চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

১০৫ জনের প্রাণ নিলেন বিরক্ত এক নার্স

বিরক্তি কাটাতে রোগীদের প্রাণঘাতী ওষুধ দিতেন সেবক, তাতে কেউ কেউ বেঁচে উঠলেও প্রাণ হারিয়েছেন অন্তত ১০৫ জন। ভয়াবহ এই ঘটনা ঘটেছে জার্মানিতে। সম্প্রতি এক তদন্তে বেরিয়ে এসেছে এই তথ্য।

নীলস হোয়েজেল নামের ৪১ বছর বয়সী এই সেবকের বিরুদ্ধে ২০১৫ সালে ব্রিমেনের ডেলমেনহর্সট হাসপাতালে আইসিইউ রোগীদের মধ্যে দুজনকে হত্যার এবং চারজনকে হত্যাচেষ্টার অভিযোগ আনা হয়। এরপরে তদন্ত শুরু হলে আরো অন্তত ৯০ জনের মৃত্যুর বিষয়টি সামনে আসে।

সম্প্রতি পুলিশ ও তদন্ত কর্মকর্তারা নিশ্চিত করেছেন ১৯৯৯ সাল থেকে ২০০৫ সালের মধ্যে দুটি হাসপাতালে কাজ করার সময় অন্তত ১৬ জনের মৃত্যুর কারণ ছিলো এই সেবক। তদন্তে সামনে আসতে পারে আরো চাঞ্চল্যকর তথ্য। আগামী বছরের শুরুর দিকে নতুন অভিযোগ করা হতে পারে হোয়েজেলের বিরুদ্ধে।

বিজ্ঞাপন

হোয়েজেল রোগীদের এমন ইনজেকশন দিতো যেটা কিনা হার্ট ফেলের ঘটনা ঘটায়। এরপরে সে তাদের বাঁচানোর চেষ্টা করতো। যদি কোনো রোগী বেঁচে যেত তাহলে অন্যান্য সহকর্মীদের সামনে নিজেকে জয়ী হিসেবে উপস্থাপন করতো।

এর আগে এক সাক্ষীতে সেই সেবক নিজেই জানায় যে, বিরক্তির শিকার হয়ে সে এই ধরনের ঘটনা ঘটিয়েছে। রোগীরা যদি বেঁচে উঠতো তাহলে সে চঞ্চল হয়ে উঠতো আর তা না হলে সে ভেঙে পড়তো।

এই মামলার তদন্তকারী পুলিশ কর্মকর্তা আর্নে স্মিট বলেন, জার্মানির ইতিহাসে এটি একটি ভিন্নরকম ঘটনা।

এর আগে একজনকে হত্যাচেষ্টার সময়ে আরেক নার্স তাকে দেখে ফেলায় ২০০৮ সালে সাড়ে সাত বছরের কারাদণ্ড ভোগ করেন হোয়েজেল। এরপর ২০১৫ সালে আবারও কারাদণ্ডের সাজা পান তিনি। তবে তদন্তকারীদের দাবী হোয়েজেল নিজেও হয়তো জানেনা সে কতজনকে হত্যা করেছে।

বিজ্ঞাপন