দ্বিতীয় দিনের ধর্মঘটে অচল ফ্রান্স

ফরাসি প্রেসিডেন্টে ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁর সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে ডাকা ধর্মঘট দ্বিতীয় দিনেও চলমান রয়েছে। শুক্রবারও দেশটি কার্যত অচল হয়ে পড়েছে। দেশের বিভিন্ন পেশার কর্মচারিদের পেনশন কমানোর সিদ্ধান্তে ধর্মঘট ডাক দিয়েছে বিভিন্ন কর্মী ইউনিয়ন।

৮ লাখের বেশি লোক রাস্তায় নেমে বিক্ষোভ করেছে। বেশ কয়েকটি শহরে সহিংস সংঘর্ষের খবর পাওয়া গেছে। এই ধর্মঘটে যোগ দেয় স্কুল, পরিবহন কর্মী, পুলিশ, আইনজীবী, হাসপাতাল ও বিমানবন্দরের কর্মীরাও।

ফ্রান্সের বিমানবন্দরগুলি থেকে এক-পঞ্চমাংশ ফ্লাইট বাতিল করা হয়েছে। অচল হয়ে পড়ে বাস, মেট্রো ও শহরতলি, দূরপাল্লার ট্রেন চলাচল।

বিবিসি বলছে, বছরের সর্ববৃহৎ ধর্মঘট এটি। দেশব্যাপী ধর্মঘটে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এবং দেশের সর্বত্র যাতায়াত ব্যবস্থা মারাত্মকভাবে ব্যাহত হচ্ছে।

প্যারিসের বাস ও মেট্রো চালকরা জানিয়েছেন, তাদের এই ধর্মঘট অন্তত সোমবার পর্যন্ত চালু থাকবে।

রয়টার্সের খবরে বলা হয়েছে, ধর্মঘটে অন্যান্য ইউনিয়ন যোগ দেওয়ার ব্যাপারে পরিকল্পনা করছে।  আজ এই বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিবে তারা।

বহু ইউনিয়ন হুমকি দিয়েছে, প্রেসিডেন্ট তার সিদ্ধান্ত না বদলানো পর্যন্ত প্রতিবাদ চলবে।

শেয়ার করুন:
ধর্মঘটফ্রান্স