চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

২৬ সেপ্টেম্বর থেকে শুরু আইপিএল?

করোনাভাইরাস পরিস্থিতিতে চলতি বছর আইপিএল যে হচ্ছে আর টি-টুয়েন্টি বিশ্বকাপ যে পিছিয়ে দিচ্ছে আইসিসি’র সেই ঘোষণা আসা এখন কেবল সময়ের ব্যাপার মাত্র। আইসিসি’র ঘোষণা আসা মাত্রই ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড (বিসিসিআই) জানিয়ে দেবে আইপিএলের সূচি। তার আগে অভ্যন্তরীণ সূত্রে ক্রিকইনফো জানাচ্ছে, ২৬ সেপ্টেম্বর থেকে সংযুক্ত আরব আমিরাতে শুরু হয়ে যাবে ধুমধারাক্কা টি-টুয়েন্টি টুর্নামেন্ট, চলবে ৭ নম্ভেম্বর পর্যন্ত।

১৮ অক্টোবর থেকে অস্ট্রেলিয়ায় শুরু হওয়ার কথা ছিল টি-টুয়েন্টি বিশ্বকাপ, শেষ হওয়ার কথা ১৫ নভেম্বর। কিন্তু করোনা মহামারীতে দর্শক হবে না, ১৬ দল নিয়ে টুর্নামেন্ট আয়োজন করা কঠিন হয়ে যাবে এমন সিদ্ধান্তহীনতায় ভুগতে ভুগতে আইসিসি পিছিয়ে দেয়ার সিদ্ধান্তই নিতে চলেছে।

বিজ্ঞাপন

এই সময়টাকেই নিজেদের কাজে লাগাতে এরই মধ্যে তোড়জোড় লাগিয়ে দিয়েছে বিসিসিআই। আইপিএল যে আরব আমিরাতে হচ্ছে, সেই ব্যাপারে সরকারকে অবহিত করে লিখিত অনুমতির জন্য আবেদনও করা হয়েছে বোর্ডটির পক্ষ থেকে।

বিজ্ঞাপন

শুক্রবারে বিসিসিআইয়ের অ্যাপেক্স কাউন্সিলে সিদ্ধান্ত হয়েছে পুরো আইপিএলের আসরটাই হবে আরব আমিরাতে। তবে একই নিজ দেশের পরিস্থিতির দিকেও তাকিয়ে বোর্ডটি। অলৌকিকভাবে যদি সেপ্টেম্বরের শুরুর দিকে পরিস্থিতি পাল্টে যায় তাহলে ভারতেই হবে পুরো টুর্নামেন্ট। পুরোটা না হলে আংশিক। তবে সেটা যে সম্ভব নয় সেটা একপ্রকার হুঁশিয়ারি দিয়ে রেখেছে বেঙ্গালুরুর ইন্ডিয়ান ইন্সটিটিউট অব সায়েন্স (আইআইএসসি), সংস্থাটি জানিয়েছে সেপ্টেম্বরে ভারতে করোনা আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ছাড়িয়ে যেতে পারে ৩৫ লাখে!

বিজ্ঞাপন

অথচ গত এপ্রিলেও আইপিএলের এবার আসর নিয়ে অনিশ্চয়তায় ছিলো ভারত। যেভাবে দেশটিতে করোনা রোগীর সংখ্যা বাড়ছে তার মাঝে দেশি-বিদেশি খেলোয়াড়দের নিয়ে আইপিএল করার ব্যাপারে বিন্দুমাত্র আগ্রহ দেখায়নি ভারত সরকার। বিসিসিআইয়ে পক্ষ থেকে মরিয়া হয়ে বদ্ধদুয়ার টুর্নামেন্ট করার অনুমতি চাওয়া হলেও তাতে কর্ণপাত করেনি সরকার। তাই ৪ হাজার কোটি রুপি ক্ষতির আশঙ্কা নিয়ে নিয়ে যখন অলৌকিকতার দিকে তাকিয়ে বোর্ডটি তখনই আশীর্বাদ হয়ে এসেছে অস্ট্রেলিয়া।

ভারতের চেয়ে খুব বেশি ক্ষতি না হলেও করোনা পরিস্থিতি অস্ট্রেলিয়াতেও ভালো নয়। এর মাঝে ১৬ দলকে ডেকে এনে ১৪ দিন কোয়ারেন্টাইনে রেখে দর্শকহীনভাবে বিশ্বকাপ আয়োজনের ব্যাপারে সন্দিহান ছিল ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া। সুযোগটা কাজে লাগিয়েছে বিসিসিআই, যেসময়টায় বিশ্বকাপ হওয়ার কথা সেসময়টাতেই আইপিএল আয়োজন করছে তারা।

আইপিএলের ম্যাচগুলো হবে দুবাই, আবুধাবি ও শারজাতে। আইসিসির ক্রিকেট অ্যাকাডেমি মাঠে ম্যাচ হবে কিনা তা অবশ্য নিশ্চিত নয়। তবে সবগুলো ম্যাচই যে বদ্ধদুয়ার হবে সে বিষয়ে পরিষ্কার জানতে পেরেছে ক্রিকইনফো।

এখন থেকে মোটামুটি কাজ শুরু করে দিয়েছে ফ্র্যাঞ্চাইজি দলগুলোও। হাতে ছয় সপ্তাহ সময় বাকি থাকায় টিম হোটেল, অনুশীলনের মাঠ, ফরোয়ার্ড বেসও তৈরি করছে দলগুলো। খেলোয়াড়দের কোয়ারেন্টাইন ব্যবস্থা নিশ্চিত করতে কাজ করবে আমিরাত সরকার।

৭ নভেম্বর হবে আইপিএলের ফাইনাল। এরপর চার সপ্তাহ বিশ্রাম ও অনুশীলনের সময় পাবেন ভারতীয় ক্রিকেটাররা। ডিসেম্বরে চার ম্যাচের টেস্ট সিরিজ খেলতে ভারতের ক্রিকেটারদের অস্ট্রেলিয়ায় যাবার কথা আছে।