নিজ দেশের নাগরিকদের সতর্ক করল যুক্তরাষ্ট্র-যুক্তরাজ্য

বিজ্ঞাপন

আগামীকাল শনিবার ২৮ অক্টোবর রাজধানীতে বিএনপি-আওয়ামী লীগসহ দেশের রাজনৈতিক দলগুলোর ডাকা সমাবেশ সংঘর্ষে রূপ নিতে পারে বলে শঙ্কা প্রকাশ করেছে ঢাকার মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও যুক্তরাজ্য দূতাবাস। তাই নিরাপদে চলাচলের স্বার্থে নিজ নিজ দেশের নাগরিকদের জন্য সতর্কতা জারি করেছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও যুক্তরাজ্য দূতাবাস।

বিজ্ঞাপন

বৃহস্পতিবার ২৬ অক্টোবর রাতে ঢাকায় মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের দূতাবাস ও যুক্তরাজ্যের পররাষ্ট্র দপ্তরের ওয়েবসাইটে এ সতর্কতা বার্তা দেওয়া হয়।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র তাদের বিজ্ঞপ্তিতে জানায়, আগামী ২৮ অক্টোবর ঢাকা এবং সারা বাংলাদেশের অন্যান্য শহরে রাজনৈতিক সমাবেশের পরিকল্পনা করা হয়েছে। যার মধ্যে সবচেয়ে বড় সমাবেশের কর্মসূচি রয়েছে বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদের কাছে এবং কেন্দ্রীয় পুলিশ হাসপাতালের কাছে ভিআইপি রোডে। মার্কিন নাগরিকদের সতর্কতা গ্রহণ এবং মনে রাখা উচিত যে, শান্তিপূর্ণ এসব সমাবেশ সংঘর্ষে পরিণত হতে পারে। তাই বিক্ষোভ এড়াতে এবং কোনো বড় সমাবেশের আশপাশে সতর্কতা অবলম্বন করার আহ্বান জানানো হচ্ছে।

নাগরিকদের যেসব সতর্কতা অবলম্বন করতে বলেছে মার্কিন দূতাবাস, তা হলো- বড় বড় জমায়েত ও বিক্ষোভ এড়িয়ে চলতে হবে, সার্বিক পরিস্থিতি সম্পর্কে সবসময় নজর রাখতে হবে। স্থানীয় সংবাদমাধ্যমে চোখ রাখতে হবে। বিকল্প ভ্রমণ রুট পরিকল্পনায় রাখতে হবে এবং জরুরি যোগাযোগের প্রয়োজনে পরিপূর্ণ চার্জ দেওয়া মোবাইল ফোন সবসময় সঙ্গে রাখতে হবে।

বিজ্ঞাপন

যুক্তরাজ্য সরকারও তাদের নাগরিকদের রাজনৈতিক কর্মসূচি এড়িয়ে চলতে এবং ভ্রমণ সতর্কতা অবলম্বনের আহ্বান জানিয়েছে। যুক্তরাজ্যের পররাষ্ট্র দপ্তরের ওয়েবসাইটে দেওয়া বার্তায় এ কথা বলা হয়।

ভ্রমণ ব্রিটিশ নাগরিকদের সতর্কতা অবলম্বনের আহ্বান জানিয়ে যুক্তরাজ্যের পররাষ্ট্র দপ্তরের বার্তায় বলা হয়েছে, বাংলাদেশে রাজনৈতিক সহিংসতার দীর্ঘ ইতিহাস রয়েছে। ২৮ অক্টোবর ঢাকা এবং সারা দেশে রাজনৈতিক সমাবেশ হওয়ার কথা রয়েছে। বিক্ষোভ ও বিক্ষোভ দ্রুত সহিংস রূপ নিতে পারে।

সরকার পতনের এক দফা দাবিতে ২৮ অক্টোবর ঢাকার নয়াপল্টনে মহাসমাবেশের ঘোষণা দিয়েছে বিএনপি। এর পাল্টায় জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররমের দক্ষিণ ফটকে সমাবেশ করার ঘোষণা দিয়েছে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ। এখনো দুই দলকে ওই দুই জায়গায় সমাবেশের অনুমতি দেয়নি ঢাকা মহানগর পুলিশ (ডিএমপি)। পুলিশের পক্ষ থেকে বাংলাদেশের প্রধান এই দুই রাজনৈতিক দলকে সমাবেশের জন্য বিকল্প জায়গা দেখতে বলা হয়েছে।

এদিকে বিএনপির এই কর্মসূচি সামনে রেখে ইতিমধ্যে বিভিন্ন জেলা থেকে দলটির নেতা–কর্মীরা ঢাকায় আসতে শুরু করেছেন। এর মধ্যে আজ ঢাকার প্রবেশমুখগুলোতে তল্লাশিচৌকি বসিয়ে বাস, মাইক্রোবাস, প্রাইভেট কারসহ রাজধানীমুখী সব গাড়িতে তল্লাশি শুরু করেছেন আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা। গতকাল রাতে ঢাকার বিভিন্ন জায়গায় অভিযান চালিয়ে বিএনপির বেশ কয়েকজন নেতা–কর্মীকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

নাগরিকদের সতর্কতামার্কিন যুক্তরাষ্ট্রযুক্তরাজ্যসমাবেশ