ডান্ডাবেড়ি পরিয়ে যুবদল নেতার চিকিৎসা: হাইকোর্টের আদেশ সোমবার

ডান্ডাবেড়ি পরিয়ে হৃদরোগে আক্রান্ত এক যুবদল নেতার চিকিৎসার ঘটনায় করা রিটের শুনানি হয়েছে রোববার দুপুর দুইটায়। আগামীকাল আবার শুনানির পর আদেশ দিবেন হাইকোর্ট।

রিটটি ফাইল করার পর সাবেক অ্যাটর্নি জেনারেল ও জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের সভাপতি অ্যাডভোকেট এ জে মোহাম্মদ আলী রোববার শুনানির জন্য সময় চান। এরপর বিচারপতি মোস্তফা জামান ইসলাম ও বিচারপতি মো. আতাবুল্লাহ’র সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ দুপুর দুইটায় বিষয়টি শুনানি জন্য নির্ধারণ করেন। সে অনুযায়ী দুপুরে রিটের পক্ষে শুনানি করেন অ্যাডভোকেট এ জে মোহাম্মদ আলী। তবে রাষ্ট্র পক্ষে ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল তুষার কান্তি রায় আগামীকাল শুনানি করতে চান। এরপর আদালত আদেশের জন্য সোমবার দিন ধার্য করেন।

“ডান্ডাবেড়ি পরিয়ে হৃদরোগে আক্রান্ত যুবদল নেতাকে চিকিৎসা” শিরোনামে বিভিন্ন পত্রিকায় প্রকাশিত প্রতিবেদন বুধবার বিচারপতি মোস্তফা জামান ইসলাম ও বিচারপতি মো. আতাবুল্লাহ’র সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চের নজরে আনেন সাবেক অ্যাটর্নি জেনারেল ও জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের সভাপতি অ্যাডভোকেট এ জে মোহাম্মদ আলী। এসময় তার সাথে ছিলেন বিএনপির আইন সম্পাদক ব্যারিস্টার কায়সার কামাল, সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সাবেক সম্পাদক ব্যারিস্টার বদরুদ্দোজা বাদল, ব্যারিস্টার রুহুল কুদ্দুস কাজল ও জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের সুপ্রিম কোর্ট ইউনিটের সাধারণ সম্পাদক গাজী কামরুল ইসলাম সজল।

একপর্যায়ে অ্যাডভোকেট এ জে মোহাম্মদ আলী ওইদিন হাইকোর্টের কাছে এবিষয়ে সুয়ো মোটো আদেশ চান। তখন হাইকোর্ট বলেন আমরা এবিষয়ে সুয়ো মোটো আদেশ দেবো না। আপনারা চাইলে (রিট) ফাইল করে আসতে পারেন।’ সে ধারাবাহিকতায় হাইকোর্টে একটি রিট করা হয় ওই যুবদল নেতার স্ত্রী।

যুবদল নেতাহাইকোর্ট