চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

অপহরণের ৬ ঘন্টা পর ইউপি মেম্বারকে উদ্ধার করেছে পুলিশ, আটক ২

পাবনায় অপহৃত ইউপি মেম্বার কোবাদ আলী ব্যাপারি (৫৩) কে অপহরণের ৬ ঘন্টা পর পুলিশ উদ্ধার করেছে। এ ঘটনায় ৫ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করা ২ অপহরণকারীকেও আটক করা হয়েছে।  

ইউপি মেম্বার কোবাদ আলী আমিনপুর থানার বাঘইল মধ্যপাড়া গ্রামের মৃত হাকিম ব্যাপারির ছেলে এবং সুজানগর ইউনিয়নের রানীনগর ইউনিয়নের ৫ নং ওয়ার্ড মেম্বার।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

আটক হওয়া ২ অপহরণকারী হলো, পাবনা শহরতলীর সিঙ্গা উত্তরপাড়ার আহমেদ অলীর ছেলে মো: মামুন(২১)এবং পাবনা সদর উপজেলার চরআশুতোশপুর গ্রামের দেওয়ান আব্দুল্লাহর ছেলে দেওয়ান আসাদুল্লাহ তুষার(২৫)।

বিজ্ঞাপন

বুধবার রাতে পাবনা সদর উপজেলার চরআশুতোশপুর বাজার সংলগ্ন একটি মেহগনি গাছের বাগান থেকে অপহৃত কোবাদকে উদ্ধার এবং ২ অপহরণকারীকে আটক করে পুলিশ।

এ বিষয়ে পাবনার পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মহিবুল ইসলাম খান, বিপিএম বৃহস্পতিবার দুপুরে নিজ কার্যালয়ে এক প্রেস ব্রিফিং এ বলেন, বুধবার দুপুরে কোবাদ আলী ব্যাপারি আমিনপুর থেকে বাসে মেয়ের শশুর বাড়ির উদ্দেশ্যে রওয়ানা হন। তিনি পাবনা বাস টার্মিনালে বাস থেকে নেমে মেরিল বাইপাশ রোড এলাকায় ৫/৬জন দুষ্কৃতকারী অস্ত্রের মুখে তাকে অপহরণ করে নিয়ে যায়।

পরে তার পরিবারের কাছে মোবাইল ফোনে ৫ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করে। পরিবার বিকাশে ২ দফায় ৪৫ হাজার টাকা অপহরণকারীদের দেয়। এরপর বাঁকি টাকা পরিশোধের জন্য কোবাদ আলীকে মারধর করে। এ অবস্থায় কোবাদের স্বজনরা পাবনার পুলিশ সুপারকে জানালে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার(ক্রাইম)মাসুদ আলম এর নেতৃত্বে গোয়েন্দা পুলিশ তথ্য প্রযুক্তি ব্যবহার করে কোবাদকে উদ্ধার এবং অপহরণকারী চক্রের ২ সদস্যকে আটক করে।

পাবনার পুলিশ সুপার জানান, প্রাথমিকভাবে জানা গেছে, আটককৃত ২ জন পেশাদার অপহরণকারী চক্রের সদস্য। তারা বিভিন্ন সময় বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষকে একইভাবে অপহরণ করার পর তাদের স্বজনদের কাছ থেকে মুক্তি পণ আদায় করে আসছিল। চক্রের অন্য সদস্যদের আটকের চেষ্টা চলছে।