চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

২৫ সংগঠন নিয়ে ‘বাঙালি সাংস্কৃতিক বন্ধন’-এর আত্মপ্রকাশ

বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট, আওয়ামী শিল্পী গোষ্ঠী, বাংলার মুখ, আওয়ামী সাংস্কৃতিক ফোরাম, আওয়ামী সাংস্কৃতিক জোট, বাংলাদেশ লোক সাংস্কৃতিক পরিষদ, বাংলাদেশ সঙ্গীত সংগঠন সমন্বয় পরিষদ, স্বাধীনতা চারুশিল্পী পরিষদ, বঙ্গবন্ধু লেখক পরিষদ, বঙ্গবন্ধু আবৃত্তি পরিষদ, শিল্পী কলাকুশলী সমিতি, ভাওয়াইয়া অঙ্গন, বাংলাদেশ ললিতকলা পরিষদ, বাংলাদেশ রোদসী কৃষ্টিসংসার, প্রতিভা মূল্যায়ন সংসদ, স্বাধীনতা সাংস্কৃতিক একাডেমি, বঙ্গমাতা পরিষদসহ ২৫টি সংগঠন মিলে আত্মপ্রকাশ করলো ‘বাঙালি সাংস্কৃতিক বন্ধন’ নামের নতুন সংগঠন।

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের অনির্বাণ আদর্শে বিশ্বাসী, আবহমান বাঙালি সংস্কৃতি ও মহান মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় উজ্জীবিত ২৫টি সাংস্কৃতিক সংগঠনের জোট ‘বাঙালি সাংস্কৃতিক বন্ধন’- এর আনুষ্ঠানিক আত্মপ্রকাশ ঘটলো বৃহস্পতিবার।

বিজ্ঞাপন

বৃহস্পতিবার জাতীয় প্রেসক্লাবের ভিআইপি লাউঞ্জে ২৫টি সাংস্কৃতিক সংগঠনের সমন্বয়ে গঠিত ‘বাঙালি সাংস্কতিক বন্ধন’-এর আত্মপ্রকাশ অনুষ্ঠানে সংগঠনটির সভাপতির দায়িত্ব গ্রহণ করেন অভিনেতা ফারুক।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন কবি কাজী রোজী এমপি, কবি ড. মুহাম্মদ সামাদ, শিল্পী ইন্দ্রমোহন রাজবংশী, মনোরঞ্জন ঘোষাল, সঙ্গীতজ্ঞ শেখ সাদী খান, নাট্যজন এসএম মহসিন, শিল্পী বুলবুল মহলানবীশ, বাউল শিল্পী শফি মন্ডল, চিত্রনায়ক জায়েদ খানসহ আরো অনেকেই।

এছাড়া চলচ্চিত্র কর্মীদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন চিত্রনায়িকা রত্না, শাহনুর, অমৃতা, নায়ক জয়, আরজে নয়ন এবং সাংবাদিকসহ শিল্প-সাহিত্য অঙ্গনের বিভিন্ন ব্যাক্তিবর্গ।

জাতীয় জীবনের সর্বস্তরে বঙ্গবন্ধুর আদর্শ, মুক্তিযুদ্ধের মহিমা ও বাঙালি সংস্কৃতির বিকাশ ও চর্চাকে বেগবান করে জনমানসে চিরায়ত সাংস্কৃতিকে জাগরুক রাখতে এবং বাঙালির সাংস্কৃতিক ঐতিহ্যকে বিশ্বদরবারে পৌঁছে দিতে এই সংগঠন দেশব্যাপী বহুমুখী কর্মকাণ্ড পরিচালনা করবে বলে জানান সংগঠনটির সঙ্গে জড়িত ব্যক্তিবর্গ।

অনুষ্ঠানে সভাপতির বক্তব্যে ফারুক বলেন, এই সংগঠনের মুখ্য উদ্দেশ্য হচ্ছে যে দেশ ৭১-এ স্বাধীনতা অর্জনের সময় ৩০ লাখ মানুষকে শহীদ হতে হয়েছে, এমন আর হতে দেব না। মুক্তিযুদ্ধেও যে চেতনা ভুলন্ঠিত করার চেষ্টা করা হয়েছে, এটি আমরা আর হতে দেব না। এই সংগঠন নির্বাচনী কর্মকাণ্ডে অংশগ্রহন করবে।

সংগঠনটির সাধারণ সম্পাদক সাইফুল আজম বাশার বলেন, আগামী দিনের চলার পথে বিভিন্ন জাতীয় ইস্যুতে এই সংগঠন কাজ করবে। সময়ের দাবি পূরণ করবে বাঙালি সাংস্কৃতিক বন্ধন।

নাট্যব্যাক্তিত্ব ড. ইনামুল হক বলেন, আমরা শিল্পবান্ধব সরকার চাই, বর্তমান সরকার শিল্পবান্ধব সরকার। এই সরকারকেই আমরা চাই।