৫ বাংলা ছবিতে মগ্ন দর্শক, সিনেপ্লেক্সে কোনঠাসা ভিনদেশি ছবি

করোনা পরবর্তী চলচ্চিত্র ইন্ডাস্ট্রি চাঙা করে রোজার ঈদে মুক্তি পাওয়া ছবি ‘গলুই’ ও ‘শান’। মূলত এই দুই ছবি দিয়ে হাউজফুলের স্বাদ পায় দেশের প্রেক্ষাগৃহ।

কোরবানির ঈদে দর্শকদের প্রেক্ষাগৃহমুখী করার সেই জোয়ার বহুগুন বাড়িয়ে দেয় ‘পরাণ’। তার একমাস পর মুক্তি পাওয়া ‘হাওয়া’ ছবিটিও স্পর্শ করে সাফল্যের চূড়া!

দর্শকদের হলে ফেরার এই জোয়ার সবচেয়ে বেশি চোখে পড়ে ঢাকার অভিজাত থিয়েটার স্টার সিনেপ্লেক্সে। এর সবগুলো শাখাতেই দর্শক উন্মাদনা চোখে পড়ার মতো। কর্তৃপক্ষ জানায়, গত আড়াইমাস ধরে বাংলা ছবির জোয়ারে ভিনদেশি ছবিগুলো এখন কোনঠাসা! দেশের ছবিগুলো সবচেয়ে বেশি শো পাচ্ছে। ব্যবসাও করছে।

মুক্তির ৭০দিন পার হলেও স্টার সিনেপ্লেক্সে ‘পরাণ’ দেখতে ভীড় করছেন দর্শক। এরসাথে ‘হাওয়া’র জোয়ার তো চলছেই। এই দুটি পুরনো ছবির পাশাপাশি গেল শুক্রবার মুক্তি পাওয়া ‘বীরত্ব’ দ্বিতীয় সপ্তাহেও চলছে। এরসাথে যোগ হয়েছে চলতি সপ্তাহে মুক্তি পাওয়া দুই ছবি ‘অপারেশন সুন্দরবন’ ও ‘বিউটি সার্কাস’।

টানা পাঁচটি ছবি দিয়ে জমজমাট হয়ে উঠেছে স্টার সিনেপ্লেক্স। মুক্তি পাওয়া অপারেশন সুন্দরবনের পরিচালক দীপংকর দীপন, অভিনেতা সিয়াম, রোশান, অভিনেত্রী নুসরাত ফারিয়া অনেকেই তাদের ছবির প্রচারে আসেন। তাদের পেয়ে দর্শকরা আনন্দে মেতে ওঠেন। এছাড়াও ছবি দেখতে আসেন সাবেক পুলিশ প্রধান বেনজীর আহমেদ সহ একাধিক র‍্যাব কর্মকর্তা।

শুক্রবার সন্ধ্যায় সরেজমিনে গিয়ে স্টার সিনেপ্লেক্সে এই চিত্র দেখা যায়। আরও দেখা যায়, সব বয়সী দর্শকদের আনাগোনায় মুখরিত বসুন্ধরার স্টার সিনেপ্লেক্স শাখা।

অনেকেই পরিবার নিয়ে পছন্দের ছবি দেখতে না পেরে অন্য ছবি দেখছেন। আবার কেউ কেউ টিকেট না পেয়ে ফিরে যাচ্ছেন! কয়েকজন দর্শকদের সাথে আলাপ করে বোঝা যায়, বাংলা ছবির প্রতি চাহিদা বেশি!

তারা জানান, প্রচারণায় আকৃষ্ট হয়ে ছবি দেখতে এসেছেন। বেশিরভাগ দর্শকই অগ্রীম টিকেট কেটে ছবি দেখতে এসেছেন।

এরআগে সকাল থেকেই স্টার সিনেপ্লেক্সের বিভিন্ন শাখাগুলোতে ঢুঁ দিতে দেখা গেছে ‘বিউটি সার্কাস’ এর পুরো টিমকে। এদিন বসুন্ধরায় সকালের শো’তে দর্শকের সাথে বসে সিনেমাটি উপভোগ করেন জয়া আহসান, এবিএম সুমন সহ ছবি সংশ্লিষ্ট অনেকেই। প্রতিটি শো এদিন ছিলো দর্শকে পূর্ণ।

কথা হয় স্টার সিনেপ্লেক্সের প্রধান বিপণন কর্মকর্তা মেজবাহ উদ্দিনের সঙ্গে। তিনি চ্যানেল আই অনলাইনকে বলেন, সিনেপ্লেক্সের সবগুলো শাখায় বাংলা ছবি ভালো চলছে। মুক্তির প্রথমদিনে ‘বিউটি সার্কাস’ ও ‘অপারেশন সুন্দরবন’-এ দারুণ আগ্রহ দর্শকদের দেখেছি।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, সিনেপ্লেক্সের সবগুলো শাখায় মুক্তির প্রথমদিনে ‘অপারেশন সুন্দরবন’র বেশিরভাগ শো হাউজফুল গেছে। বসুন্ধরা সিটিতে পাঁচটি শো-এর চারটিই ছিল হাউজফুল। অন্যদিকে, ‘বিউটি সার্কাস’ শো কম পেলেও দিনভর দারুণ দর্শক টেনেছে।

সিনেপ্লেক্সের এই কর্মকর্তা বলেন, একসাথে পাঁচ ছবির প্রদর্শন ও দর্শকদের বাংলা ছবির প্রতি দর্শকদের যে আগ্রহ দেখছি, এমনটা আগে দেখা যায়নি। দর্শকদের চাহিদায় বিদেশি ছবির শো কমিয়ে দেশিয় ছবি প্রাধান্য পাচ্ছে। বাংলা ছবির সুদিন ফেরাতে এটি ইতিবাচক দিক।

বিজ্ঞাপন

অপারেশন সুন্দরবনজয়া আহসানদীপংকর দীপনপরাণবিউটি সার্কাসবীরত্বলিড বিনোদনশানসিনেপ্লেক্সসিনেমাহাওয়া