বিশ্বকাপ শেষেই অবসর নিতে চেয়েছিলেন মাশরাফী

মাশরাফী বিন মোর্ত্তজা কখন থামবেন- এ প্রশ্নের সম্ভাব্য উত্তর ছিল ২০১৯ বিশ্বকাপ শেষে। সবাইকে ভুল প্রমাণ করে ওয়ানডে অধিনায়ক দীর্ঘ করেছেন ক্যারিয়ার। এবছরের মার্চে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে সিরিজ খেলে ছেড়েছেন নেতৃত্ব। সঙ্গে বলেছেন, খেলোয়াড় হিসেবে চেষ্টা চালিয়ে যাবেন জাতীয় দলে টিকে থাকতে।

মাশরাফী চেয়েছিলেন বিশ্বকাপের শেষ ম্যাচটা খেলেই বিদায় বলবেন ক্রিকেটকে। কিন্তু বিসিবির অনুরোধে সেসময় অবসর নিতে পারেননি। পরে ভাবনার বদল হওয়ায় খেলা চালিয়ে নেন টাইগার পেসার।

বুধবার রাতে ফেসবুক লাইভ ‘নট আউট নোমান’ অনুষ্ঠানে এসে মাশরাফী বলেন, ‘আমার অবসরের ঘটনা আগেও একটা ঘটেছে, টি-টুয়েন্টিতে। আপনাদের (মিডিয়া) সামনে এসে আমি কারও কথা বলিনি। তখন তো সবকিছু আমার পক্ষেই ছিল, তাও আমি কিছু বলিনি। এখন তো কিছুই আমার পক্ষে নেই, তাই এতকিছু বলার নেই। তবে একটা কথা বলবো, বিশ্বকাপের শেষ ম্যাচে অবসর নিতে চেয়েছিলাম। হ্যাঁ, চেয়েছিলাম। এটা যদি কেউ অস্বীকার করতে পারে, এমনকি ক্রিকেট বোর্ডের কেউও অস্বীকার করতে পারে, তাহলে আমার সঙ্গে সামনাসামনি কথা বলতে হবে, আলাদা নয়। একসঙ্গে বসে কথা বলতে হবে।’

‘আমি বিশ্বকাপের শেষ ম্যাচেই শেষ করতে চেয়েছিলাম। তখন এমন একটা কথা এসেছিল যে, এভাবে না হোক, সুন্দরভাবে হোক (অবসর)। দেশে আসার পর যেটা হয়েছে, ঘরের মাঠ থেকে যেন অবসর নিতে পারি সেজন্য জিম্বাবুয়েকে ২ কোটি খরচ করে আনা, একটা ম্যাচ আয়োজন করা, তখন আমার মনে হয়েছে, মাশরাফী হয়তো মাঠ থেকে অবসর নেয়া ডিজার্ভ করে। কিন্তু একটা ম্যাচের জন্য ২ কোটি টাকা মাশরাফী ডিজার্ভ করে না।’

‘যেখানে প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটের এই অবস্থা, সেখানে একটা ম্যাচের জন্য এত টাকা তার প্রাপ্য নয়। তাই আমি তখন অবসর নেইনি। এরপর হয়তো আস্তে আস্তে চিন্তা-ভাবনায় পরিবর্তন এসেছে।’

শেয়ার করুন:
বাংলাদেশ ক্রিকেটবিশ্বকাপ-২০১৯বিসিবিমাশরাফীলিড স্পোর্টস