চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

৫৪৯ তম দিনে ৫৬ জনের মৃত্যু

দেশে কোভিড-১৯ সংক্রমণের ৫৪৯তম দিনে ৫৬ জনের মৃত্যুতে মোট মৃত্যুর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২৬ হাজার ৬৮৪ জন। গতকাল মৃত্যুর সংখ্যা ছিল ৬৫।

গত ৫ আগস্ট দেশে সর্বোচ্চ ২৬৪ জন রোগী মারা যায়। গত ২৮ জুলাই সর্বোচ্চ শনাক্ত হয় ১৬ হাজার ২৩০ জন।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন) ডা. নাসিমা সুলতানার সই করা এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, মঙ্গলবার সকাল ৮টা পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় (অ্যান্টিজেন টেস্টসহ) ২৭ হাজার ২৩৩টি পরীক্ষায় দুই হাজার ৬৩৯ জন এই ভাইরাসে শনাক্ত হয়েছেন। এই সময়ে পরীক্ষার বিপরীতে শনাক্তের হার নয় দশমিক ৬৯ শতাংশ।

তবে শুরু থেকে মোট পরীক্ষার বিপরীতে শনাক্তের হার ১৬ দশমিক ৬৭ শতাংশ।

সরকারি ব্যবস্থাপনায় এখন পর্যন্ত ৬৭ লাখ ৪৯ হাজার ১৯টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে, বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় পরীক্ষা হয়েছে ২৩ লাখ ৬৯ হাজার ৮২৪টি নমুনা। অর্থাৎ, মোট পরীক্ষা করা হয়েছে ৯১ লাখ ১৮ হাজার ৮৪৩টি নমুনা। এর মধ্যে শনাক্ত হয়েছেন ১৫ লাখ ১৯ হাজার ৮০৫ জন। তাদের মধ্যে ২৪ ঘণ্টায় পাঁচ হাজার ৫৬৭ জনসহ মোট ১৪ লাখ ৬০ হাজার ৭৫৪ জন সুস্থ হয়েছেন। শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৯৬ দশমিক ১১ শতাংশ।

বিজ্ঞাপন

গত ২৪ ঘণ্টায় যে ৫৬ জন মৃত্যুবরণ করেছেন তাদের মধ্যে ১৯ জন পুরুষ ও ৩৭ জন নারী। তাদের মধ্যে ৫৪ জনের হাসপাতালে (সরকারিতে ৪৩ জন, বেসরকারিতে ১১ জন) ও বাসায় একজনের মৃত্যু হয়েছে।এছাড়াও মৃত অবস্থায় হাসপাতলে এসেছে একজন। তারাসহ মৃতের মোট সংখ্যা ২৬ হাজার ৬৮৪ জন। মোট শনাক্ত বিবেচনায় মৃত্যুহার এক দশমিক ৭৫ শতাংশ।

এখন পর্যন্ত সরকারি হাসপাতালে মারা গিয়েছেন ২২ হাজার ৬৯৫ জন, যার শতকরা হার ৮৫ দশমিক ০৫ শতাংশ। বেসরকারি হাসপাতালে মারা গিয়েছেন তিন হাজার ১৯২ জন, যার শতকরা হার ১১ দশমিক ৯৬ শতাংশ। বাসায় ৭৬৩ জন মারা গিয়েছেন, যার শতকরা হার দুই দশমিক ৮৬। এছাড়াও মৃত অবস্থায় হাসপাতালে এসেছেন ৩৪ জন, যার শতকরা হার দশমিক ১৩ শতাংশ।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের তথ্যমতে, এখন পর্যন্ত ১৭ হাজার ২৩৯ জন পুরুষ মারা গেছেন যা মোট মৃত্যুর ৬৪ দশমিক ৬০ শতাংশ এবং নয় হাজার ৪৪৫ জন নারী মৃত্যুবরণ করেছেন যা মোট মৃত্যুর ৩৫ দশমিক ৪০ শতাংশ।

বয়সভিত্তিক বিশ্লেষণে দেখা গেছে, ২৪ ঘণ্টায় করোনায় মৃত ৬১ জনের মধ্যে ত্রিশোর্ধ্ব তিনজন, চল্লিশোর্ধ্ব ছয়জন, পঞ্চাশোর্ধ্ব ২০ জন, ষাটোর্ধ্ব ১১ জন, সত্তরোর্ধ্ব নয় জন, আশি ঊর্ধ্ব ছয়জন ও নব্বই ঊর্ধ্ব একজন।

আর বিভাগওয়ারী হিসাবে ঢাকা বিভাগে ২০ জন, চট্টগ্রাম বিভাগে ১৫ জন, রাজশাহী বিভাগে তিনজন, খুলনা বিভাগে ছয়জন, বরিশাল বিভাগে চারজন, সিলেট বিভাগে পাঁচজন ও রংপুর বিভাগে দু্ইজন ও ময়মনসিংহ বিভাগে একজন।

করোনাভাইরাসে বিশ্বের ২২২টি দেশ ও অঞ্চলে এখন পর্যন্ত ২২ কোটি ২১ লাখেরও বেশি মানুষ আক্রান্ত হয়েছেন। এদের মধ্যে মারা গেছেন ৪৫ লাখ ৯২ হাজার মানুষ। তবে সুস্থ হয়ে ঘরে ফিরেছেন ১৯ কোটি ৮৭ লাখের বেশি।

বিজ্ঞাপন