উপভোগ নয়, লড়াই করেই ফাইনালে যেতে চায় বাংলাদেশ

‘আগেই বলেছিলাম, সেমিফাইনালে খেলা আমাদের প্রথম লক্ষ্য। তবে যখন সেমিতে উঠবেন, তখন লড়াইয়ের মানসিকতাই থাকতে হবে। কীভাবে ফাইনালে যাব, সেদিকেই দৃষ্টি রাখছি। ব্যাপারটা এমন নয় যে লক্ষ্য পূরণ হয়েছে তাই সেমিফাইনাল উপভোগ করবো বা এমন কোনো চিন্তা নিয়ে কাল মাঠে নামব। নিজেদের সেরাটা দিয়েই বাংলাদেশ ফুটবল দল ফাইনালে খেলার চেষ্টা করবে।’

কুয়েতকে ঠেকিয়ে বঙ্গবন্ধু সাফ চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালে যেতে সবভাবে প্রস্তুত বাংলাদেশ, সেটাই এভাবে জানান দিলেন হাভিয়ের ক্যাবরেরা। সেমির আগেরদিন শুক্রবার ম্যাচপূর্ব সংবাদ সম্মেলনে প্রতিপক্ষকে চমকে দেয়ার কথাও কোচের কণ্ঠে এসেছে। ম্যাচ শুরু শনিবার বাংলাদেশ সময় দুপুর ৩টা ৩০ মিনিটে।

বাংলাদেশ অধিনায়ক জামাল ভূঁইয়াকে সঙ্গে নিয়ে সংবাদ সম্মেলনে এসেছিলেন ক্যাবরেরা। ইতিবাচক মনোভাবে থাকা দল মানসিক ও শারীরিকভাবে প্রস্তুত আছে বলে জানালেন স্প্যানিশ কোচ। ছাড় না দেয়ার কথাও জানিয়ে দিলেন।

‘প্রতিপক্ষকে নিয়ে সবসময় বিশ্লেষণ করি। এভাবেই ম্যাচের প্রস্তুতি নেই। তাদের শক্তির পাশাপাশি দুর্বলতা দেখে সুযোগ নিতে হবে। কালও এমনই হবে। অবশ্যই নিজেদের শক্তির উপর আস্থা রাখতে হবে। তাদের চমকে দেয়ার চেষ্টা থাকবে। আমি আশাবাদী, শারীরিকভাবে তাদেরকে মোকাবিলা করতে পারবো।’

‘শারীরিকভাবে রিকভার করার জন্য ম্যাচের আগে ৭২ ঘণ্টা সময় পেয়েছি। আমরা ম্যাচে ফোকাস রাখছি। সেরাটা দিয়েই যতটা সম্ভব চেষ্টা করবো। আজ আমাদের ট্রেনিং সেশন আছে। কুয়েতের বিপক্ষে আগামীকালের সেমিফাইনাল নিয়ে সবাই রোমাঞ্চিত। বড় লড়াই হতে চলেছে। আমরা তাদের নিয়ন্ত্রণে রাখার চেষ্টা করবো। সমানে সমান লড়াই হবে। আমরা কাল জিততে চাই, এটাই লক্ষ্য।’

লেবাননের কাছে হারলেও মালদ্বীপ ও ভুটানের বিপক্ষে জয়ে সেমির টিকিট কাটে লাল-সবুজের দল। গ্রুপপর্বের শেষ দুই ম্যাচে জিতলেও শুরুতেই গোল হজম করে চাপে পড়তে হয়েছিল। দুর্দান্ত প্রত্যাবর্তনে দুই ম্যাচেই ৩-১ গোলের জয়ে মাঠ ছাড়ে জামাল ভূঁইয়ার দল।

কুয়েতের বিপক্ষে শুরুতে গোল হজমের পুনরাবৃত্তি চাইছেন না ক্যাবরেরা। বললেন, ‘আগের ম্যাচের অভিজ্ঞতা কাজে লাগিয়ে এমন পরিস্থিতি এড়াতে হবে।’

‘দল ১-০তে পিছিয়ে থাকার পর যেভাবে প্রত্যাবর্তনের মানসিকতা দেখিয়েছিল, তা দারুণ। বিশেষভাবে লেবাননের বিপক্ষে হারের পর এটা কঠিন ছিল। আমরা আরও গোলের সুযোগ সৃষ্টি করেছিলাম, এটা ইতিবাচক দিক। তবে অবশ্যই আমাদের গোলের সুযোগ আরও কাজে লাগানো উচিৎ ছিল।’

গোড়ালির চোটে ভুটানের বিপক্ষে খেলতে পারেননি ডিফেন্ডার তারেক কাজী। তার ফেরার সম্ভাবনা নিয়ে বাংলাদেশ কোচ বললেন, ‘আজকের ট্রেনিং সেশনের পর তার অবস্থা বুঝতে পারব। দেখি কী হয়। খেলতে না পারলে অন্যকেউ খেলবে, যেমন ভুটানের বিপক্ষে খেলেছিল। আমরা চিন্তিত নই।’

বিজ্ঞাপন

কুয়েতক্যাবরেরাবাংলাদেশলিড স্পোর্টস