কবিতা থেকে যেভাবে গান হলো ‘বিনায়ক’

গানের মধ্যে গল্প খুঁজে বেড়ান তরুণ সংগীতশিল্পী নাহিদ হাসান। তার প্রকাশিত সবগুলো গানেই এই ছাপ স্পষ্ট। কখনও তিনি নাছোড়বান্দা প্রেমিক হয়ে গেয়েছেন, ‘লোকে পাগল বলুক মাতাল বলুক, আমি তোমার পিছু ছাড়বো না’, আবার কখনও সুরে সুরে বলেছেন ‘আমি তোমার লুকিয়ে রাখা প্রেমিক’।

তবে এবার নাহিদ বেছে নিলেন নাগরিক জীবনের অপূর্ণ ইচ্ছে ও হাহাকারের গল্প। কামরুল ইসলামের কবিতা ‘বিনায়ক’ থেকে গান বানিয়েছেন তিনি।

সুরও করেছেন নাহিদ নিজেই। সংগীতায়োজনে এই সময়কার ব্যস্ততম মিউজিক ডিরেক্টর সাজিদ সরকার। সোমবার (২৬ সেপ্টেম্বর) বিকালে ইউটিউব ও ফেসবুকে ভিডিও আকারে গানটি প্রকাশিত হয়েছে।

কবিতা থেকে কীভাবে গান হলো ‘বিনায়ক’? সে প্রসঙ্গে নাহিদ হাসান বলেন, ‘বছর দুয়েক আগে এই কবিতা যখন প্রথমবার পড়ি, তখন আমার চোখ ভিজে আসে। মনে হলো, এগুলো তো আমার জীবনের কথা, আমার মনের কথা। সিদ্ধান্ত নিয়েছিলাম, এটাকে গান বানাবো।

নাহিদ বলেন, কিন্তু এতো বড় কবিতাকে গানে রূপান্তর করা খুব একটা সহজ ছিলো না। দিনের পর দিন, রাতের পর রাত সময় দিয়েছি। এরপর একদিন আড্ডার মাঝে সাজিদ ভাইকে গানটা শোনালাম। তিনি এতো মুগ্ধ হলেন যে, নিজ থেকে আগ্রহ নিয়ে মুহূর্তেই একটা ডেমো তৈরি করেন। অনেকটা সময় নিয়ে গানটির মিউজিক সাজিয়েছেন। সবশেষে কী দাঁড়ালো, তা তো এখন সবাই শুনতে পাচ্ছেন।

‘বিনায়ক’-এর ভিডিও নির্মাণ করেছেন সোহেল রাজ। গান তথা কবিতার গল্পটিকে পর্দায় ফুটিয়ে তুলেছেন তিনি। তার ভাষ্য, ‘প্রথম দিকে ভিডিও নিয়ে নাহিদের কোনও প্ল্যান ছিলো না। ভেবেছিলো লিরিক্যাল ভিডিও আকারে প্রকাশ করবে। কিন্তু আমি এই অসাধারণ গানটিকে হাতছাড়া করতে চাইনি। প্রচণ্ড শ্রম দিয়ে ভিডিওটা বানিয়েছি। এটা আমার সবচেয়ে এক্সপেরিমেন্টাল নির্মাণ। কারণ এখানে বাস্তব এবং রূপক দুই ধরনের বিষয়বস্তু আছে। সর্বোচ্চ চেষ্টা করেছি গানের গল্পটা তুলে ধরতে। বাকিটা দর্শক-শ্রোতারা বিবেচনা করবেন।’

বিজ্ঞাপন

কবিতাকামরুল ইসলামগাননাহিদ ধ্রুববিনায়কলিড বিনোদনসংগীতশিল্পী