চুয়াডাঙ্গায় ‘বন্দুকযুদ্ধে’ মাদক ব্যবসায়ী নিহত

চুয়াডাঙ্গার দামুড়হুদা উপজেলার জয়রামপুর কাঁঠালতলা গ্রামে পুলিশ ও মাদক ব্যবসায়ীদের মধ্যকার গোলাগুলিতে রোকন (৩৫) নামে এক যুবক নিহত হয়েছেন। বৃহস্পতিবার রাতে গ্রামের একটি বাঁশবাগানে এই গোলাগুলির ঘটনাটি ঘটে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

বিজ্ঞাপন

পুলিশের দাবি, নিহত রোকন মাদক ব্যবসায়ী ও ডাকাত।

ঘটনাস্থল থেকে একটি দেশি এলজি, দু’টি কার্তুজ, এক বস্তা ফেনসিডিল ও দু’টি রামদা উদ্ধারের দাবি করেছে পুলিশ।

দামুড়হুদা মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) সুকুমার বিশ্বাস বলেন, বৃহস্পতিবার রাত আনুমানিক দেড়টার দিকে উপজেলার জয়রামপুর কাঁঠালতলা এলাকার একটি বাঁশবাগানে দুই দল সন্ত্রাসীদের মধ্যে গোলাগুলি চলছে, এমন খবর পেয়ে পুলিশের উপ-পরিদর্শক মিল্টনের নেতৃত্বে একটি টহল দল ঘটনাস্থলে পৌঁছায়। এ সময় দুই পক্ষই পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছুড়লে পুলিশও পাল্টা গুলি ছোড়ে।

প্রায় আধঘণ্টা ধরে গুলি বিনিময়ের পর মাদক কারবারিরা পালিয়ে যায়। এ সময় ঘটনাস্থল থেকে রোকন নামে এক যুবককে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় এবং ওই ঘটনাস্থল থেকে একটি দেশি এলজি, দু’টি কার্তুজ, এক বস্তা ফেনসিডিল ও দু’টি রামদা উদ্ধার করা হয়।

গুলিবিদ্ধ রোকনকে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য নেয়া হলে করা সেখানকার কর্তব্যরত চিকিৎসক মশিউর রহমান তাকে মৃত বলে ঘোষণা করেন।

ময়নাতদন্তের জন্য তার মৃতদেহ সদর হাসপাতালের মর্গে রাখা হয়েছে।

ওসি জানান, নিহত রোকনের বিরুদ্ধে মাদক কারবার ও চোরাচালানের ৪টি, ডাকাতি ৩টি, অপহরণ ১টি, চাঁদাবাজির ১টিসহ অন্তত ১০টি মামলা রয়েছে। এ ব্যাপারে দামুড়হুদা মডেল থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।

চুয়াডাঙ্গাচুয়াডাঙ্গা-বন্দুকযুদ্ধবন্দুকযুদ্ধ