কোহলিকে ছাড়িয়ে যেখানে শীর্ষে বাবর

বাবর আজম নাকি বিরাট কোহলি— যুক্তি-তর্ক ও পরিসংখ্যানের হিসেব-নিকেশ ছাপিয়ে আলোচনা বহুদিনের। সময়ের অন্যতম সেরা দুই ব্যাটারও রেকর্ডবুকে ছাড়িয়ে যাচ্ছেন একে অন্যকে। ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ফর্মে ফেরার ম্যাচে তেমনই এক রেকর্ড নিজের করে নিয়েছেন পাকিস্তান অধিনায়ক, কোহলিকে পেছনে ফেলে আছেন ক্রিস গেইলের নিচে।

ঘরের মাঠে বৃহস্পতিবার রাতে ইংলিশদের বিপক্ষে রেকর্ড গড়ে ১০ উইকেটে জিতেছে পাকিস্তান। ৭ ম্যাচের টি-টুয়েন্টি সিরিজে ১-১ সমতা আসা খেলায় ব্যক্তিগত রেকর্ডের পসরা সাজিয়ে বসেছিলেন বাবর-রিজওয়ান। ২০৩ রানের জুটিতে সেঞ্চুরি হাঁকানো বাবর পেয়েছেন ছোট ফরম্যাটের সবধরনের প্রতিযোগিতা মিলিয়ে দ্বিতীয় দ্রুততম ৮ হাজার রানের দেখা।

টি-টুয়েন্টি ক্যারিয়ারে ২২৭ ম্যাচে ২১৮ ইনিংসে ব্যাট করে রেকর্ডটি গড়েছেন পাকিস্তানের ব্যাটিং মায়েস্ত্রো। সব প্রতিযোগিতা মিলিয়ে ২০ ওভারের খেলায় রেকর্ডটি ছুঁতে কোহলির লেগেছিল ২৪৩ ইনিংস। কোহলিকে ছাড়িয়ে গেলেও তালিকায় শীর্ষে থাকা গেইলকে পেছনে ফেলতে পারেননি বাবর।

টি-টুয়েন্টিতে দ্রুততম আট হাজার রান পূর্ণ করতে মারমুখী ক্যারিবিয়ান তারকা ব্যাটার সময় নিয়েছিলেন ২১৩ ইনিংস। তারচেয়ে ৫ ইনিংস বেশি খেলে তালিকার দ্বিতীয় স্থানে বসেছেন বাবর। ৪৪.৬৯ গড় ও ১২৮.২৯ স্ট্রাইক রেটে ব্যাট করা বাবরের সংগ্রহে এখন ৮,০৮৯ রান। জাতীয় দলে দুটিসহ সেঞ্চুরি আছে ৭টি। ২৭ বর্ষী তারকার ঝুলিতে পঞ্চাশ রানের ইনিংস ৬৭টি।

করাচিতে সিরিজের দ্বিতীয় টি-টুয়েন্টিতে বৃহস্পতিবার ১৯৯ রানের বড় লক্ষ্য পেয়েছিল বাবরের দল। ইংলিশদের সব বোলার ব্যবহার করেও এদিন সাফল্য আনতে পারেননি মঈন আলী। ওপেনিং জুটি ও স্ট্রাইক রেটের চলতি সমালোচনার কড়া জবাব দিয়ে বাবর-রিজওয়ান গড়েছেন টি-টুয়েন্টির ইতিহাসে পাকিস্তানের সর্বোচ্চ রানের জুটি। দল হিসেবে পেয়েছেন রান তাড়ায় সর্বোচ্চ জয়।

বাবর ৬৬ বলে ১১০ রানে অপরাজিত থাকেন, ১১ চার ও ৫ ছয়ে। রিজওয়ান খেলেন ৫১ বলে ৮৮ রানের অপরাজিত ইনিংস, ৫ চার ও ৪ ছক্কায় সাজানো।

শুক্রবার রাতে করাচিতে তৃতীয় টি-টুয়েন্টিতে মুখোমুখি হবে দুদল। সিরিজের প্রথম ম্যাচে ৬ উইকেটে জয় পায় সফরকারী ইংল্যান্ড। ১০ উইকেটের জয় তুলে পরে ১-১এ সমতা এনেছে পাকিস্তান।

বিজ্ঞাপন

ইংল্যান্ডকোহলিগেইলটি-টুয়েন্টিপাকিস্তানবাবরলিড স্পোর্টস