।

তিনি বলেন, প্রতিটি ভেন্যুর বৈশিষ্ট্য অনুযায়ী সর্বোচ্চ পেশাদারিত্বের সাথে দায়িত্ব পালন করতে হবে। প্রত্যেক পুলিশ সদস্যকে পরিপূর্ণ দায়িত্ববোধ নিয়ে কাজ করতে হবে, দায়িত্ব পালনকালে যে কোনো পরিস্থিতি মোকাবেলায় তাৎক্ষণিক সিদ্ধান্ত নিতে হবে।

আইজিপি বলেন, মানুষের সাথে আচরণে বিনয়ী হতে হবে। বিনয়ের সাথে এনফোর্সমেন্টের কোনো বিরোধ নেই।

ড. মোঃ মইনুর রহমান চৌধুরী বলেন, যথাযথভাবে দায়িত্ব পালনের মাধ্যমে দেশের ভাবমূর্তি সমুজ্জ্বল রাখার জন্য সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা ও সদস্যদের জন্য থাকবে সম্মানজনক স্বীকৃতি।

মোহাঃ শফিকুল ইসলাম বলেন, আইজিপি’র নির্দেশনানুযায়ী দেশ ও জনগণেরর স্বার্থ ও সম্মানে রাষ্ট্রীয় গুরুত্বপূর্ণ ও ঐতিহাসিক এ আয়োজনের নিরাপত্তা নিশ্চিতকল্পে কোনো প্রকার শৈথিল্য প্রদর্শন করবে না ডিএমপি।