চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ
ব্রাউজিং

বিজয়ের চেতনায় সোনার বাংলা

বিজয়ের চেতনায় সোনার বাংলা

খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণতার পর নিরাপদ খাদ্য নিশ্চিতের চ্যালেঞ্জ

মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম লক্ষ্য ছিলো এমন একটি ব্যবস্থা যেখানে মৌলিক চাহিদা পূরণ করবে রাষ্ট্র। শুরুতে বড় চ্যালেঞ্জ ছিলো সবার জন্য খাবারের ব্যবস্থা, যার জন্য জরুরি ছিলো খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণতা অর্জন। সেই লক্ষ্য অর্জনের পর এখন নিরাপদ খাদ্য নিশ্চিত করার চ্যালেঞ্জ। দীর্ঘদিন মৌলিক অধিকার থেকে বঞ্চিত বাঙালি মরিয়া হয়ে উঠেছিলো স্বাধীনতার জন্য। যার ধারাবাহিকতায় মুক্তিযুদ্ধ, যুদ্ধে বিজয়ের মাধ্যমে বাংলাদেশের জন্ম। স্বাধীন বাংলাদেশের সংবিধানের ১৫ নম্বর অনুচ্ছেদে মৌলিক প্রয়োজনের ব্যবস্থার কথা বলা হয়েছে যার প্রধান বিষয় খাদ্য। যুদ্ধোত্তর…

দুর্নীতিমুক্ত বাংলাদেশ গড়ার স্বপ্ন বাস্তবায়ন কতদূর?

পাকিস্তানীদের দুঃশাসন এবং শোষণের আরেক নাম ছিলো দুর্নীতি। রক্তাক্ত মুক্তিযুদ্ধে বাংলাদেশ রাষ্ট্রের জন্মের পর জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের অন্যতম লক্ষ্য ছিলো দুর্নীতিমুক্ত বাংলাদেশ। পঁচাত্তরে তিনি নিহত হওয়ার পর অগণতান্ত্রিক রাষ্ট্র ব্যবস্থায় দুর্নীতির মূলোৎপাটনের বিপরীতে তা আরো জেঁকে বসে। নতুন করে গণতান্ত্রিক অভিযাত্রায় দুর্নীতিমুক্ত দেশ গঠনের লক্ষ্য কতোটা পূরণ হয়েছে? 'চাটার দল সব খেয়ে ফেলে', জাতির জনকের এই খেদ যেনো কখনোই শেষ হবার নয়। ছোট কাজ থেকে বড় প্রকল্প দুর্নীতির বসবাসের অভিযোগ সব জায়গায়। দুর্নীতির ধারণা…

বিমান বাহিনীর আক্রমণ ত্বরান্বিত করে বাংলাদেশের বিজয়

১৯৭১এর মহান মুক্তিযুদ্ধে বাংলাদেশ বিমান বাহিনীর আক্রমণ ছিল অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। বিমান বাহিনীর প্রথম আক্রমণ ছিল ৩ ডিসেম্বর নারায়নগঞ্জের গোদনাইল এবং চট্টগ্রামের তেলের ডিপোতে। পাকিস্তানী বাহিনীর রসদ ও সৈন্য সরবরাহ বন্ধ করে দিয়েছিল সেই আক্রমণ। এছাড়া ঢাকার কাছে ছত্রীসেনা অবতরণেও বিশেষ ভূমিকা রেখেছিল বাংলাদেশ বিমান বাহিনী। ১৯৭১ এর মহান মুক্তিযুদ্ধ চলাকালে ভারতের নাগাল্যান্ডের বিমান ঘাঁটিতে গঠন করা হয় বাংলাদেশ বিমান বাহিনীর প্রথম কিলো ফ্লাইট। ১০ জন পাইলট, ৬৭ জন টেকনিশিয়ান, একটি এলয়েড থ্রি হেলিকপ্টার, একটি অটার ও একটি ডিসি…

বৈষম্যমুক্ত দেশের পথে কতোদূর এগিয়েছে বাংলাদেশ?

যেসব লক্ষ্যকে সামনে রেখে রক্তাক্ত মুক্তিযুদ্ধ, মুক্তিযুদ্ধে বিজয়ের পর দেশ গঠনের সংগ্রাম, তার অন্যতম বৈষম্যমুক্ত একটি বাংলাদেশ। গত ৪৮ বছরে শক্তিশালী হয়েছে দেশের অর্থনীতি, তরতর করে বেড়েছে অর্থনীতির আকার; কিন্তু বৈষম্য কমেছে কতোটা? বৈষম্য পরিমাপে বহুল ব্যবহৃত গিনি সহগ পদ্ধতি বলছে, এই মুহূর্তে আয় বৈষম্য সবচে বেশি; দশমিক চার আট তিন। ২০১০ সালে এটা ছিলো দশমিক চার পাঁচ আট। তবে কি ধীরে ধীরে মধ্যম আয়ের ফাঁদে আটকে পড়া দেশের তালিকায় উঠে যাচ্ছে বাংলাদেশ? বৈষম্যের বঞ্চনা থেকেই বাংলাদেশ নামক রাষ্ট্রের জন্ম ১৯৭১ সালে। ভাত ও ভোটের…