উপজেলা নির্বাচন: গোপালগঞ্জে ইউএনও অফিস ভাংচুর

গোপালগঞ্জ সদর উপজেলার সম্মেলন কক্ষে হামলা চালিয়ে চেয়ার, টেবিল, গ্লাস ও জানালা-দরজা ভাংচুরের ঘটনা ঘটেছে।

বিজ্ঞাপন

রোববার সদর উপজেলার ২১টি ইউনিয়ন ও একটি পৌরসভার ১২৩টি ভোটকেন্দ্রের নিবাচনী ফলাফল ঘোষণার সময় এ হামলা ও ভাংচুরের ঘটনা ঘটে।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শী জানিয়েছে, রোববার রাতে সদর উপজেলার ২১টি ইউনিয়ন ও একটি পৌরসভার ১২৩টি কেন্দ্রের নিবাচনী ফলাফল ঘোষণাকালে পরাজিত চেয়ারম্যান প্রার্থী মাহামুদ হোসেন দিপুর এক সমর্থক একটি কেন্দ্রের ফলাফল হাতে নিয়ে উপজেলা সম্মেলন কক্ষে প্রবেশ করেন।

তিনি ফল ঘোষণাকারী উপজেলা ইউএনও’কে উদ্দেশ্য করে বলতে থাকেন, ‘আপনার ফলাফল ঘোষণার সাথে একটি কেন্দ্রের ফলাফলের কোনো মিল নেই। আপনি ফলাফল নিয়ে চরম দুর্নীতি ও পক্ষপাতিত্ব করছেন।’

এ সময় একই অভিযোগ করেন বিজয়ী ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী নিতিশের সমর্থকরা। এ নিয়ে একে অপরের সঙ্গে কথা কাটাকাটি হয়। এরপর দু’পক্ষই হামলা চালিয়ে সম্মেলন কক্ষের জানালা, দরজা, চেয়ার, টেবিলসহ বিভিন্ন আসবাবপত্র ভাংচুর করে।

খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনার পর পুনরায় নির্বাচনী ফল ঘোষণা শুরু হয়।

ক্ষতিগ্রস্তদের দাবি, হামলা চালিয়ে ভাংচুরকারীরা সবাই-ই সরকার দলীয় লোকজন।

উপজেলা নির্বাচনউপজেলা পরিষদউপজেলা পরিষদ নির্বাচনগোপালগঞ্জগোপালগঞ্জ-ইউএনও অফিস ভাংচুরনির্বাচন কমিশন