চাল বিতরণে কোন অনিয়ম হলে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা: খাদ্যমন্ত্রী

খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার বলেছেন, সারা দেশে খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির মাধ্যমে ৫০ লাখ এবং ও এম এস কর্মসূচির মাধমে প্রান্তিক জনগোষ্ঠির এক কোটি মানুষের মধ্যে চাল বিতরণ করা হবে। এ সুবিধার আওতায় দেড় কোটি পরিবারের ৬ কোটি সদস্য উপকৃত হবে।

বৃহস্পতিবার সকালে নারায়নগঞ্জ জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে সারাদেশে খাদ্য বান্ধব কর্মসূচি এবং চাষাড়ায় ও এম এসের মাধ্যমে নির্ধারিত দরে চাল বিক্রির কার্যক্রম উদ্বোধনের সময় একথা বলেন।

তিনি জানান, খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির চাল ১৫টাকা কেজি এবং ও এম এসের চাল ত্রিশ টাকা কেজি দরে বিক্রি করা হবে। পাশাপাশি টিসিবির পণ্য বিক্রি করা হবে। দেশে কোন চালের কোন সংকট নেই। এব্যাপারে কেউ কারসাজি করলে সহ্য করা হবেনা।

মন্ত্রী বলেন, দেশে ২৩৬০জন ডিলারের মাধ্যমে ২ টন করে চাল বিক্রি করা হবে। সরকার ইতিমধ্যে চালের বাজার দর নিয়ন্ত্রণের জন্য ৫% শুল্ক হার কমানো হয়েছে।

তিনি বলেন, চাল বিতরণে কোন ডিলার যদি অবৈধ কাজ করে তাদের বিরুদ্ধে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়া হবে।

পরে খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার কার্ডধারীদের মধ্যে নির্ধারিত মূল্যে চাল বিতরণ করেন।

এ সময় নারায়নগঞ্জ সিটি করপোরেশনের মেয়র ডা,সেলিনা হায়াত আইভি, খাদ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক সাখাওয়াত হোসেন, জেলা প্রশাসক মঞ্জুরুল হাফিজ, পুলিশ সুপার গোলাম মোস্তফা রাসেলসহ খাদ্য মন্ত্রণালয়ের উর্ধতন কর্মকর্তা উপস্থিত ছিলেন।

 

 

চাল বিতরণটিসিবি’র পণ্য