ভাইরাল ‘জামাল কুদু’ গানের আদি উৎস কোথায়?

ইনস্টাগ্রাম, ফেসবুক কিংবা হোক টিকটক বা টুইটার- মোবাইল হাতে নিলেই বেজে উঠছে ‘জামাল কুদু’ নামের এক গান! রিল হোক কিংবা ভিডিও, সবখানেই এই গানের আধিপত্য। হঠাৎ সর্বত্র ছড়িয়ে যাওয়া এই গানের রহস্য কী?

সম্প্রতি ছড়িয়ে যাওয়া গানটি মূলত সদ্য মুক্তি পাওয়া বলিউডের তুমুল আলোচিত ও সমালোচিত ছবি ‘অ্যানিমেল’ এর! ছবিতে ববি দেওলের এন্ট্রি সিনটি শুরু হয় এই গানের মাধ্যমে। তবে ‘জামাল কুদু’ নামে যে গানটি ভাইরাল হলো, সেটি বহু পুরনো গান! তারচেয়েও বড় কথা, ‘জামাল কুদু’ ভারতীয় গান নয়। মূল গানটি ইরানের ঐতিহ্যবাহী একটি গান।

গেল সপ্তাহে ভারতীয় গানের কোম্পানি টি-সিরিজ তাদের ইউটিউবে ‘অ্যানিমেল’ ছবির এই গানটির লিরিক্যাল ভিডিও হিসেবে প্রকাশ করে। গানটি হর্ষবর্ধন রামেশ্বর গাইলেও এর কথা কিংবা সুরের জায়গায় লেখা হয়েছে ইরানের ঐতিহ্যবাহি বান্ডারি গানের কথা।

চার দিন আগে ‘জামাল কুদু’ গানটি টি-সিরিজের ব্যানারে প্রকাশিত হলেও ১ ডিসেম্বর ‘অ্যানিমেল’ মুক্তির পর থেকেই গানটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে যায়।

গানটির আদি উৎস খুঁজতে গিয়ে জানা যায়, ইরানের লোকসংগীত হিসেবে গানটির নাম ‘জামাল জামালু’। ইতিহাস বলছে, ১৯৫০ সালের দিকে দক্ষিণ ইরানে একদল তরুণী নিজেদের স্কুলে প্রথমবার এই গানটি গেয়েছিলেন। এরপর থেকে ধীরে ধীরে খারাজেমি গার্লস হাই স্কুলে গাওয়া এই গানটি হয়ে ওঠে পারস্য সংস্কৃতির অঙ্গ! ইরানের বিয়ের অনুষ্ঠানেও এই গান গাওয়ার রীতি রয়েছে।

‘অ্যানিমেল’ ছবিতে এই গানটি ব্যবহারের ফলে বিশ্বব্যাপী নতুন করে ছড়িয়ে যায়। বিভিন্ন ভিডিও প্লাটফর্মগুলোতে ঢুঁ দিয়ে দেখা যায়, ১০-১২ বছর আগে আপলোড হওয়া ‘জামাল জামালু’ গানটির ভিউ যেগুলোতে কয়েক হাজার ছিলো, ‘অ্যানিমেল’ ছবিতে ব্যবহারের ফলে নতুন করে গানটি ভাইরাল হওয়ায় তা কয়েক লাখে উন্নিত হয়েছে!

এমনকি গানটির আদি উৎস খুঁজতে বিভিন্ন প্লাটফর্মের সার্চ ইঞ্জিনে ট্রেন্ডিংয়ে ‘জামাল জামালু অরিজিনাল’! শুধু সাধারণ মানুষই নয়, ‘জামাল কুদু’ গানটির সাথে রিল কিংবা ভিডিও করে আপলোড করতে দেখা গেছে ভারতীয় শোবিজ তারকা থেকে খেলোর, সোশাল সেলেবরাও। যে ঢেউ এসে লেগেছে বাংলাদেশেও। ইউটিউবে ‘সংগীত’ বিভাগে গানটি বাংলাদেশে ট্রেন্ডিংয়ে শীর্ষ স্থানে রয়েছে। –টাইমস অব ইন্ডিয়া

অ্যানিমেলইরানি গানজামাল কুদুজামাল জামালুববি দেওলবলিউডভাইরালভাইরাল গানলিড বিনোদনলোকগানসিনেমার গান