চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

১২ হাজার কনটেন্ট নিয়ে বাংলাদেশে এলো ‘ইরোজ নাও’

নেটফিল্ম, অ্যামাজন, হইচই, আড্ডা টাইমসের পর বাংলাদেশে এলো আরও এক অ্যাপ। ভিডিও অন-ডিমান্ড সার্ভিস বা ওটিটি প্ল্যাটফর্মের নাম ‘ইরোজ নাও’। ওরজিনাল ওয়েব সিরিজি, সিনেমা, শর্টফিল্ম এবং বিনোদনমূলক প্রায় ১২ হাজার কনটেন্ট রয়েছে সেখানে।

এ প্ল্যাটফর্মে দর্শকরা যেমন ভারতীয় ওয়েব সিরিজ, সিনেমা, নাটক ও শর্টফিল্ম দেখতে পাবেন, তেমনি বাংলাদেশের ওয়েব সিরিজ, সিনেমা, নাটক ও শর্টফিল্ম দেখতে পাবেন। সম্প্রতি ইরোজ নাও এবং এলবিসি মিডিয়া’র পার্টনারশীপ ঘোষণা করে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, ‘ইরোজ নাও’ এর মার্কেটিং, ডিস্ট্রিবিউশন এবং যৌথভাবে কনটেন্ট নির্মাণ করবে। পাশাপাশি ব্যবসায় সম্প্রসারণে টেলিকম, ইন্টারনেট সরবরাহকারী, সেটআপ বক্স ও টিভি সেটের মাধ্যমে তাদের সেবা বাড়াবে।

বিজ্ঞাপন

‘ইরোজ নাও’র বাংলাদেশি পার্টনার এলবিসি মিডিয়ার হেড অব মার্কেটিং নুসরাত জেরিন বলেন, ‘ইরোজ নাও’তে ১২ হাজারের বেশি কনটেন্ট রয়েছে, যা বাংলাদেশের দর্শকদের মুগ্ধ করবে। আমাদের ডিস্ট্রিবিউশন নেটওয়ার্ক ব্যবহার করে সারাদেশের দর্শকদের জন্য ওটিটি প্ল্যাটফর্ম সার্ভিস দেওয়ার চেষ্টা করবে এলবিসি মিডিয়া এন্টারটেইনমেন্ট কোম্পানি।

বাংলাদেশে চালু হওয়া প্রসঙ্গে ‘ইরোজ নাও’র চেয়ারম্যান রিশিকা লুল্লা সিং বলেন, এই পার্টনারশীপের মাধ্যমে ‘ইরোজ নাও’ আরও একধাপ এগিয়ে গেল। আমাদের জনপ্রিয় সব ভারতীয় কনটেন্ট বিশেষ করে জনপ্রিয় বাংলা চলচ্চিত্রগুলো বাংলাদেশের শ্রোতাদের সর্বোচ্চ বিনোদন দিতে সক্ষম হবে।

জানা গেছে, বাংলাদেশি দর্শকরা সবধরণের ব্যাংক কার্ড ও মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে মাসিক ও বাৎসরিক ফি দিয়ে ‘ইরোজ নাও’ সাবস্ক্রাইবার হতে পারবেন।

‘ইরোজ নাও’ দক্ষিণ এশিয়ার জনপ্রিয় ওটিটি প্ল্যাটফর্ম যা মোবাইল, ওয়েব, টিভিসহ যেকোনো ইন্টারনেট ডিভাইস দিয়ে দেখা যায়। এটি বিশ্বব্যাপী ১৮৬.৯ মিলিয়নের বেশি নিবন্ধিত ব্যবহারকারী এবং ২৬.২ মিলিয়ন মাসিক সাবস্ক্রাইবারকে সার্ভিস দিয়ে যাচ্ছে ।