চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

‘৭ মার্চের ভাষণে বাঙালির স্বাধীকার আন্দোলন রূপ নেয় স্বাধীনতার সংগ্রামে’

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন,বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণের মধ্য দিয়ে বাঙালির স্বাধীকার আন্দোলন রূপ নেয় স্বাধীনতার সংগ্রামে।

আজ রোববার বিকালে খুলনা জেলা প্রশাসন আয়োজিত ঐতিহাসিক ৭ মার্চ উপলক্ষে দেড় হাজার শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রায় দেড় লাখ ‘ক্ষুদে বঙ্গবন্ধু’ সমাবেশে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের তার বাসভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সে যুক্ত হয়ে এসব কথা বলেন।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

তিনি আরও বলেন,‘সাম্প্রদায়িক অপশক্তি এবং ষড়যন্ত্রকারীদের মূলোৎপাটনে ৭ মার্চের ভাষণ আমাদের প্রেরণার দ্বীপশিখা।’ কাদের বলেন, ‘এ ভাষণ জাতিকে যেভাবে ঐক্যবদ্ধ করেছিল, সেরকম ঐক্য প্রতিষ্ঠার মধ্য দিয়ে আগামীর সমৃদ্ধ বাংলাদেশ বিনির্মাণে, শেখ হাসিনার স্বপ্নকে বাস্তবায়ন করতে হলে তার হাতকে শক্তিশালী করতে হবে।’

৭৫ পরবর্তী সময়ে বাংলাদেশে সবচেয়ে সফল রাজনীতিকের নাম শেখ হাসিনা উল্লেখ করে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘এদেশে বঙ্গবন্ধু পরিবার সততা,মেধা,ও সাহসের প্রতীক। বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনা তরুণদের জন্য হতে পারে রোল মডেল।’ তিনি তরুণদেরকে বঙ্গবন্ধু পরিবারের সদস্যদের অনুসরণ ও অনুকরণের মধ্য দিয়ে আগামীর উজ্জ্বল ভবিষ্যৎ গড়ে তোলার আহ্বান জানান।

বিজ্ঞাপন

এরআগে খুলনায় এক লাখ ৫০ হাজার ১৫১ জন শিশুর কণ্ঠে শোনা যায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কালজয়ী ৭ই মার্চের ভাষণ (অনুকৃতি)।

মহানগরীর বয়রাস্থ খুলনা সরকারি মডেল স্কুল অ্যান্ড কলেজ মাঠে জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে এবং চাইল্ড ইন্টিগ্রিটি ও শিশু বঙ্গবন্ধু ফোরামের সার্বিক ব্যবস্থাপনায় ঐতিহাসিক ৭ মার্চের ভাষণ উপস্থাপন করা হয়।

ক্ষুদে শিক্ষার্থীরা ১৯৭১ সালের ৭ই মার্চ তৎকালীন রেসকোর্স ময়দানে বঙ্গবন্ধুর দেয়া ১৯ মিনিটের ভাষণ প্রদান করে।

জেলা প্রশাসন কর্তৃপক্ষ জানায়, মূল অনুষ্ঠানস্থলে মহানগরীর শ্রেষ্ঠ ১০টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান থেকে নির্বাচিত ১৫১ জন শিশু এবং একই সঙ্গে সমগ্র জেলা থেকে জুম ওয়েবিনারে সংযুক্ত ১ লাখ ৫০ হাজার জন শিশু বঙ্গবন্ধুর (ক্ষুদে শিক্ষার্থী) কণ্ঠে একযোগে ধ্বনিত হয় বঙ্গবন্ধুর সেই কালজয়ী ভাষণ।

খুলনার জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ হেলাল হোসেনের সভাপতিত্বে এ আয়োজনে ভার্চুয়াল প্লাটফর্মে ও সরাসরি উপস্থিত ছিলেন— খুলনা সিটি করপোরেশনের মেয়র তালুকদার আবদুল খালেক,আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এসএম কামাল হোসেন, শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী,খুলনা জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ হারুনুর রশীদ,সাধারণ সম্পাদক সুজিত অধিকারী, সংসদ সদস্য নারায়ণ চন্দ্র চন্দ,সালাম মোর্শেদীসহ বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি কর্মকর্তারা।