আদালত অবমাননা: বিচারক সোহেল রানার আপিলের রায় ১২ ডিসেম্বর

বিজ্ঞাপন

আদালত অবমাননার অভিযোগে হাইকোর্টের দেয়া ৩০ দিনের বিনাশ্রম কারাদণ্ড থেকে নিঃশর্ত ক্ষমা চেয়ে কুমিল্লার সাবেক চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মো. সোহেল রানার আপিলের রায় ১২ ডিসেম্বর।

বিজ্ঞাপন

প্রধান বিচারপতি ওবায়দুল হাসানের নেতৃত্বাধীন ছয় বিচারপতির আপিল বিভাগ শুনানি শেষে রায়ের এই দিন ধার্য করেন। আদালতে মো. সোহেল রানার পক্ষে শুনানিতে ছিলেন সিনিয়র আইনজীবী প্রবীর নিয়োগী ও শাহ মনজুরুল হক।

এক মামলায় হাইকোর্টের আদেশ অমান্যর অভিযোগে ব্যাখ্যা দাখিল করেন সোহেল রানা, তাতে সন্তুষ্ট না হয়ে সোহেল রানার প্রতি আদালত অবমাননার রুল জারি করেন হাইকোর্ট। পরে সোহেল রানা নিঃশর্ত ক্ষমা চাইলে গত ১২ অক্টোবর বিচারপতি মো. বদরুজ্জামান ও বিচারপতি এস এম মাসুদ হোসেন দোলনের হাইকোর্ট বেঞ্চ তার নিঃশর্ত ক্ষমা প্রার্থনা গ্রহণ না করে তাকে ৩০ দিনের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেন। সেই সাথে তাকে সাত দিনের মধ্যে ঢাকার চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে আত্মসমর্পণের নির্দেশ দেন। তবে আপিলের শর্তে কয়েক ঘন্টা পির একই বেঞ্চ থেকে ৩০ দিনের জামিন পান মো. সোহেল রানা। পরবর্তীতে আপিল বিভাগের চেম্বার আদালতে আবেদন করে হাইকোর্টের দেয়া কারাদণ্ডে স্থগিতাদেশ পান বিচারক মো. সোহেল রানা।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

বিচারকসুপ্রিম কোর্টহাইকোর্ট