শপথ নিলেন নতুন দুই মন্ত্রী, প্রতিমন্ত্রী

মন্ত্রিসভায় নতুন সদস্য হিসেবে একজন মন্ত্রী এবং একজন প্রতিমন্ত্রীকে শপথ বাক্য পাঠ করিয়েছেন রাষ্ট্রপতি মো. আব্দুল হামিদ।

নতুন করে মন্ত্রী হিসেবে শপথ নেওয়া ইমরান আহমেদ বর্তমান মন্ত্রিসভায় আগে থেকেই প্রবাসীকল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী ছিলেন। এখন থেকে তিনি একই মন্ত্রণালয়ের পূর্ণমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন।

আর আওয়ামী লীগের মহিলাবিষয়ক সম্পাদক এবং সংরক্ষিত মহিলা আসনের সংসদ সদস্য ফজিলাতুন্নেছা ইন্দিরা প্রতিমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিয়েছেন। তবে তাকে এখনো কোনো মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব দেওয়া হয়নি।

শনিবার সন্ধ্যায় বঙ্গভবনে রাষ্ট্রপতি এ দুজনকে শপথ বাক্য পাঠ করান। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন, মন্ত্রিসভার সদস্য, সামরিক ও বেসারমরিক গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিরা এসময় সেখানে উপস্থিত ছিলেন।

শপথ অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম।

গত ৩০ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ নিরঙ্কুশ বিজয় অর্জনের মাধ্যমে টানা তৃতীয়বারের মতো সরকার গঠনের সুযোগ পায়। গত ৭ জানুয়ারি চতুর্থবারের মতো প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ নেন দলটির সভাপতি শেখ হাসিনা।

প্রতিমন্ত্রী হিসেবে শপথ নেন ফজিলাতুন্নেছা ইন্দিরা

ওই দিনই ৪৭ সদস্যের নতুন মন্ত্রিসভা শপথ গ্রহণ করে। এদের মধ্যে মন্ত্রী ২৪ জন, প্রতিমন্ত্রী ১৯ ও উপ-মন্ত্রী তিনজন।

নতুন মন্ত্রি পরিষদ গঠনের ৫ মাসের মাথায় গত ১৯ মে প্রথমবারের মতো তাতে পরিবর্তন আনা হয়। স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী তাজুল ইসলামকে শুধু স্থানীয় সরকারের মন্ত্রী করা হয়, স্বপ্ন ভট্টাচার্য্য হন পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় প্রতিমন্ত্রী।

ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্য প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বে থাকা মন্ত্রী মোস্তফা জব্বারকে শুধু ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী করা হয়। আর জুনাইদ আহমেদ পলককে রাখা হয় তথ্য ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্বে।

এছাড়াও স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী মুরাদ হাসানকে তথ্য মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী করা হয়।

একাদশ জাতীয় সংসদমন্ত্রী পরিষদমন্ত্রী পরিষদ রদবদল