চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

৩০ বছরের ঊর্ধ্বে কেউ ডাকসুর প্রার্থী হতে পারবে না

আগামী ১১ মার্চ অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু) নির্বাচন ও হল সংসদ নির্বাচনে ৩০ বছরের ঊর্ধ্বে কেউ প্রার্থী হতে পারবে না।

মঙ্গলবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সিন্ডিকেট সভায় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

কবি জসিম উদ্দীন হলের প্রাধ্যক্ষ ও সিন্ডিকেট সদস্য চ্যানেল আই অনলাইনকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

সভায় সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে, প্রার্থী এবং ভোটারদের বয়স ৩০ বছরের মধ্যে হতে হবে। এমফিল, মাস্টার্স, একাধিক মাস্টার্সের শিক্ষার্থীরাও প্রার্থী হতে পারবেন। তবে এক্ষেত্রে যারা ভর্তি পরীক্ষার মাধ্যমে প্রথম বর্ষে ভর্তি হয়েছেন তারাই শুধু প্রার্থী হতে পারবেন। ভোটারদের ক্ষেত্রেও একই শর্ত প্রযোজ্য।

সিন্ডিকেট সভায় সিদ্ধান্ত হয়েছে, হলের বাইরে কোন ভোট কেন্দ্র হবে না। নিজ নিজ হল হবে ভোট কেন্দ্র।

এছাড়াও আজকের সভায় ডাকসুর কেন্দ্রীয় কমিটির পদ সংখ্যা ২১ থেকে বাড়িয়ে ২৫ করা হয়েছে।

সংশোধিত গঠনতন্ত্রগুলো হলো:

১. ভর্তি পরীক্ষার মাধ্যমে চান্স পাওয়া স্নাতক, স্নাতকোত্তর, এমফিল করা শিক্ষার্থীরা ভোটার ও প্রার্থী হতে পারবেন৷

২. সংশ্লিষ্ট হলগুলোতে ভোটকেন্দ্র স্থাপন করা হবে৷

৩. ভোটার বা প্রার্থী হওয়ার বয়স সর্বোচ্চ ৩০ বছর৷

৪. সকল ভোটারই প্রার্থী হতে পারবেন৷

৫. ভর্তি পরীক্ষার মাধ্যমে চান্স না পাওয়া কেউ ভোটার বা প্রার্থী হতে পারবে না৷

বিজ্ঞাপন

৬. অধিভুক্ত কলেজের কেউ ভোটার বা প্রার্থী হতে হতে পারবে না৷

৭. ডাকসু সভাপতির ক্ষমতার বিষয়টি বিবেচনায় নিয়েছেন সিন্ডিকেট সদস্যরা৷সভার কার্যকারিতার পর বিস্তারিত জানানো হবে৷

সংশোধিত আচরণবিধিগুলো হলো:

১. লিফলেট বা হ্যান্ডবিলে শুধুমাত্র সাদা-কালো ছবি ব্যবহার করা যাবে৷

২. হলসমূহে সিসিটিভি ক্যামেরা আছে, প্রয়োজন হলে হল প্রাধ্যক্ষ আরো সংযোজন করবেন৷

৩. বিদ্যুৎ সরবরাহ ও মোবাইল নেটওয়ার্ক নির্বাচনের সময় নিরবচ্ছিন্ন রাখা হবে৷

৪. প্রচারণার সময় সকাল ১০টা থেকে রাত ১২টা পর্যন্ত রাখা হয়েছে৷

৫. সভা সমাবেশ ও অডিটোরিয়ামে মাইকের সাহায্যে প্রচারণা চলাতে পারবে৷

৬. কোন প্রকার স্থাপনা, দেয়াল, যানবাহন ইত্যাদিতে লিখন বা হ্যান্ডবিল লাগাতে পারবে না৷

৭. সভা সমাবেশের সময় ২৪ ঘণ্টা পূর্ব পর্যন্ত রাখা হয়েছে৷

৮. ছাত্রসংগঠনগুলোর কোন প্রার্থী, নেতাকর্মীদের হয়রানি করা যাবেনা৷

৯. ক্যাম্পাসের গুরুত্বপূর্ণ জায়গাগোলতে সিসিটিভি ক্যামেরা বসানো আছে, প্রয়োজনে আরো বসানো হবে।

১০. শুধুমাত্র রিটার্নিং অফিসার কর্তৃক অনুমোদিত ব্যক্তিরাই ভোটকেন্দ্রে প্রবেশ করতে পারবেন৷