‘ঘরে শান্তি লাগে না!’ র‍্যাব কমান্ডারের ভিডিও টক অব দ্য কান্ট্রি

কাগজপত্রবিহীন চোরাই মোটরসাইকেল চড়ে ঘুরতে বের হয়েছিলেন তিন বন্ধু। এই করোনাভাইরাসের ডামাডোলের মধ্যেও সামাজিক দূরত্ব মেনে চলার সরকারি নির্দেশনার প্রতি তাদের থোড়াই কেয়ার। গাড়িতে নম্বরপ্লেট নেই, আরোহীদের মাথায় নেই হেলমেটের বালাইও।

ঘটনাস্থল মৌলভীবাজার জেলার শ্রীমঙ্গল পৌর শহরের কালিঘাট রোড এলাকা। ঘটনাচক্রে সেখানে দায়িত্বরত ছিলেন র‍্যাব-৯ শ্রীমঙ্গল ক্যাম্পের কমান্ডার এএসপি মো. আনোয়ার হোসেন শামীম।

আইনভঙ্গ দেখে তিনি মোটরসাইকেলটিকে থামার সঙ্কেত দিলে চালক সঙ্কেত অমান্য করে দ্রুত পালিয়ে যেতে থাকে। কিন্তু হাল ছেড়ে দেন নি র‍্যাব কমান্ডার। ৪/৫ কিলোমিটার ধাওয়া করে চালকসহ মোটরসাইকেলটি আটক করেন।

তবে দুইজন মোটরসাইকেল থেকে নেমে দ্রুত পালিয়ে যায়। আটকের পর বাইরে আসার কারণ জিজ্ঞেস করলে আটককৃত কিশোর অদ্ভুতুড়ে উত্তর দিতে থাকে। ঘরে শান্তি লাগে না এবং ভাল লাগে না মর্মে দাবি করে সে।

পরবর্তীতে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে নিজের আইডি ‘Md. Anwar Hossan’ এবং নিজের পেজ ‘Shamim Anwar’ এ এই বিষয়ে একটি ভিডিও পোস্ট করেন এএসপি আনোয়ার হোসেন শামীম।

যেখানে দেখা যায়, দুপুরের রোদের মধ্যে রাস্তায় ঘুরেঘুরে বিভিন্ন বয়সী কিশোর- তরুণদেরকে বুঝিয়ে ঘরে ফেরত পাঠাচ্ছেন তিনি। মুহূর্তেই ভিডিওটি ভাইরাল হয়ে বিভিন্ন গ্রুপ পেজে ছড়িয়ে পড়ে।

এএসপি আনোয়ার হোসেন শামীম ও তার পোস্টকৃত ভিডিওটি হয়ে উঠে টক অব দ্য কান্ট্রি। সর্বশেষ দেখা যায়, শুধু তার ফেসবুক পেজ ‘Shamim Anwar’ থেকেই মোট ৮৫ লক্ষ মানুষ ভিডিওটি দেখেছেন। ভিডিওর পোস্টটিতে লাইক পড়েছে ৫ লক্ষ ৪৪ হাজার, মন্তব্য করেছেন ২৯ হাজার জন। পাশাপাশি ভিডিওটি নিজ টাইমলাইনে শেয়ার করেছেন ১ লক্ষ ৩৬ হাজার ফেসবুক ব্যবহারকারী। এ ছাড়াও ভিডিওটির ‘শান্তি লাগে না’ শীর্ষক খণ্ডাংশ নিয়ে ট্রলে মেতে উঠেন নেটিজেনরা।

এ প্রসঙ্গে পোস্টদাতা র‍্যাব-৯ শ্রীমঙ্গল ক্যাম্পের কমান্ডার এএসপি আনোয়ার হোসেন শামীম বলেন, আসলে সেদিন দুপুরে আমি এবং আমার ক্যাম্পের সদস্যরা প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা অনুযায়ী লোকজনের অপ্রয়োজনে বাইরে অবস্থান ঠেকাতে কাজ করছিলাম। তারই এক পর্যায়ে ভিডিওটি ধারণ করা হয়।

তিনি আরো বলেন, আমি আসলে প্রশংসা পাওয়া বা প্রচার পাওয়ার জন্য ভিডিওটি পোস্ট করিনি। সবাইকে ঘরে থাকতে উদ্বুদ্ধ করা, সচেতন করাই ছিল আমার লক্ষ্য। আমি সবাইকে একটু কষ্ট স্বীকার করে যারযার ঘরে অবস্থান করার অনুরোধ জানাচ্ছি।

গত ২০ মার্চ করোনা প্রতিরোধের লক্ষ্যে মৌলভীবাজার জেলার শ্রীমঙ্গল পৌর এলাকার চৌমোহনায় নিরাপদ কর্নার শিরোনামে পথচারীদের জন্য বিনামূল্যে ২৪ ঘণ্টা হাত ধোয়ার ব্যবস্থা করে দেশজুড়ে আলোচনায় আসেন এএসপি আনোয়ার। এর আগে শাবি ভর্তি পরীক্ষার্থী ছাত্রীকে নিজের গাড়িতে করে কেন্দ্রে পৌঁছে দিয়েও ব্যাপকভাবে প্রশংসিত হন তিনি।

শ্রীমঙ্গল র‍্যাব কমান্ডার আনোয়ার হোসেন শামীম ৩৪তম বিসিএস (পুলিশ) ক্যাডারের একজন কর্মকর্তা। ২০১৮ সালের মার্চ মাস থেকে তিনি র‍্যাব-৯ এ কর্মরত রয়েছেন। তার গ্রামের বাড়ি খাগড়াছড়ি জেলার উত্তর বড়বিল গ্রামে।

শেয়ার করুন:
এএসপি মো. আনোয়ার হোসেন শামীমকরোনাভাইরাসর‌্যাব