নোয়াখালীতে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ যুবক নিহত

নোয়াখালী পৌরসভা এলাকায় গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) সাথে কথিত বন্দুকযুদ্ধে ইব্রাহিম খলিল প্রকাশ ভান্ডারি রুবেল (৩২) নামে এক যুবক নিহত হয়েছে।

পুলিশের দাবি নিহত যুবক একজন মাদক ব্যবসায়ী। এ ঘটনায় ডিবির ওসিসহ পাঁচ পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন।

বুধবার দিবাগত রাত তিনটার দিকে রেল লাইন সংলগ্ন পশ্চিম মাহদুরি এলাকায় চাপা মিয়ার বাগানে এ ‘বন্দুকযুদ্ধের’ ঘটনা ঘটে। নিহত ভান্ডারি রুবেল আইয়ুবপুর এলাকার বাসিন্দা।

ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ একটি এলজি, একটি পাইপগান, ছয় রাউন্ড গুলি, দুইটি চাইনিজ কুড়াল, একটি ছোরা ও তিনটি রামদা উদ্ধার করেছে।

বৃহস্পতিবার ভোরে নিহতের লাশ উদ্ধার করে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়।

আহত পুলিশ সদস্যরা হলেন; ডিবির ওসি কামরুজ্জামান সিকদার, উপ-পরিদর্শক সায়েদ মিয়া, ওমর ফারুক, সহকারি উপ-পরিদর্শক মাসুদ আলম ও কনস্টেবল দেলোয়ার হোসেন।

আহতরা নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

গোয়ান্দা পুলিশের দেওয়া তথ্য মতে; বুধবার সন্ধ্যায় রেল লাইন এলাকায় অভিযান চালিয়ে ৬০ পিস ইয়াবাসহ একাধিক মামলার আসামি ও মাদক কারবারি ইব্রাহিম খলিল প্রকাশ ভান্ডারি রুবেলকে গ্রেপ্তার করে নোয়াখালী গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবির) একটি দল। পরে তার কাছে অস্ত্র আছে এমন তথ্যের ভিত্তিতে রাতে তাকে নিয়ে পশ্চিম মাহদুরি চাপা মিয়ার বাগানে অভিযান চালায় পুলিশ। পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে রুবেলের সহযোগিরা তাকে ছিনিয়ে নিতে পুলিশের উপর গুলি চালালে আত্মরক্ষার্থে পুলিশও পাল্টা গুলি চালায়। এতে দুই পক্ষের মধ্যে গুলি বিনিময়ের ঘটনা ঘটে। এসময় গুলিবিদ্ধ হয়ে রুবেল নিহত ও পাঁচ পুলিশ সদস্য আহত হয়। ঘটনাস্থল থেকে অস্ত্র ও গুলি উদ্ধার করা হয়েছে।

এই ঘটনায় ‘আহত’ জেলা গোয়েন্দা পুলিশের ওসি কামরুজ্জামান সিকদার বলেন: ‘নিহত সন্ত্রাসী রুবেল ভান্ডারির বিরুদ্ধে হত্যা, ডাকাতিসহ বিভিন্ন ঘটনায় ১৬টি মামলা রয়েছে।’

শেয়ার করুন:
নোয়াখালীবন্দুকযুদ্ধ