চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

সাংবাদিক দমনের আঁতুড়ঘর হয়ে উঠছে চীন

চীনে সাংবাদিক আটক ও অপহরণের মাত্রা দিন দিন বেড়েই চলছে। সেখানে এখন পর্যন্ত ১২৭ জন সাংবাদিককে আটক করা হয়েছে।

রিপোর্টাস উইদাউট বর্ডারস (আরএসএফ) এর এক প্রতিবেদনে একথা বলা হয়েছে।

বিবিসির এক প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, চীন সাংবাদিকতার বিরুদ্ধে দমনপীড়নের অভিযান চালাচ্ছে এবং সাংবাদিকদের গ্রেপ্তারের বৈধতাও দিয়েছে। সাংবাদিকদের দমনের জন্য সেন্সরশীপ বাতিল, ফোনে বিশেষ অ্যাপ্লিকেশন ডাউনলোড করতে বাধ্য করা, গণমাধ্যম অবরোধ ও গ্রেপ্তার হওয়ার ভয় দেখানো হচ্ছে।

বিজ্ঞাপন

বিশেষ করে উহানের কোভিড-১৯ নিয়ে রিপোর্ট করার পর সাংবাদিকদের উপর এ বিধিনিষেধের মাত্রা আরও বেড়ে যাওয়ার কথা বলা হয়েছে (আরএসএফ) এর প্রতিবেদনে।

করোনাভাইরাসে তৈরী হওয়া সংকট নিয়ে রিপোর্টটি প্রকাশিত হওয়ার পর অন্তত ১০ জন সাংবাদিক ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের দেয়া পোস্টের মন্তব্যকারীকে গ্রেপ্তার করার তথ্য এ প্রতিবেদনে উঠে আসে।

চীনের উহান শহরে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ার সংবাদ সংগ্রহে ছুটে গিয়েছিলেন সাংবাদিক ঝ্যাং। করোনার সংক্রমণ প্রথম প্রকাশ্যে এনে সারা বিশ্বের নজর কেড়েছিলেন তিনি। কীভাবে সেখানে করোনায় আক্রান্ত মানুষের মৃত্যু হচ্ছে সে ছবি তুলে ধরেছিলেন ঝ্যাং। আর সে কারণেই কারাগারে যেতে হয় তাকে। সেখানে অনশন ধর্মঘট করে এখন মৃত্যুর সঙ্গে লড়াই করছেন ৩৮ বছর বয়সী সাংবাদিক ও সাবেক আইনজীবী ঝ্যাং ঝান।

প্রতিবেদনে আরও বলা হয়েছে, চীনা কর্তৃপক্ষ চীনের সংখ্যালঘু উইঘুর মুসলিমদের ওপর নিপীড়ন ও নির্যাতনের চিত্র তুলে ধরার পর সাংবাদিককে আটককে সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে লড়াই বলেও ঘোষণা করে।

বিজ্ঞাপন