আপাতত সরছে না নির্ভীক কিশোরীমূর্তি

বিজ্ঞাপন

নিউইয়র্কের ওয়াল স্ট্রিটের ষাড়ের মূর্তির সামনে তাকিয়ে থাকা বিশ্বব্যাপী ব্যাপক জনপ্রিয় প্রতীকী নির্ভীক কিশোরী মূর্তিটি এখনই সরানো হচ্ছে না। সংশ্লিষ্ট পৌর কর্তৃপক্ষের চিন্তা-ভাবনার উপর ভিত্তি করে তৈরি হওয়ায় আগামী মার্চ পর্যন্ত প্রতীকী এই কিশোরী মূর্তি সেখানে থাকবে বলে জানিয়েছেন নিউইয়র্কের মেয়র বিল দে ব্লাসিও।

বিজ্ঞাপন

কর্পোরেট দুনিয়ার লিঙ্গ বৈষম্য এবং আয় বৈষম্যকে সবার নজরে আনতে ব্রোঞ্জের তৈরি নির্ভীক এই কিশোরীর মূর্তিটি গত বছরের ৮ মার্চে তৈরি করা হয়। মূর্তিটির তৈরির পরপরই বিপুল পরিমাণ মানুষ সেখানে ভীড় জমায় এবং এটি বেশ জনপ্রিয়তা পায়। যদিও সিটি মেয়র মূর্তিটি সড়িয়ে ফেলতে হবে রোববার এমন নির্দেশনা দেয়া হয়।

প্রতীকী ওই কিশোরী মূর্তির সামনে হাস্যেজ্জ্বল নিউইয়র্কের মেয়র বিল দে ব্লাসিও।

ম্যানহ্যাটানের চার ফুট উচ্চতার ষাড়ের মূর্তির সামনে কোমরে হাত দাঁড়িয়ে নির্ভীক দাঁড়িয়ে থাকা কিশোরীর এই মূর্তি সম্পর্কে ব্লাসিও বলেন, নিউইয়র্কের মানুষের কাছে এটি অনেক কিছু। ভয়কে জয় করে সঠিক কাজ করতে নিজের ভিতরের শক্তিকে খুঁজে নেয়ার প্রতীক হিসেবে এই কিশোরী দাঁড়িয়ে আছে। যখন আমাদের খুব অনুপ্রেরণা দরকার, ঠিক তখন এই মূর্তি আমাদেরকে অনুপ্রাণিত করছে।

স্টেট স্ট্রিট গ্লোবাল এডভাইসরসের (এসএসজিএ) অনুমোদনে নির্ভিক কিশোরীর এই মূর্তিটি তৈরি করেছেন শিল্পী ক্রিস্টেন ভিসবাল। এই মূর্তি আমাদের ভবিষ্যতকে উপস্থাপন করে বলে অভিহিত করে কোম্পানীটি। তারা এও বলেন যে যুক্তরাষ্ট্রের মোট তিন হাজার বড় ব্যবসায়ী কোম্পানীর প্রতি চারটির মধ্যে একটিতেও নারী বোর্ড সদস্য নেই।

বিজ্ঞাপন
মূর্তিটি ঘিরে উৎসুক দর্শনার্থীর ভীড়। ছবি তুলতে পোজ দিচ্ছে শিশুরা।

ওয়ালস্ট্রিটের ক্ষিপ্ত ষাড়ের ভাস্কর্যটি একটি গেরিলা শিল্পকর্ম যা করেছিলেন ইতালির শিল্পী আরতুরো ডি মদিকা। ১৯৮৭ সালের শেয়ার বাজারে ধ্বসের পর যুক্তরাষ্ট্রের মানুষের শক্তি ও সামর্থ্যের প্রতীক হিসেবে ১৯৮৯ সালে তৈরি হয় এটি। পরবর্তীসময় এটি বেশ জনপ্রিয় হয় এবং সংরক্ষিত থেকে যায়।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

ওয়াল স্ট্রিটনিউইয়র্কভাস্কর্য