চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

৪ সোনা ও ৩ ব্রোঞ্জ, ৭ পদকে এমা ম্যাকিওনের ইতিহাস

টোকিও অলিম্পিক থেকে সাঁতারে ৪টি স্বর্ণ পদক ও ৩টি ব্রোঞ্জ পদক নিয়ে বাড়ি যাচ্ছেন এমা ম্যাকিওন। সঙ্গে নিয়ে যাচ্ছেন অনন্য এক কীর্তি গড়ার ইতিহাস। এক গেমসে ৭ পদকের বিরল অর্জনে যে নাম লিখিয়েছেন অস্ট্রেলিয়ান সাঁতারু।

২৭ বছর বয়সী এমা মেয়েদের ১০০ মিটার ব্যক্তিগত ফ্রিস্টাইল সাঁতারে সোনা জিতেছেন। সোনার হাসি এসেছে মেয়েদের ৪*১০০ মিটার ফ্রিস্টাইল রিলেতে, মেয়েদের ৪*১০০ মিটার মেডেলে রিলেতে এবং মেয়েদের ৫০ মিটার ব্যক্তিগত ফ্রিস্টাইল ইভেন্টে।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

পাশাপাশি মিক্সড ৪*১০০ মেডেলে রিলে, ব্যক্তিগত ১০০ মিটার বাটারফ্লাই ও মেয়েদের ৪*২০০ মিটার ফ্রিস্টাইল রিলেতে এমা জিতেছেন ব্রোঞ্জ। যা তাকে বসিয়েছে অনন্য রেকর্ডের পাতায়।

অলিম্পিক ইতিহাসে প্রথম কোনো নারী সাঁতারু হিসেবে এক গেমসে ৭ পদক জিতলেন এমা। সাঁতারে এক আসরে রেকর্ড ৭ পদকের কীর্তি আছে তিনজনের, তিনজনই পুরুষ অ্যাথলেট। তারা- মাইকেল ফেলপস, মার্ক স্পিটজ ও ম্যাট বিওনডি।

বিজ্ঞাপন

সাঁতারের বাইরে আর একজন নারী অ্যাথলেটের আছে এক গেমসে ৭ পদকের কীর্তি। রাশিয়ার মারিয়া গরোখভস্কায়া, জিমন্যাস্টিকসে ১৯৫২ আসরে সাত পদকের কীর্তি গড়েছিলেন তিনি।

এমা রোববার দুবার পুলে নামেন। প্রথমে মেয়েদের ৫০ মিটার ফ্রিস্টাইলে ২৩.৮১ সেকেন্ড সময় নিয়ে অলিম্পিক রেকর্ড গড়ে সোনার হাসি আনেন। সবশেষ সোনাটি জেতেন বিশ্বরেকর্ড গড়ে।

অস্ট্রেলিয়ার মেয়েদের দলের হয়ে ৪*১০০ মিটার মেডলে রিলেতে বিশ্বরেকর্ড গড়েছেন। যে দলে এমার সাথে ছিলেন কাইলি ম্যাকিওন, কেট ক্যাম্পবেল ও চেলসি হজ। তারা ৩ মিনিট ৫১.৬০ সেকেন্ড সময় নিয়ে সাঁতার শেষ করেছেন।

এমার ঝুলিতে এখন ১১টি অলিম্পিক পদক, যার ৫টি সোনার। আর কোনো অস্ট্রেলিয়ান অ্যাথলেটই ১০ বা ততোধিক অলিম্পিক পদক জয়ের কীর্তি গড়তে পারেননি।