চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

অনলাইনে ইলেকট্রনিক্স শিক্ষা প্রসারে ‘আমাদের ইলেকট্রনিক্স’

ইলেকট্রনিক্স কঠিন বিষয় মনে হলেও অনলাইনে বিষয়টিকে সহজবোধ্য হিসেবে উপস্থাপনের কাজ করে যাচ্ছে ‘আমাদের ইলেকট্রনিক্স’। এ ওয়েবসাইটে বাংলা ভাষায় ইলেকট্রিক্যাল, ইলেকট্রনিক্স ও বিজ্ঞান শিক্ষার বিষয়গুলো সহজভাবে উপস্থাপনের চেষ্টা করা হচ্ছে বলে ওয়েবসাইটটির সঙ্গে সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন।

২০১৫ সালের ১১ সেপ্টেম্বর থেকে শুরু হওয়া আমাদের ইলেক্ট্রনিক্স ‘জ্ঞানই শক্তি, যখন তা সবার জন্য উন্মুক্ত’ এই স্লোগানে কাজ করে যাচ্ছে।

জানা যায়, আশির দশকের শুরু থেকে সীমিত পরিসরে দেশে কিছু উদ্যমী তরুণ নিজ উদ্যোগে ইলেক্ট্রনিক্স চর্চা করে আসছে। বর্তমান সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের এই যুগে সেই সকল উদ্যমী তরুণরাই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমকে কাজে লাগিয়ে ইলেক্ট্রনিক্স শিক্ষাকে প্রচার করতে তৈরি করেছেন আমাদের ইলেক্ট্রনিক্স।

‘আমাদের ইলেক্ট্রনিক্স’ নামের ওয়েবসাইট  এর পাশাপাশি সামাজিক যোগাযোগের অন্যতম মাধ্যম ফেসবুকের প্রায় সকল ইলেকট্রনিক্স গ্রুপের মুখপত্র এই ওয়েবসাইট। তাই অনলাইনে বাংলা ভাষায় ইলেকট্রিক্যাল, ইলেকট্রনিক্স ও বিজ্ঞান শিক্ষার অন্যতম বড় প্লাটফর্ম হয়ে উঠছে ‘আমাদের ইলেক্ট্রনিক্স’।

কারিগরি বিভিন্ন দিক বাংলাভাষাতে রূপান্তর ছাড়াও এই ওয়েবসাইটের মাধ্যমে বিভিন্ন সার্কিট ও বিজ্ঞানের বিভিন্ন বিষয় সহজভাবে বাংলা ভাষাতে বর্ণনা করা হয়ে থাকে। এছাড়া বিনামূল্যে পাঠকদের বিভিন্ন সমস্যা ও কারিগরি পরামর্শ প্রদান করা হয়।

Advertisement

ওয়েবসাইটে দেয়া তথ্যে জানা যায়, ‘অদূর ভবিষ্যতে এর নিজস্ব কারিগরি ল্যাব, অভিজ্ঞ এনালিস্ট ও ডেভেলপার দ্বারা নির্মিত বিভিন্ন উন্মুক্ত ইলেকট্রনিক্স সার্কিট, প্রজেক্ট প্রভৃতি এই সাইটে পাওয়া যাবে। ইতোমধ্যে এই সাইটে অভিজ্ঞ লেখক, গবেষক ও আবিষ্কারক তাদের নিজস্ব তত্ত্বাবধানে নির্মিত বিভিন্ন প্রজেক্ট নির্মাণের বিস্তারিত বর্ণনা দিয়েছেন ও দিয়ে যাচ্ছেন।’

আমাদের ইলেক্ট্রনিক্সের সভাপতি প্রকৌশলী সুরজিৎ সরকার দুরন্ত বলেন, আমরা মূলত শুরুটা করেছিলাম ফেসবুকে ইলেক্ট্রনিক্সের গ্রুপে নতুনদের সহায়তা করার মধ্যদিয়ে। পরবর্তীতে উদ্যমী তরুণ মেশকাত, রাইয়ান, নাসির, নিউটন ও সুখদেবসহ অনেকে চিন্তা করে একটি ওয়েবসাইট হলে বেশ ভালো হয়।

‘আমি এটা জানবার পর নিজে যুক্ত হই সম্পূর্ণ বিষয়টির সাথে এবং যেহেতু আমরা নিজেরাই ওয়েবসাইট তৈরি করতে সক্ষম তাই অতিদ্রুত সুখদেব ও রাইয়ানের সহায়তায় সাইট তৈরি করি। ১১ সেপ্টেম্বর ২০১৫ থেকে আমরা যাত্রা করে এখন পর্যন্ত চলছি বাংলা ভাষাতে ইলেক্ট্রনিক্সের মতো একটি বিষয়কে সবার সামনে সহজবোধ্যভাবে উপস্থাপন করবার জন্য।’

তিনি জানান, আমাদের ইলেকট্রনিক্সের এই মুহূর্তে কোন প্রকার বাণিজ্যিক উদ্দেশ্য নাই, তবে সরকারি বা বেসরকারি পৃষ্ঠপোষকতা পেলে ইলেক্ট্রনিক্সকে আমরা সকল স্তরে পৌছাতে পারব।

প্রকৌশলী সুরজিৎ সরকার দুরন্ত বলেন, ‘ইলেকট্রনিক্স সম্পর্কিত যেকোন আইডিয়া, গবেষণা পত্র, আবিষ্কার নিয়ে লেখা যাবে এ ওয়েবসাইটে। ওয়েবসাইটটির লেখক নীতিমালা মোতাবেক এ ইমেইলে info@amaderelectronics.com এ পাঠানো যাবে লেখা, যোগ দেওয়া যাবে তাদের ফেসবুক পেজে।’